কলকাতায় উগ্র হিন্দুদের জুলুমের শিকার এক মাদ্রাসা শিক্ষক!

0
252

পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার কান্নিংয়ের বাসিন্দা বিশ বছর বয়সী মুহাম্মদ শাহরুখ হালদার। তিনি বৃহস্পতিবার বিকালে হুগলিতে তার মাদরাসায় যাচ্ছিলেন, একটি লোকাল ট্রেনে করে অন্যান্য সময়ের মত তখনও তিনি কান্নিং থেকে রওয়ানা দিয়েছিলেন। কিন্তু পথিমধ্যে উগ্রবাদী হিন্দু জনতার বিদ্বেষের শিকার হয়ে আহত হন।

নিউজরুম  নামে একটি বার্তাসংস্থা মুহাম্মদ শাহরুখ হালদারের সাথে ফোনে কথা বলে জানিয়েছে, শাহরুখ যে ট্রেনে করে মাদরাসায় যাচ্ছিল সেটি ঢাকুরিয়া পৌঁছালে অনেক লোক হিন্দুত্ববাদী স্লোগান দিতে থাকে এবং উগ্রতা ছড়াতে থাকে। একসময় উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা ট্রেনের ভেতরে শাহরুখদের কম্পার্টমেন্টে ঢুকে।

ট্রেন যখন বাল্লিগঞ্জে পৌঁছে তখন উগ্র হিন্দুত্ববাদীরা টুপিওয়ালা এবং দাঁড়িওয়ালা লোকদেরকে বিরক্ত করতে থাকে। একসময় তারা শাহরুখকে এসে জিজ্ঞাসা করে, কেন তিনি টুপি পড়েছে এবং দাঁড়ি রেখেছে। এসময় তারা শাহরুখকে ‘জয় শ্রী রাম’ স্লোগান দিতেও বলে। কিন্তু, শাহরুখ কোন প্রতিউত্তর না দিলে ঐ উগ্র হিন্দুরা তাঁকে আঘাত করতে থাকে।

শাহরুখ জানান, পার্ক সার্কাসে ট্রেনটি প্রবেশ করলে তারা আমাদেরকে ট্রেন থেকে ফেলে দেয়। স্থানীয় কিছুলোক এসময় আমাদেরকে উদ্ধার করতে এগিয়ে এসেছিলেন।

যাইহোক, এ ধরণের ঘটনা পশ্চিমবঙ্গে নতুন নয়। গতবছর এক মুসলিম ভিক্ষুককে হাওরার কাছে গেরুয়া সন্ত্রাসীরা মারধর করেছিল। মুসলিম ভিক্ষুকের অপরাধ ছিল তিনি হিন্দুত্ববাদীদের জাতীয় সংগীত জানেন না!

এভাবে, ভারতের প্রতিটা রাজ্যেই মুসলিমদের উপর চলছে নির্যাতন। সম্প্রতি এ নির্যাতনের ঘটনা আশংকাজনক হারে বেড়ে চলেছে।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন