দেশের সব পর্যায়ের গ্যাসের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত!

0
148

দেশের সব পর্যায়ে বাড়ানো হয়েছে গ্যাসের দাম। ফলে বাণিজ্যক,শিল্প, ক্যাপটিভ পাওয়ার, সার,বিদ্যুৎসহ সবক্ষেত্রেই বেড়েছে গ্যাসের দাম। আগামীকাল ১লা জুলাই থেকে গ্যাসের দাম বাড়ানোর এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। আজ রোববার, রাজধানীর কারওয়ান বাজারে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন-বিইআরসির প্রধান কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

নতুন এ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আবাসিক ক্ষেত্রে এক চুলা গ্যাসের দাম ৭৫০ টাকা থেকে ৯২৫ টাকা এবং দুই চুলার ক্ষেত্রে ৮০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৯৭৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। আর মিটার যুক্ত চুলায় প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১২.৬০ টাকা। সিএনজি ৩২ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৪৩ টাকা করা হয়েছে।

এছাড়া শিল্প ও বিদ্যুত খাতেও বাড়ানো হয়েছে গ্যাসের দাম। গড়ে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম বেড়েছে ৯ টাকা ৮০ পয়সা।

এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে গ্যাস বিতরণ কোম্পানিগুলো কমিশনের কাছে গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দেয়। কোম্পানিগুলো গ্যাসের দাম গড়ে ১০২ ভাগ বাড়ানোর প্রস্তাব করে। এরপর, মার্চ মাসে গণশুনানি করে কমিশন। শুনানির ৯০ দিনের মধ্যে দামের বিষয়ে ঘোষণা দেয়ার নিয়ম রয়েছে। সেই নিয়ম অনুযায়ী আজ রবিবার গ্যাসের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেয় বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন।

এর আগে, বাসাবাড়িতে গ্যাসের দাম ৬৬ শতাংশ বাড়াতে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের কাছে প্রস্তাব দেয় গ্যাস সঞ্চালন ও বিতরণ কোম্পানিগুলো।

এব্যাপারে বিশ্লেষকগণ বলেছেন, জনবিচ্ছিন্ন সরকার জনগণের উপর বেপরোয়া শোষণ চালাচ্ছে। নতুনকরে জ্বালানী গ্যাসের দাম ৩২.৮ শতাংশ বৃদ্ধি জনগণের উপর সরকারের চরম জুলুমের বহি:প্রকাশ।
আবাসিক, বাণিজ্যিক, বিদ্যুৎ, সিএনজি, শিল্পখাতসহ সকল ক্ষেত্রে নতুনকরে জ্বালানী গ্যাসের দাম বৃদ্ধিতে জনদুর্ভোগ আরো বৃদ্ধি পাবে। সাধারণ জনগণের উপর চাপিয়ে দেয়া সরকারের এই মূল্যবৃদ্ধি মরার উপর ঘাড়ার ঘাঁ- এর শামিল। সুতরাং বাংলাদেশের নিজস্ব জ্বালানী- গ্যাসের দাম বৃদ্ধি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও গণবিরোধী সিদ্ধান্ত।

সূত্র: লেটেস্টবিডিনিউজ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন