শুধু বাজেটই বাড়ছে জনগণের সক্ষমতা নয় : আনু মুহাম্মদ

0
99

আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের জন্য পাঁচ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট পাস হয়েছে। যা ইতিহাসের বড় বাজেট।
এমনিভাবে, প্রতি বছর বাজেট বাড়লেও জনগণের সক্ষমতা বাড়ছে না। খাত অনুযায়ী যথাযথ তথ্য, দক্ষ জনশক্তি, কৃষক, শ্রমিক, শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন গোষ্ঠীর সঙ্গে যোগাযোগ না থাকায় ফলপ্রসূ হচ্ছে না বাজেট।

গতকাল রোববার (৩০ জুন) জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ আয়োজিত ২০১৯-২০ অর্থবছরের জাতীয় বাজেট সম্পর্কিত ‘রিভিজিটিং দ্য ন্যাশনাল বাজেট-২০১৯-২০’ শীর্ষক আলোচনায় আনু মুহাম্মদ এসব কথা বলেন।

আনু মুহাম্মদ বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়ন প্রকল্পে পৃথিবীর মধ্যে সর্বোচ্চ ব্যয় করা হয়। বড় বড় প্রকল্পে যারা লাভবান হচ্ছে তাদের থেকে কর নেয়া যাচ্ছে না। এসব প্রকল্পে জনকল্যাণের চেয়ে সরকারের বিজ্ঞাপনের ওপর বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়।

ঋণখেলাপিদের দমন করে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তোলার উপযুক্ত বাজেট প্রণয়নের জন্য সরকারকে অনুরোধ করে তিনি বলেন, দেশে শিক্ষা ও প্রযুক্তির জন্য বিরাট অঙ্কের অর্থ বরাদ্দ করা হলেও শিক্ষার জন্য পর্যাপ্ত বরাদ্দ দেয়া হয়নি। বরং শিক্ষা ও গবেষণার জন্য বরাদ্দ খুবই কম।

জাবির অর্থনীতি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মো. শওকত আলীর সভাপতিত্বে বিশেষ আলোচক হিসেবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান মো. আব্দুল মজিদ বলেন, ভ্যাট-ট্যাক্সের আওতা বাড়লেও মোট রাজস্ব আয় বাড়ছে না। কর ফাঁকি দেয়ার পরিমাণ বেড়েই চলছে।

সিপিডির গবেষক তৌফিকুল ইসলাম খাঁন বলেন, আমাদের বাজেট বাড়লেও উন্নয়ন সব জায়গায় পৌঁছায়নি। দিন দিন বৈষম্য বাড়ছে। প্রবৃদ্ধি বাড়লেও বাড়ছে না কর্মসংস্থান।
দেশের অন্যান্য বিশ্লেষকগণ বলেছেন, সরকার দলীয় লাঘব বোয়ালদের পকেট ভরতেই এমন অদ্ভুদ বাজেট পাস করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন