তালেবানদের নিকট পরাজিত মার্কিন-আফগান বাহিনী, হত্যাযজ্ঞ চালানোর জন্য ভাড়া করা হচ্ছে ‘ব্ল্যাক ওয়াটার’ সন্ত্রাসীদের!

0
944
কুফফার বাহিনীর সাথে যুদ্ধে তালেবান মুজাহিদিনের হস্তগত হওয়া কুখ্যাত আন্তর্জাতিক টেরোরিস্ট সংগঠন ‘ব্ল্যাক ওয়াটার’ লেখা সম্বলিত একটি হেলমেট!

আফগান যুদ্ধ এখন প্রায় পরিসমাপ্তির দিকে। দীর্ঘ ১৮ বছর তালেবানদের সাথে যুদ্ধ করার পর পরাজিত ও যুদ্ধে ক্লান্ত হয়ে পড়েছে ক্রুসেডার আমেরিকা ও তাদের গোলাম আফগান মুরতাদ বাহিনী। অপরদিকে বিজয়ের ধারা চলমান রেখেই সামনে এগিয়ে চলেছেন তালেবান মুজাহিদগণ। বিভিন্ন সময় আফগান যুদ্ধ নিয়ে বিভিন্ন দেশের প্রস্তাবিত আলোচনায় নিজেদের অবস্থান ঠিক রেখেই অংশগ্রহণ করছেন তালেবান মুজাহিদগণ।

কিছু সময়ের জন্য এই পরাজয় ঢেকে রাখতে এখন ক্রুসেডার মার্কিন ও আফগান মুরতাদ বাহিনী “ব্ল্যাক ওয়াটার” নামক হিংস্র ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী সেনাদেরকে ভাড়া করে তালেবানদের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করছে। কারণ আমেরিকা আজ এই যুদ্ধে পরাজিত ও ক্লান্ত হয়ে পড়েছে, অপরদিকে কাবুল প্রশাসন/আফগান মুরতাদ বাহিনী তালেবানদের অগ্রযাত্রাকে প্রতিরোধ করতে ব্যর্থ হয়েছে। তারা এটাও জেনে গেছে যে, তাদের পা এখন গর্তের কিনারায় এসে পৌঁছেছে। তাই এখন যুদ্ধের ময়দানে নামানো নামিয়েছে আন্তর্জাতিক ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী ‘ব্ল্যাক ওয়াটার’ বাহিনীকে।

গত ২৬শে জুন, কাবুল প্রদেশের সারুবি জেলায় তালেবান মুজাহিদদের নিয়ন্ত্রিত টুরঘার ও নাসিরো গ্রামে সম্মিলিত কুফ্ফার বাহিনী কঠিন হামলা চালায়, যার ফলে মুজাহিদগণও কঠিন প্রতিরোধ যুদ্ধ শুরু করেন। এসময় তালেবান মুজাহিদদের তীব্র প্রতিরোধ যুদ্ধের ফলে বিশ্ব সন্ত্রাসী সংগঠন “ব্ল্যাক ওয়াটার” ও আফগান মুরতাদ বাহিনীর ১৮ সেনা নিহত হয়, আহত হয় আরো অনেক সেনা। তালেবানদের হামলা থেকে বেঁচে যাওয়া কাফের সেনারা দ্রুত এলাকা ছেড়ে পলায়ন করে।

কুফফার সেনাদের থেকে তালেবান মুজাহিদিনের পাওয়া কিছু গনিমত, যেখানে রয়েছে কুখ্যাত সন্ত্রাসী বাহিনী ‘ব্ল্যাক ওয়াটার’ লেখা সম্বলিত একটি হেলমেটও!

পলাতক শত্রু সেনারা কিছু সামরিক সরঞ্জাম, ইউনিফর্ম এবং একটি হেলমেট ফেলেই পলায়ন করে। ফেলে যাওয়া হেলমেটটিতে পরিষ্কারভাবেই লেখাছিল “ব্ল্যাক ওয়াটার”এর নাম এবং চিহ্ন।

আমেরিকা এবং তাদের পুতুল কাবুল প্রশাসন আফগান ও মুসলিম জাতির বিরুদ্ধে বর্বর গুপ্ত সন্ত্রাসী “ব্ল্যাক ওয়াটার” বাহিনীকে ভাড়া করে তাদের সাথে মুসলিমদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের চুক্তি করেছে। “ব্ল্যাক ওয়াটার” এটি এমন একটি বিশ্ব সন্ত্রাসী বাহিনী যারা কোন সাংস্কৃতিক মূল্যবোধ ও ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, সহানুভূতিশীল নয়; এরা বরং নিজেদের বিনোদিত করা ও আনন্দের জন্য বেসামরিক নাগরিক, নারী, শিশু এবং বয়স্কদের হত্যা করে থাকে। ‘ব্ল্যাক ওয়াটার’ বাহিনীর মাঝে মনুষ্যত্ব বলতে কিছু নেই, এদের নিকট মসজিদ, মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠানের কোনই পবিত্রতা নেই; বাড়ি, বাজার, ক্লিনিক ও বিদ্যালয়গুলোও এদের থেকে নিরাপদ নয়। আমাদের সামনে যার স্পষ্ট উদাহরণ  ইরাক যুদ্ধ।

অন্যদিকে, এমন সংবাদের পর বিশ্লেষকরা মনে করছেন, আফগানিস্তানে “ব্ল্যাক ওয়াটার”এর উপস্থিতি কাতারের রাজধানী দোহায় তালেবান ও মার্কিন বাহিনীর মাঝে চলা বৈঠকে বড় ধরণের প্রভাব ফেলবে, আলোচনা হয়তো আগের থেকে আরো অনেকটাই কঠিন হয়ে যাবে। কারণ মার্কিন বাহিনী এতদিন দাবি করে আসছিল যে, আফগানিস্তানে তালেবানদের বিরুদ্ধে “ব্ল্যাক ওয়াটার”কে ব্যবহার করা হচ্ছে না। কিন্তু বর্তমানে মার্কিনীদের এমন দাবি যুদ্ধের ময়দানেই মিথ্যা সাব্যস্ত করলো তালেবান।

ইতিমধ্যে তালেবানদের সম্মানিত দুই মুখপাত্রই “ব্ল্যাক ওয়াটার” বাহিনীর উপস্থিতি নিয়ে খুবই নিন্দা জানিয়েছেন এবং তাঁরা আফগান জনসাধারণকে উদ্দেশ্য করে বলেছেন যে, দালাল কাবুল প্রশাসনের জন্য কোন প্রকার ক্ষমার সুযোগ না রাখা এবং তাদেরকে একঘরে করে ফেলা আফগান জাতির উপর এখন সবচেয়ে বড় কর্তব্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাসমূহ এবং যুদ্ধাপরাধ ট্রাইবুনালও অবশ্যই বুঝে থাকবে যে, কুখ্যাত ব্ল্যাক ওয়াটার নরপশুদের হাতে যুদ্ধের দায়িত্ব অর্পণ করা, আমেরিকা ও কাবুল প্রশাসনের এক সুচিন্তিত কাজ। তারা জনসাধারণ হত্যাকাণ্ডের প্রতি সমর্থন ও গণহত্যার দরজা খুলে দেওয়ার জন্যই এমনটা করেছে।

 

 

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন