বগুড়ায় পাওনা টাকা চাওয়ায় নারীকে থানায় ডেকে এএসআইয়ের মারধর!

0
161

বগুড়ার ধুনটে পাওনা ৬০ হাজার টাকা চাওয়ায় কোহিনুর খাতুন (৪২) নামে এক ক্ষুদ্র নারী ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে আহত করেছে এএসআই শাহানুর রহমান।

চিকিৎসাধীন কোহিনুর খাতুন জানান, এএসআই শাহানুর কৌশলে তার কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা নিয়েছিলেন। দীর্ঘদিন টাকা ফেরত না দেয়ায় তাকে উকিল নোটিশ দিয়েছিলাম। নোটিশ পেয়ে শাহানুর টাকা দেয়ার কথা বলে শুক্রবার আমাকে থানায় নিয়ে মারধর করে।

জানা যায়, বগুড়া শহরের নাটাইপাড়া বৌবাজার এলাকায় জাবেদ আলীর মেয়ে স্বামী পরিত্যক্তা কোহিনুর খাতুন জজকোর্টের সামনে ভাত বিক্রি করেন। সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলার পোতাজিয়া গ্রামের হবিবর রহমানের ছেলে এএসআই শাহানুর রহমান ২০১০ সালে বগুড়া পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে কর্মরত ছিল।

ওই সময় কোহিনুরের সঙ্গে তার সখ্য গড়ে ওঠে। তিনি কোহিনুরের বাসায়ও যাতায়াত করত। এই সুবাধে শাহানুর তার কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা ধার নেয়। এরই মধ্যে ২০১৬ সালে এএসআই শাহানুর ধুনট থানায় বদলি হয়ে যায় এবং কোহিনুরের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়।

পাওনা টাকা না পেয়ে কোহিনুর কয়েকদিন আগে এএসআই শাহানুরকে উকিল নোটিশ দেয়। নোটিশ পেয়ে টাকা ফেরত দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় এবং কোহিনুরকে শুক্রবার ধুনট থানায় যেতে বলে। শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে কোহিনুর ধুনট থানায় যায়। টাকা চাইলে শাহানুর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে।

কোহিনুরের সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে কোহিনুরকে পিটিয়ে আহত করে। পরে কোহিনুর ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে গেলে সেখানেও তাকে মারধর করা হয়। খবর পেয়ে স্থানীয়রা এগিয়ে আসে এবং পরে সেখানেই তাকে ভর্তি করা হয়।

ধুনট থানার ওসি ইসমাইল হোসেন জানান, পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে ওই নারী শুক্রবার থানার পাশে মহিলা কলেজের সামনে এসেছিল। এক পর্যায়ে এএসআই শাহানুর তাকে চড়থাপ্পড় দেয়।

Facebook Comments

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন