ফেসবুকে হিন্দুদের অপকর্মের নিউজ শেয়ার করায় কওমী মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক আটক!

0
418

 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে হিন্দুদের বিভিন্ন অপকর্মের নিউজ ঈমানী দায়িত্ব মনে করে শেয়ার করাকে ধর্মীয় ও রাষ্ট্রবিরোধী উস্কানিমূলক গুজব ও বিভ্রান্তি ছড়ানো হিসেবে অখ্যায়িত করে মুফতি ছানাউল্লাহ চাঁদপুরী নামের মুন্সিগঞ্জের একটি কওমী মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষককে আটক করেছে র্যাব।

শনিবার (২৭ জুলাই) রাতে জেলার লৌহজং থেকে তাকে আটক করা হয়। তিনি সেখানকার দারুল উলুম খিদিরপাড়া মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক। তার বাড়ি চাঁদপুর জেলার মতলব থানার বাকরা এলাকায়।

র্যাব-১১ ব্যাটালিয়ান অধিনায়ক (সিও) লেফটেনেন্ট কর্নেল কাজী শামসের উদ্দিন রবিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে তার কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানায়।

কাজী শামসের আরো জানায়, মুফতি ছানাউল্লাহ চাঁদপুরী দীর্ঘদিন যাবত মোবাইল ফোন সহ বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভ্রান্তিমূলক বিভিন্ন ছবি ও তথ্য প্রচার সহ কথিত ধর্মীয় উস্কানিমূলক (!) স্ট্যাটাস দিয়ে গুজব রটিয়ে ধর্মীয় ও সামাজিক সম্প্রীতি নষ্টের চক্রান্ত করে আসছেন।

র‍্যাব আরো জানায়, সম্প্রতি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের মেড্ডা এলাকায় একটি মসজিদে আগুন লাগানোর ঘটনায় অমুসলিমরা জড়িত রয়েছে বলে গত ২৬ জুলাই তার ফেসবুক পেইজ (মুফতি ছানাউল্লাহ চাঁদপুরী) থেকে কথিত ধর্মীয় উস্কানিমূলক গুজব ছড়িয়ে সাম্প্রদায়িক সংঘাত সৃষ্টির অপচেষ্টা করেন।

মুফতি ছানাউল্লাহ চাঁদপুরীর কথিত সেই উস্কানিমূলক পোষ্ট যাকে র‍্যাব গুজব বলে আখ্যায়িত করেছেঃ

এছাড়াও গত ১৭ জুলাই ফেসবুকের একই পেইজ থেকে “ভারতে গরুর গোশত থাকার সন্দেহে মাদ্রাসায় আগুন দিয়েছে হিন্দু সন্ত্রাসীরা” শিরোনামে কথিত উস্কানিমূলক বক্তব্য পোস্ট দিয়ে গুজব রটিয়ে জনমনে আতংক সৃষ্টি ও আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটানোর চেষ্টা চালিয়েছেন। র্যাবের নজরদারিতে মুফতি ছানাউল্লাহ চাঁদপুরীর ধর্মীয় ও রাষ্ট্রবিরোধী এসব কর্মকাণ্ডের সুস্পষ্ট প্রমাণও নাকি পাওয়া গেছে। তার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে র্যাব জানিয়েছে।

তবে এ ব্যাপারে ইসলামিক দল মত নির্বিশেষে সমালোচনার ঝড় বইছে অনলাইনে। তবে অনেকে বলছেন, যে এটা র্যাব ১১ এর মধ্যে থাকা হিন্দু ও অমুসলিম অফিসারদের ধর্মীয় বিদ্বেষের কারনেই নিরীহ এই ইমাম কে আটক করা হয়েছে। (এর আগেও হিন্দু অফিসার কর্তৃক এমন বহু ঘটনার প্রমাণ পাওয়া গেছে; এবং হিন্দু মালাউনদের থেকে পবিত্র কোরান অবমাননাকরসহ মুসলিম ধর্মের মৌলিক ইবাদতগুলো নিয়ে বিভিন্ন সময়ে নোংরা ভাষায় কটুক্তি ও উস্কানিমূলক তথ্য প্রচার করলেও,  হিন্দু মালাউন অফিসার তো দূরের কথা! নামধারী মুসলামান অফিসারদের থেকেও এ ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা নিতে দেখা যায়নি।)

র্যাব ১১ এর দায়িত্বপূর্ণ এলাকাঃ লক্ষ্মীপুর, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চাঁদপুর, নারায়নগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ ও নরসিংদী।

র্যাব ১১এর হিন্দু অফিসার।

১/ ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার, ক্রাইম প্রিভেনশন কোম্পানী-২, এএসপি প্রনব কুমার   ফোনঃ +৮৮০১৭৭৭৭১১১২২

২/ কোম্পানী অধিনায়ক ক্রাইম প্রিভেনশন কোম্পানী-৩ এসপি নরেশ চাকমা

ফোনঃ +৮৮০১৭৭৭৭১১১৩৩

Facebook Comments

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন