ভারতে ৩ বছরের মুসলিম বাচ্চাকে গণধর্ষণের পর মাথা কেটে হত্যা করলো মুশরিক হিন্দুরা!

0
1639

গত শুক্রবার (২৬ জুলাই) ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যের জামশেদপুরের টাটানগর রেলস্টেশনে মায়ের পাশে ঘুমাচ্ছিল ৩ বছর বয়সী শিশু রাফিজা খাতুন। এরপর থেকেই নিখোঁজ ছিল সে। রেলস্টেশনের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, হাফ প্যান্ট ও টি-শার্ট পরিহিত এক যুবক রেলস্টেশনের প্ল্যাটফর্মের পাশে ঘুমিয়ে থাকা শিশুটিকে কোলে তুলে নিয়ে সেখান থেকে চলে যায়। শিশুটিকে নিয়ে যাওয়া যুবকের নাম রিঙ্কু সাহা। তার সাথে ছিল আরো ২ উগ্র মুশরিক হিন্দু।

কেবল তুলে নেয়নি, শিশুটিকে নিয়ে সারাদিন ধর্ষণের পর মাথা শিরশ্ছেদ করে লাশ ভাগাড়ে ফেলে দেয় তারা। রিঙ্কু এবং তার বন্ধু কৈলাস পুলিশকে বলেছে, তারা শিশুটিকে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর সারাদিন গণধর্ষণ করেছে। অতঃপর, অনবরত কান্না করায় শিশুটিকে গলা টিপে হত্যা করেছে।

মঙ্গলবার (৩০ জুলাই) জামশেদপুর রেলস্টেশন থেকে চার কিলোমিটার দূরে একটি ময়লার ভাগাড়ের কাছে প্ল্যাস্টিকের ব্যাগের মধ্যে শিশুটির মরদেহ পাওয়া যায়। কিন্তু শরীরের সঙ্গে ছিল না মাথা। শিশুটির মাথা এখনো উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।
উল্লেখ্য, কিছুদিন পূর্বে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির মহিলা মোর্চার এক উগ্র মুশরিক হিন্দু নেত্রী হিন্দু পুরুষদের  উদ্দেশ্যে বলেছিল, হিন্দুদের উচিত মুসলিমদের নারীদেরকে ১০ জন বা ২০জনের দল করে গণধর্ষণ করা এবং মানুষকে দেখানোর জন্য বাজারে মুসলিম নারীদের ঝুলিয়ে দেওয়া!  এ ঘোষণার পরপরই, একজন ইমাম সাহেবের বাচ্চা মেয়েকে গণধর্ষণ করা হয়। আর এখন ঘটল ঝাড়খণ্ডের এই ঘটনা ।

 

 

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন