চলে গেলেন উম্মাহর আরেক সিংহ বাংলার প্রবীণ মুজাহিদ শাইখ হাফেজ ইয়াহইয়া রহিমাহুল্লাহ

0
981
চলে গেলেন উম্মাহর আরেক সিংহ বাংলার প্রবীণ মুজাহিদ শাইখ হাফেজ ইয়াহইয়া রহিমাহুল্লাহ। শাইখ গত ৩রা আগস্ট শনিবার ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে ইন্তেকাল করেছেন। রহিমাহুল্লাহু রাহমাতান ওয়াসিআহ।
শাইখ রহিমাহুল্লাহ একজন আফগান ফেরত মুজাহিদ ছিলেন এবং আরাকানের জিহাদের সাথেও যুক্ত ছিলেন। তিনি ছিলেন মুজাহিদদের একজন কমান্ডার। হরকাতুল জিহাদের সাথে যুক্ত ছিলেন। তার পিতা ছিলেন একজন আলিম, মাওলানা আব্দুর রশিদ। তিনি সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার পর্বতপুর গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন।
সেই ২০১২ সাল থেকে কারাগারে ছিলেন তিনি । তাগুতদের দাবী- শনিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে তিনি হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে ফ্লোরে পড়ে যান। পরে দ্রুত তাকে কারা হাসাপাতালে পাঠানো হয়। অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় সেখান থেকে তাকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। ওই হাসপাতালেই তিনি মারা যান। কিন্তু হাসপাতালের এক ডাক্তার জানায়, উনাকে মৃত অবস্থায় হাসপাতালে আনা হয়েছিল। আল্লাহ-ই ভালো জানেন আসলে কী হয়েছিল। আল্লাহ শাইখকে জান্নাতের সবুজ পাখি হিসেবে কবুল করুন। আমিন ইয়া রাব্বাল আলামিন।
শায়েখের জানাযায় উপস্থিত প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন যে, তারা কখনো এতো সুদর্শন চেহারা আগে কখনো দেখেননি। আল্লাহু আকবার। জানা যায়, শায়েখ অল্প বয়সের একাধিক সন্তান রেখে গিয়েছেন।

শায়খের বিয়োগ বেদনায় শোকাহত একজন এভাবে নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেছেন, ‘‘আজ এক দিকে উম্মাহর সিংহরা কারারুদ্ধ হচ্ছেন, শহীদ হচ্ছেন। কারাগার থেকে উনাদের লাশ বের হচ্ছে। অপরদিকে আলিমদের একটি দল গণভবনে দাওয়াত খেতে যাচ্ছেন… ওহ! কী মর্মান্তিক মিল! একই দিনে একদল আলিম সরকারী দাওয়াত খেতে যাচ্ছেন গণভবনে… অপরদিকে সেই দিনে একই সরকারের কারাগার থেকে এমন আলিমদের লাশ বের হচ্ছে, যারা বলেন ইনিল হুকমু ইল্লা লিল্লাহ! বিধানদাতা একমাত্র আল্লাহ!
হে মহাপুরুষেরা! আপনারা কবরে শান্তিতে থাকুন! আপনাদের সন্তানেরা আপনাদের মিশন নিয়ে এগিয়ে যাবে ইনশা আল্লাহ! তাগুতের কাছ থেকে আপনাদের উপর বয়ে যাওয়া প্রতিটা জুলুমের বদলা নেওয়া হবে ইনশা আল্লাহ। ’’

উল্লেখ্য, এর আগে বাংলার তাগুতের কারাগারে ফাঁসি দিয়ে শহীদ করা হয়েছিল করেছিলেন উম্মাহর আরেক রাহবার শহীদ (ইনশাআল্লাহ) মুফতী আব্দুল হান্নান রহিমাহুল্লাহ।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন