কাশ্মীরে বাড়ানো হয়েছে হিন্দু সেনা, বড় ধরণের গণহত্যা চালানোর আশংকা!

2
1001
দখলদার হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসী সেনাদের কয়েক সদস্য।

দখলদার সন্ত্রাসবাদী হিন্দু মুশরিক সেনাদের হুমকির মুখে কাশ্মীরী মুসলিম জনতা। কাশ্মীরী মুসলিমদের উপর চালানো হতে পারে ইতিহাসের বর্বরতম গণহত্যা। এমন আশংকা প্রকাশ করছেন অনেকে।

সম্প্রতি কাশ্মীরে অতিরিক্ত ১০০০০ সেনা মোতায়েন করেছে সন্ত্রাসবাদী মুশরিক হিন্দু সরকার বিজেপি।  জানা যায়, ১০ হাজার সেনা মোতায়েনের এক সপ্তাহ পরপরই আরো ২৫ হাজার সেনা কাশ্মীরে পাঠানোর আদেশ করা হয়েছে। অবশ্য, ইতিমধ্যেই ৫ লক্ষেরও অধিক হিন্দুত্ববাদী দখলদার সেনা কাশ্মীরে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালাচ্ছে। এরকম পরিস্থিতিতে আতংক বিরাজ করছে জনমনে।

একদিকে, হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসী দখলদার বাহিনী কাশ্মীরে সেনা বৃদ্ধি করেছে অপরদিকে কাশ্মীর থেকে দর্শনার্থীদের সরে যাওয়ার নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে। আবার, কাশ্মীরজুড়ে বন্ধ করে দেওয়া ইন্টারনেট পরিসেবা। জারি করা হয়েছে কারফিউ।

ইতিমধ্যে, কাশ্মীরের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদেরও গৃহবন্দী করা শুরু করেছে হিন্দুত্ববাদী দখলদার ভারতীয় বাহিনী।

এরকম ভয়ংকর পরিস্থিতির মাঝে কাশ্মীরের রাজনৈতিক দল ‘হুররিয়াত’ এর চেয়ারম্যান সায়েদ আলী গিলানী সারাবিশ্বের মুসলিমদের প্রতি কাশ্মীরীদের সাহায্য করার আহ্বান জানিয়েছেন। গত শনিবারে তিনি তার এক টুইট বার্তায় দখলদার ভারতের সম্ভাব্য বড় ধরণের গণহত্যা থেকে কাশ্মীরীদের বাঁচাতে সারাবিশ্বের মুসলিমদের প্রতি আহ্বান জানান।

উল্লেখ্য, ৭০ বছর অধিক সময় ধরে কাশ্মীর দখল করে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে আসছে দখলদার ভারতীয় হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসী বাহিনী। তাদের সন্ত্রাসবাদের কারণে কাশ্মীরের জনজীবন বিপর্যস্ত, স্কুল-কলেজগুলোও রয়েছে বন্ধ!

 

2 মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন