চট্টগ্রাম থেকে ‘আল্লাহু আঁকবার’ তাকবীর তুলে দিয়ে রাম রাজত্ব প্রতিষ্ঠার স্লোগান!

0
990

ভারতে উগ্র হিন্দুদের নানাবিধ উগ্র স্লোগান রয়েছে, যেমন ‘মন্দির ওহি বানায়েঙ্গে’ (মন্দির ঐটাই বানাব, ‘রাম মন্দির’ মানে বাবরি মসজিদের জায়গায়)। আরেকটি স্লোগান হচ্ছে, ‘এক হি নাড়া, এক হি নাম, ক্ষয় ছিড়িরাম, ক্ষয় ছিড়িরাম’ [জয় শ্রী রাম জয় শ্রী রাম] । অর্থাৎ একটিই ‘নাড়া’ তথা স্লোগান থাকবে, আর তা হলো হিন্দুদের ‘ক্ষয় ছিড়িরাম’[জয় শ্রী রাম জয় শ্রী রাম]। ‘নারায়ে তাকবীর’ স্লোগানটি নিশ্চয়ই শুনেছেন। এর অর্থ তাকবীরের ধ্বনি দাও, তথা ‘আল্লাহু আকবার’ বল।

অর্থাৎ হিন্দুরা ‘এক হি নাড়া, এক হি নাম, ক্ষয় ছিড়িরাম, ক্ষয় ছিড়িরাম’ [জয় শ্রী রাম জয় শ্রী রাম]স্লোগানের মাধ্যমে তাকবীরের নাড়া তথা আল্লাহু আকবারকে মুছে ফেলারই ঘোষণা দেয়। সাথে সাথে মুসলমানদের জোর করে ‘ক্ষয় ছিড়িরাম’ [জয় শ্রী রাম জয় শ্রী রাম] নাড়া দেয়ানোর প্রত্যয় ব্যক্ত করে।

বিগত রথের মিছিলেই ঘোষণা এসেছিল, চট্টগ্রামের বুক থেকে ‘আল্লাহু আকবার’ তাকবীর হিন্দুরা তুলে দেবে। ‘সমঝদারের জন্য ইশারাই যথেষ্ট’ কথাটা অসাম্প্রদায়িক জাতির ক্ষেত্রে খাটে না। অসাম্প্রদায়িক জাতির সামনে ইশারা তো দূরে, প্রকাশ্যে তাদের খুবলে খাওয়ার ঘোষণা দিলেও তারা সেটা অনুধাবন করে না, সবচেয়ে বড় কথা করতেই চায় না।

এবার চট্টগ্রামে বিগত রথের মিছিলের সময় রাস্তায় বের হওয়া হিন্দুদের টি-শার্টে লেখা বক্তব্যটি খেয়াল করুন। হ্যাঁ তারা তাদের টি-শার্টে লিখেছে, ‘এক হি নাড়া, এক হি নাম, ক্ষয় ছিড়িরাম‘[জয় শ্রী রাম জয় শ্রী রাম] অর্থাৎ সোজা ভাষায়, হিন্দুরা চট্টগ্রামের বুক থেকে ‘আল্লাহু আকবার’ নাড়া তুলে দিতে চায়। কিন্তু চট্টগ্রাম তথা দেশের মুসলিম জনসাধারণ অসাম্প্রদায়িক হওয়ায় সেই মিছিলকে ধরে নিয়েছে হিন্দুদের গতানুগতিক ধর্মপালন হিসেবে, যেহেতু অসাম্প্রদায়িক জনগোষ্ঠী সমঝদার নয়। ইশারা তো দূরে, কিল-চড়-ঘুষি মারলেও তাদের কিছুই অনুভূত হয় না।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা তুলে দেয়ার পর ভারতীয়রা ফেসবুকে বারবার বলছে, চট্টগ্রামকে তারা বাংলাদেশ থেকে আলাদা করে দেবে। ভারতীয় চাকমারা তাদের দেশের বিভিন্ন জায়গায় সমাবেশ করে পার্বত্য চট্টগ্রামকে ভারতের অংশ বলে দাবি করেছে। চট্টগ্রামের হিন্দুরা যদি ঘোষণা দেয় যে, তারা চট্টগ্রাম থেকে আল্লাহু আকবার নাড়া তুলে দিতে চায়, এর অর্থ খুব সিম্পল। তারা চট্টগ্রামকে ভারতের অঙ্গরাজ্যে পরিণত করতে বদ্ধপরিকর।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন