ইয়েমেনে মুরতাদ ও খারেজীদের উপর আল-কায়দার হামলা, একটি এলাকা বিজয়, নিহত ৬ এরও অধিক আইএস সন্ত্রাসী।

0
192

আল-কায়দার অন্যতম আরব উপদ্বীপ শাখা “আনসারুশ শরিয়াহ্” এর জানবায মুজাহিদগণ ইয়েমেনী মুরতাদ ও শিয়া বাহিনীর বিরুদ্ধে তীব্র অভিযান পরিচালনা করছেন।

গত সোমবার আল-কায়দার জানবায মুজাহিদগণ আবয়ান প্রদেশের “মুদিয়া ও মাফরাকুল-কাউজ” এলাকায় অবস্থিত মুরতাদ বাহিনীর ঘাঁটিগুলোতে তীব্র অভিযান পরিচালনা করেছেন, যার ফলে অনেক সেনা হতাহতের শিকার হয়।

আল-কায়দা মুজাহিদগণ যখন মুরতাদ বাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ লিপ্ত ঠিক সেই মুহূর্তে আইএস নামক সন্ত্রাসী খারেজী দলের সদস্যরা কাইফা শহরের পিছন হতে মুজাহিদদের উপর হামলা করে বসে। আইএস সন্ত্রাসীরা তাদের অফিসিয়াল সংবাদ মাধ্যমে কয়েকজন মুজাহিদের শাহাদাতের ব্যাপারে খুব উল্লাসের সাথে সংবাদ প্রচার করে। কিন্তু আইএস সন্ত্রাসীদের এই আনন্দ বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি।
কেননা আইএস সন্ত্রাসীদের এমন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের উপযুক্ত জবাব দিতে পরে অভিযান শুরু করেন আল-কায়দার জানবায মুজাহিদগণ।

আল-কায়দার জানবায মুজাহিদগণ গত রবিবার হতে আইএস সন্ত্রাসীদের উপর পাল্টা আঘাত হানতে শুরু করেছেন।
এরই ধারাবাহিকতায় গত রবিবার কাইফা শহরে আইএস সন্ত্রাসীদের উপর তীব্র হামলা চালান মুজাহিদগণ, যার ফলে ২ আইএস সন্ত্রাসী নিহত এবং ১ সন্ত্রাসী আহত হয়।

একই দিনে কাইফা শহরের “জী-কিলাব ও ওয়াদী-আনা” এলাকার মধ্যবর্তী একটি সড়কে আইএস সন্ত্রাসীদের উপর বোমা হামলা চালান মুজাহিদগণ, যার ফলে কতক আইএস সন্ত্রাসী নিহত হয়।

এদিকে সোমবার “শায়বুল-হিদা” এলাকাতেও আইএস সন্ত্রাসীদের অবস্থানে B10 কামান ও 82 রকেট হামলা চালান মুজাহিদগণ, যাতে আইএস সন্ত্রাসীদের অনেক সদস্যই হতাহতের শিকার হয়।

এভাবে 14.5 ক্যালিবার মেশিনের সাহায্যে কাইফা শহরেও আইএস সন্ত্রাসীদের উপর হামলা চালাচ্ছেন মুজাহিদগণ।

এমনিভাবে কাইফা শহরে আইএস নিয়ন্ত্রিত “আল-মাসয়াদ” এলাকাতেও সন্ত্রাসী দলটির উপর তীব্র ও সফল অভিযান পরিচালনা করেন মুজাহিদগণ। অতঃপর মুজাহিদদের মার খেয়ে এলাকা ছেড়ে পলায়ন করে আইএস নামক সন্ত্রাসী দলটির সদস্যরা, তবে পলায়নের সময় তারা নিজেদের ৩ সাথীর মৃতদেহ রেখেই পলায়ন করে। পরে মুজাহিদগণ এলাকাটির উপর নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেন।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন