আবারো তুচ্ছ কারণে হিন্দুত্ববাদীদের হত্যাকাণ্ডের শিকার হলো এক মুসলিম যুবক !

0
304

গত ২৬শে আগস্ট সোমবার ভারতের রাজধানীতেই তুচ্ছ কারণে কথা কাটা-কাটির জের ধরে বেশ কয়েক সন্ত্রাসবাদী মুশরিক হিন্দু যুবক হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়ে ক্বারী মোহাম্মদ ওয়েস নামক ৩০ বছর বয়সী এক মুসলিম যুবকের উপর ।

ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির কোতোয়ালি থানা এলাকার পুরাতন দিল্লি রেলওয়ে স্টেশনের বাইরে কাশ্মীরি গেটে। কাজের সূত্রে ট্রেনে করে পুরাতন দিল্লি রেলওয়ে স্টেশনে এসে হিন্দুদের আক্রমণের শিকার হয়ে মৃত্যবরণ করেন ঐ মুসলিম যুবক । মৃত ক্বারী ওয়েস উত্তর প্রদেশের শামলির বাসিন্দা ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য অনুযায়ী, স্টেশনের বাইরে হেডফোন কেনা নিয়ে সামান্য কথা কাটাকাটি হওয়ায় তাকে ঘিরে ধরে বেশ কয়েক হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসী মুশরিক যুবক। অতঃপর তাকে নির্মমভাবে প্রহার করে সন্ত্রাসবাদী হিন্দুরা। জনবহুল এলাকা হওয়ার কারণে, এই অমানবিক নির্যাতনের এক পর্যায়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছে যায়। পরবর্তীতে ক্বারী ওয়েস-কে দিল্লির অরুণা আসেফ আলি হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

জানা যায়, নিহতের পরিবারের সদস্যরা এসে হত্যার মামলা করতে চাইলে উত্তর দিল্লি অতিরিক্ত ডিসিপি হরেন্দ্র সিংহ মামলাটি নাকচ করে দেয়। হরেন্দ্র সিংহ জানায়, “লাশ পোস্টমর্টেমের জন্য প্রেরণ করা হয়েছে রিপোর্ট আসার পরেই মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। বাইরে থেকে শরীরে আঘাতের কোনও লক্ষণ দেখা যায়নি!’’

অথচ হত্যাকাণ্ডের সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা সাধারণ জনতার মোবাইলে ধারণকৃত ভিডিও ফুটেজের মাধ্যমে এটা স্পষ্ট যে, নিহত মোহাম্মদ ওয়েস-কে হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসী মুশরিক যুবকেরা প্রকাশ্যে জনসম্মুখে হত্যা করেছে।

অবশেষে, নিহতের পরিবার হত্যা-মামলা দায়ের করতে না পারায়, আইপিসির ৩০৪ ধারায় একটি মামলা দায়ের করে।

ময়না তদন্তের পর ওয়েসের মৃতদেহ তার স্বজনদের নিকট ফেরত দেয় দিল্লি পুলিশ। হিন্দুত্ববাদী পুলিশ নিহতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন না পেলেও, তার শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন দৃষ্টিগোচর হয় সাধারণ জনতার। বিশেষ করে তার মাথার পেছনের অংশে শক্ত ধাতবের আঘাতের চিহ্ন চোখে পড়ার মত।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন