কুন্দুজের পর এবার বাগলানের প্রাদেশিক রাজধানীতে তালেবানদের অভিযান শুরু, অনেক এলাকা ও ঘাঁটি বিজয়সহ বহু সেনা হতাহত!

0
307

গত ৩১ আগস্ট ইমারতে ইসলামিয়ার জানবায মুজাহিদগণ কুন্দুজের প্রাদেশিক রাজধানীতে সফল অভিযান পরিচালনা করেন, যার ক্ষত কাটিয়ে উঠার আগেই আজ ১লা সেপ্টেম্বর তালেবান মুজাহিদগণ অভিযান শুরু করেছেন বাগলানের প্রাদেশিক রাজধানীতে।

আল-ফাতাহ অপারেশণের ধারাবাহিকতায় ইমরাতে ইসলামিয়া আফগানিস্তানের জানবায তালেবান মুজাহিদগ আজ বাগলান প্রদেশের রাজধানী “বেলখামারী” বিজয়ের লক্ষ্য সকাল হতে তীব্র অভিযান শুরু করেছেন।

কুন্দুজের মতই মুজাহিদগণ প্রথমে প্রাদেশিক রাজধানীটি চতুর্পাশ হতে অবরুদ্ধ করে ফেলেন, অতঃপর আফগান মুরতাদ বাহিনীর উপর বৃহত আকারে চতুর্মূখী হামলা চালাতে শুরু করেন তালেবান মুজাহিদগণ, যা এখনো অব্যাহত রয়েছে।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তালেবান মুজাহিদগণ “বেলখামরী” শহরের উপকণ্ঠের সমস্ত সুরক্ষা চৌকি এবং বিপুল সংখ্যক সামরিক পোস্ট নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নিয়েছেন।

এদিকে বেলখামরীর প্রধান সামরিক প্রশিক্ষক “রউফ আন্ডিরবী”কে সহ তার অনেক সেনাকে হত্যা করেছেন মুজাহিদগণ, যাদের লাশ শহরের ভিতর ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে আছে।

অপরদিকে শহরের দ্বিতীয় বৃহত্তম সামরিক ঘাঁটি “আকরাম-বাতুর”ও দখলে নিয়েছেন তালেবান মুজাহিদগণ, এখানে এখনো ৩২ আফগান সেনার মৃতদেহ পড়ে রয়েছে, তাদের সাথীরা নিজেদের প্রাণ নিয়ে পলায়ন করায় লাশ নিতে পারেনি।

এভাবেই শহরের তৃতীয় সুরক্ষা অঞ্চল “কালাত জামান খীল” এবং তার পার্শবর্তি “ব্যান্ড বারাক” (যাকে নগরীর মাথা বলা হয়) অঞ্চলও বিজয় করে নিয়েছেন তালেবান মুজাহিদগণ। সবখানেই এখন লাশের স্তুপ পড়ে রয়েছে।

এই মহুর্তে তালেবান মুজাহিদগণ গভর্ণরের প্রধান কার্যলয় ও উক্ত এলাকা অবরুদ্ধ করে তীব্র হামলা চালাচ্ছেন, এদিকে রাজ্যের প্রধান সদর দফতরও তালেবান মুজাহিদগণ ঘিরে রেখেছেন।

পরবর্তি অবস্থা জানতে চোখ রাখুন আল-ফিরদাউস নিউজে।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন