বিশ্ব দেখলো তাবরেজকে বেঁধে পিটিয়ে হত্যা করছে উগ্র হিন্দুরা, কিন্তু মালাউন আদালত বলছে খুনের সাথে কেউ যুক্ত নয়!

3
277

ভারতীয় মালাউন উগ্র হিন্দুদের শিকার ঝারখন্ডের আলোচিত তরুণ তাবরেজ আনসারির (২৪) হত্যা মামলায় অভিযুক্ত ১১ আসামির সবকটাকে খুনের অভিযোগ থেকে মুক্তি দিয়েছে মালাউনদের সন্ত্রাসী পুলিশ ও দেশটির কুফরী আদালত। মালাউনদের তৈরিকৃত ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বলা হয়েছে, গণপিটুনি নয়, হার্ট অ্যাটাকে তাবরেজের মৃত্যু ঘটেছে। অথচ বিশ্ব দেখেছে অন্য চিত্র, হার্ট অ্যাটাকে তাবরেজের মৃত্যু হয়নি বরং ভারতীয় উগ্র হিন্দু সন্ত্রাসী কর্তৃক তিনি খুন হয়েছেন।

ঝাড়খন্ডের মালাউন পুলিশপ্রধান “কার্তিক এস” বলে, ‘মেডিক্যাল রিপোর্টে খুনের স্বপক্ষে কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি। তাই আমরা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে খুন তো দূরে থাক অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলাও চালাতে পারবো না।’

অন্যদিকে তাবরেজের পরিবারের অভিযোগ, পিটিয়ে তার মাথা থেঁতলে দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ভারতীয় মালাউন পুলিশ কর্মকর্তাদের দাবি, তাকে হত্যা করা হয়নি বরং সে হার্ট অ্যাটাকে মারাগেছে।

উল্লেখ্য, গত ১৮ জুন তাবরেজ আনসারিকে মোটরসাইকেল চুরির মিথ্যা ও বানোওয়াট এক নাটকিয় অভিযোগে ভারতের ঝারখন্ডের সরাইকেলা খারসাওন এলাকায় উগ্র হিন্দু সন্ত্রাসীরা
কয়েকঘণ্টা ধরে তাকে মারধর করে তার মাথা ও শরীরের অনেক অংশই থেতলে দেওয়া হয়। মারধরের সেই ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হলে দেশ ও দেশের বাইরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

ভিডিওতে দেখা যায়, তাবরেজকে বেঁধে রেখে মেরে রক্তাক্ত করা হচ্ছে এবং উপস্থিত একদল উগ্র হিন্দুত্ববাদী ভারতীয় মালাউন সন্ত্রাসীরা তাকে ‘জয় শ্রী রাম’ বলতে বাধ্য করছে। এরপর ২২ জুন হাসপাতালে মারা যান তাবরেজ আনসারি।

এভাবেই ভারতীয় মালাউন বাহিনী ও তাদের কুফরী আদালত মুসলিমদের ক্ষেত্রে প্রহসনের বিচার করে যাচ্ছে, তা শুধু ভারতীয় মুসলিমদের ক্ষেত্রেই নয় বরং সীমান্তের এপারে প্রতিনিয়ত বিএসএফ এর হাতে খুন হওয়া বাংলাদেশীদের ক্ষেত্রও, যেমনটি আমরা দেখেছি ফেলানী হত্যাসহ সকল বাংলাদেশীদের হত্যার বিচারের ক্ষেত্রে।

3 মন্তব্যসমূহ

  1. আহ আমি যদি নিজের হাতে এদের থেকে প্রতিশোধ নিতে পারতাম তাহলে কতই না ভালো হত ।

    আহ কী দূর্ভাগ্য আমার ……!

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন