ভারতীয় সীমান্তসন্ত্রাসী বিএসএফের গুলিতে নিহত যুবকের লাশ ফিরে পেতে মায়ের আকুতি!

0
239

 

নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার পূর্ব ছাতনাই সীমান্তে উগ্র হিন্দুত্ববাদি  ভারতীয় সীমান্তসন্ত্রাসী বিএসএফের গুলিতে নিহত বাংলাদেশী যুবকের লাশ ফিরে পেতে বাংলাদেশের (বিজিবি) সহায়তা চেয়ে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

গত বুধবার বিকেলে ডিমলা উপজেলার সীমান্তবর্তী কালীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এক মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। নিহত বাবুল মিয়া নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলার ঝাড়সিংহেশ্বর গ্রামের নুর মুহম্মদের ছেলে।

নিহতের পরিবারের দাবি, চলতি মাসের ৩ তারিখ মঙ্গলবার ভোর রাতে ভারতীয় গরু আনার জন্য বাংলাদেশের অভ্যন্তরে তিস্তা নদীর চরে যায়। এ সময় ভুলক্রমে সীমান্তের ওপারে প্রবেশ করলে ভারতের উড়াল বিওপি ক্যাম্পের উগ্র হিন্দুত্ববাদি বিএসএফ গুলি চালায়। এতে ঘটনাস্থলেই বাবুল মিয়া নিহত হয়। গুলির ঘটনার পরপরই বিএসএফ বাবুল মিয়ার লাশ তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে যায় এবং পরবর্তীতে কোচবিহার জেলার কুচলিবাড়ি থানা পুলিশ নিহতের লাশের ময়না তদন্ত শেষে হাসপাতালের হিমগারে রাখে।

মানববন্ধনে নিহতের পরিবারসহ ওই এলাকার প্রায় ৫ শতাধিক নারী-পুরুষ অংশ নেয়। মানববন্ধনে অংশ নিয়ে নিহতের মা আছিয়া খাতুন কেদে কেঁদে বলেন, ‘বিএসএফ ছেলেকে গুলি করে মারছে বলে ছেলের লাশটা-কি আমরা পাবো না। আমরা আমাদের ছেলের লাশ ছাড়া আর কিছু চাই না। আমাদেরকে লাশ এনে দেয়ার জন্য বিজিবির সহযোগিতা কামনা করছি।’

এলাকার সচেতন ব্যক্তিদের বক্তব্য, ‘৫১ বিজিবির তত্ত্বাবধায়নে ডিমলা উপজেলার পূর্ব ছাতনাই সীমান্তে ভারতীয় গরুর একটি বিট খাটাল রয়েছে। প্রতিদিন শত শত ভারতীয় গরু কি নিজে থেকে বিট খাটালে এসে ঢুকে নাকি মানুষ নিয়ে আসে? ওপারের গরু ব্যবসায়ীরা এ সব গরু এপারের গরু ব্যবসায়ীদের হাতে তুলে না দিলে এরা গরু পাবে কোথায়? আর এ গরু আনতে গিয়ে ভারতীয়দের গুলি না করে শুধু বাংলাদেশীকে গুলি করে হত্যা করছে বিএসএফ।’

সূত্র: নিউজ পোর্টাল সুবহে সাদিক

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন