ভারতে মালাউন শাসকদের কবলে মাত্র ৬ শতাংশ শিশুরা পর্যাপ্ত খাবার পায়!

0
196

প্রকাশিত হল এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। যা কপালে চোখ ওঠার জন্য যথেষ্ট।

এই সময় ইন্ডিয়ান টাইমসের বরাতে জানা যায়,  দেশের প্রথম কমপ্রিহেনসিভ ন্যাশনাল নিউট্রিশনাল সার্ভে সমীক্ষা করে জানিয়ে দিল, সারা দেশে দু’বছরের কম বয়সী বাচ্চাদের মধ্যে মাত্র ৬.৪ শতাংশ শিশু ন্যুনতম পর্যাপ্ত খাদ্য পেয়ে থাকে। তাহলে বাকি এত বিপুল সংখ্যক শিশু?‌ তারা পায় না। তাই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, সবকা সাথ সবকা বিকাশ কী হল?‌ বিভিন্ন রাজ্যের করুণ কাহিনীর কথা উঠেছে এই সমীক্ষায়।

রিপোর্ট জানাচ্ছে, একেক রাজ্যে এই সংখ্যা একেক রকমের। অন্ধ্রপ্রদেশে মাত্র ১.৩ শতাংশ শিশু সুষম আহার পায়। সিকিমে সংখ্যাটা একটু বেশি, প্রায় ৩৫.৯ শতাংশ। আর মহারাষ্ট্রে ২.২ শতাংশ, গুজরাট, তেলঙ্গানা এবং কর্নাটক ৩.৬ শতাংশ এবং তামিলনাড়ু ৪.২ শতাংশ। ফলে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির গড় গুজরাটে মাত্র ৩.‌৬ শতাংশ দু’বছরের কম বয়সী শিশু সুষম আহার পায়। এটা সত্যিই চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট। নিজের গড়েই যদি এই হাল হয়, তাহলে গোটা দেশের হাল বোঝা যাচ্ছে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।
তবে সমীক্ষা রিপোর্ট থেকে জানা গিয়েছে, ওড়িশা, ছত্তিশগড়, ঝাড়খণ্ড এবং অসম জাতীয় গড় পুষ্টির নিরিখে একেবারে সামনের সারিতেই রয়েছে। সিকিমের পর কেরালা রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে–৩২.৬ শতাংশ। হাটে হাঁড়ি ভেঙে দিয়েছে এই

জাতীয় স্বাস্থ্য সমীক্ষা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পক্ষ থেকে প্রকাশিত সমীক্ষা রিপোর্টে দেখা গিয়েছে, পাঁচ বছরের কম বয়সী বাচ্চাদের মধ্যে ৩৫ শতাংশের উচ্চতা তাদের বয়সের তুলনায় কম। আবার এদের মধ্যে ১৭ শতাংশের উচ্চতা অনুযায়ী ওজন কম। এমনকী ৩৩ শতাংশের বয়স অনুযায়ী ওজন কম। ৬ মাস থেকে ৫৯ মাস বয়সী বাচ্চাদের মধ্যে ১১ শতাংশ অপুষ্টিতে ভুগছে। তাহলে কেন্দ্রীয় সরকারের এই বড় বড় প্রকল্প যা প্রচার করা হয়, সেগুলি কী ভাঁওতা?‌ উত্তর দিতে হবে কেন্দ্রীয় সরকারকেই।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন