লাগমান প্রদেশে মাদকাসক্তদের পুনর্বাসন কেন্দ্র চালু করল ইসলামিক ইমারত আফগানিস্তান

2
403

ইমারতে ইসলামিয়্যাহ আফগানিস্তানের বিশেষ শাখা ‘প্রচার ও গাইডেন্স’ সম্প্রতি মাদকাসক্তদের জন্য লাগমান প্রদেশে একটি পুনর্বাসন কেন্দ্র চালু করেছেন। যারা সমাজকে কুফলের দিকে পরিচালিত করে, নিজেরা সমাজের বোঝায় পরিণত হয়েছে, তাদের জন্যই এ কর্মসূচী।

মাদকমুক্ত সমাজ গড়ার জন্য এই পদক্ষেপটি লাগামানে অবস্থিত ইসলামিক ইমারতের সামরিক ও বেসামরিক শাখার কর্মকর্তা, আলেম ও বেসামরিক নাগরিকদের অনুরোধে করা হয়েছে। আর উক্ত পদক্ষেপটিকে একটি সমৃদ্ধ ও ঐক্যবদ্ধ সমাজ গড়ার দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার পদক্ষেপ হিসাবে দেখা হচ্ছে।

এখানে  উল্লেখ করার মতো  আরেকটি বিষয় হল যে, যুক্তরাষ্ট্রের আগ্রাসনের পর থেকে ৩৫০০০০০(সাড়ে তিন মিলিয়ন) মানুষ মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছে যা আফগান সম্প্রদায়ের জন্য একটি বড় বিপর্যয় এবং সামাজিক সমস্যা হিসাবে দেখা দিয়েছে।

কর্মসূচিটির মধ্যে ওযু, গোসল, নিজে নামাজ পড়া ও মুসল্লিদের নামাজের ইমামতির প্রশিক্ষক, সংশোধনমূলক প্রশিক্ষণ  এবং বিনোদনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

আসক্তিগুলি কাটিয়ে উঠতে নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি যথাসময়ে গ্রহণ করা হবে ইনশা আল্লাহ।

১. সালাতুল ফজরের পর ইশরাক (সুর্যোদয়ের পরের সলাত) পর্যন্ত কুরআনের মৌলিক শিক্ষা।
২. পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা এবং ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখা,
৩. সালাতুল ইশরাক (সূর্যোদয় এর পরের সলাত) সম্পাদন করা।
৪. সকালের খাবার পরিবেশন করা।
৫. সকালের খাবারের পর এক ঘন্টা দীর্ঘ খেলাধুলা এবং বিনোদনমূলক কার্যক্রম,
৬. ফরজ (অবশ্য করনীয়) বিষয়ে শেখা,
৭. ওয়াজিব (অত্যাবশ্যক কাজ) বিষয়ে শেখা,
৮. সুন্নাহ (নবী সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কাজের পদ্ধতি) শেখা,
৯. নামাজে মোস্তাহাব বিষয়গুলো শেখা,
১০. এরপর অবসর সময় এর জন্য এক ঘন্টার একটি বিরতি,
১১. মধ্যাহ্নভোজের আগে কাইলুলাহ (মধ্যাহ্নে অল্পসময়ে ঘুম),
১২. দুপুরের খাবারের পরে সালাতুয যোহর (দুপুরের নামাজ),
১৩. হাদিসের পাঠ (হাদীস ও সুন্নাহর সংক্ষিপ্ত পড়ালেখা),
১৪. সালাতুল আছর (আসরের নামায) অবধি নবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর প্রকৃত শিক্ষার পড়াশুনা,
১৫. নফল নামাজ পড়ে অবসরকালীন কার্যক্রম, সালাতুল মাগরিব (মাগরিবের নামায) এর আগ পর্যন্ত,
১৬. সালাতুল ইশার (এশার নামায) এর আগে রাতের খাবার খাওয়া এবং বিছানায় শুয়ে যাওয়া।

আশা করি, কর্মসূচির পর্যবেক্ষণকালীন সময় সাফল্যের সাথে শেষ হবে এবং দেশের অন্যান্য প্রদেশগুলিতেও এটি পরিচালিত হবে ইনশা আল্লাহ।

2 মন্তব্যসমূহ

  1. মাদকাসক্তদের হদের বিষয়টা কি কার্যকর করে নির্বাসন করা হবে নাকি হদ ছাড়াই ?? লেখাতে হদের বিষয়টা আসেনি।আসা দরকার ছিল মনে হয়।যাতে সুযোগসন্ধানীরা এই ব্যবস্থাপনায় আঙ্গুল উঠাতে না পারে??

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন