পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক নিয়োগে সন্ত্রাসী ছাত্রলীগ নেতার তুলকালাম কাণ্ড!

0
445

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পাবিপ্রবি) শিক্ষক নিয়োগে লিখিত পরীক্ষায় (রিটেন) অকৃতকার্য হয়ে ক্যাম্পাসে তুলকালাম কাণ্ড ঘটায় মনিরুল ইসলাম নামক এক প্রার্থী।

এই সন্ত্রাসী সদস্য কুমিল্লা জেলার সদর দক্ষিণ সদর উপজেলার কৃঞ্চনগর গ্রামের নুরুল হকের ছেলে এবং কেন্দ্রীয় সন্ত্রাসী ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক।

লিখিত পরীক্ষায় অকৃতকার্য হওয়ায় তার মৌখিক পরীক্ষা না নেয়ায় সে উপাচার্য প্রফেসর ড. এম রোস্তম আলীসহ সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের অকথ্য ভাষায় গালাগালি করে।

গত বৃহস্পতিবার বিকালে পাবিপ্রবি ক্যাম্পাসে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পাবনা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

পাবিপ্রবি কর্তৃপক্ষ জানান, সাড়ে ৩ বছর আগে প্রফেসর ড. আলী নকীব চৌধুরী উপাচার্য থাকাকালে ইতিহাস ও বাংলাদেশ স্টাডি বিভাগের শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। সেই পদে নিয়োগ পরীক্ষা ছিল বৃহস্পতিবার।

এতে ২৮ জন পরীক্ষা দেন এবং লিখিত পরীক্ষায় কৃতকার্য হন ৬ জন। একই দিন কৃতকার্য এই ৬ জনের মৌখিক পরীক্ষা নেয়া হয়। কিন্তু লিখিত পরীক্ষায় অকৃতকার্য মনিরুল ইসলাম বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী মন্ত্রী-এমপির সুপারিশ নিয়ে তাকে মৌখিক পরীক্ষা নেয়ার জন্য চাপ দেয়। কিন্তু কর্তৃপক্ষ তার মৌখিক পরীক্ষা না নেয়ায় এই সন্ত্রাসী তুলকালাম কাণ্ড ঘটায়।

দৈনিক যুগান্তের বরাতে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে জনসংযোগ দফতরের উপপরিচালক ফারুক হোসেন চৌধুরী জানান, বিকাল ৪টার দিকে মনিরুল ইসলাম প্রশাসন ভবনের সামনে এসে পরীক্ষার বিশেষজ্ঞ সদস্যসহ উপাচার্য, উপ-উপাচার্যকে আকস্মিকভাবে গালিগালাজ করে। পূর্বপরিকল্পিতভাবে সেই পরীক্ষার্থী পুরো নিয়োগ পরীক্ষাকে বিতর্কিত করার জন্য উপাচার্যকে নিয়ে মানহানিকর মন্তব্য করে এবং বিষয়টি গোপনে মোবাইলে ধারণ করে। পরবর্তীতে ভাইস-চ্যান্সেলর সম্পর্কে মানহানিকর, বিভ্রান্তমূলক মন্তব্য সম্বলিত পূর্বপরিকল্পিত ধারণকৃত অডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপলোড করে।

তিনি জানান, বিশ্ববিদ্যালয়বিরোধী একটি কুচক্রীমহল বিশ্ববিদ্যালয় তথা ভাইস-চ্যান্সেলরের সুনামহানির উদ্দেশে এ ধরনের সংবাদ (অডিও)আপলোড করেছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এ কর্মকাণ্ডের তীব্র প্রতিবাদ, নিন্দা ও ধিক্কার জানাচ্ছে।

পাবিপ্রবির উপাচার্য প্রফেসর ড. এম রোস্তম আলী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পূর্ব পরিকল্পিতভাবে ওই পরীক্ষার্থী অশোভনীয় কাণ্ড ঘটায়।

তিনি জানান, সে বেশ কয়েকজন প্রভাবশালীকে দিয়ে তাকে চাপ দেয়। কিন্ত তিনি কোনো অনৈতিক চাপের কাছে নতি স্বীকার করবেন না।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন