বিশ্বে সন্ত্রাসী হামলার শিকার ৮০ ভাগ মুসলিমরা

0
126

এত দিন মুসলিমদের সন্ত্রাসবাদীর তকমা দিতে যথাসাধ্য চেষ্টা চালিয়ে গেছে পশ্চিমা দেশগুলো। ৯/১১ পর থেকে ইসলামকে সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে জুড়ে দেয়া অপপ্রচেষ্টা চালানো হয়েছে। নিরীহ মুসলিমদের প্রকাশ্যে সন্ত্রাসবাদী বলে আক্রমণ করা হয়েছে।

কিন্তু এবার সন্ত্রাসবাদ নিয়ে এক চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট নিয়ে এল ফ্রান্সের একটি মানবাধিকার সংস্থা ভিক্টিমস দ্য টেররিজমের প্রধান সেন্ট মার্ক। তারা জানিয়েছে, বিশ্বব্যাপী মুসলিম সন্ত্রাসবাদীরা বেশি হামলা চালায় এমন বহুল প্রচারিত কথা পুরোপুরি মিথ্যা।সারা বিশ্বে হওয়া সন্ত্রাসবাদী হামলায় এখন পর্যন্ত ৮০ শতাংশ মুসলিম আক্রান্ত হয়েছে। অথচ পশ্চিমা দেশগুলোর দাবি সন্ত্রাসীরা সকলেই মুসলিম এবং তাদের শিকার হচ্ছে অমসলিমরা।

সম্প্রতি ফ্রান্সে সন্ত্রাসবাদদের বিরোধীতায় একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন হচ্ছে। বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা এই সম্মেলনে যোগ দিয়েছেন। সম্মেলনে আমন্ত্রিত ছিলেন সন্ত্রাসবাদের শিকার বেশ কয়েকজন মুসলিম ব্যক্তি।৮০টি দেশ থেকে সাড়ে চার শ’ জন আক্রান্ত এই সম্মেলনে যোগ দেন।

সেখান সংস্থার পক্ষে থেকে বক্তা সেন্ট মার্ক বলেন, সন্ত্রাসীরা চায় আমরা পরস্পরের বিরুদ্ধে লড়াই করি। কিন্তু ধ্বংস হয়ে যাওয়া সম্পর্কের সেতুবন্ধনটিকে আমাদের পুনঃনির্মাণ করার প্রয়োজন রয়েছে।
এই সম্মেলনে চীনের জিনজিয়াং-এ ১০ লাখের বেশি উইঘুর মুসলিমকে আটক শিবিরে রেখে নির্যাতন চালানো বিষয়টির তীব্র নিন্দা জানানো হয়। সেখানে বলা হয়, এই ব্যাপারে যথেষ্ট নির্ভরযোগ্য প্রমাণ রয়েছে। চীনা কর্মকর্তাদের এই নিয়ে তিরস্কার করা হয়েছে। পাশাপাশি ইউরো ও আমেরিকার এই বিষয়ে হাতগুটিয়ে থাকাকেও কটাক্ষ করা হয়।

সেখানে বলা বয়, নিরীহ মুসলিমদের ওপর সন্দেহের চোখে দেখে দেশে দেশে নিপীড়ন চলছে। ফ্রান্সে সবচেয়ে বেশি মুসলিম বসবাস করে। দেশিটিতে ৫০ লক্ষের বেশি মুসলিম সংখ্যালঘু বসবাস করে। ২০০৬ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত ইউরোপের ঘটা সন্ত্রাসী হামলার ৯৯ শতাংশ শিকার ছিল মুসলিমরা। সর্বশেষ ফ্রান্সের একটি মুসলিমদের জমায়েতেও বর্ণবিরোধী এক উগ্রপন্থীর গাড়ি তুলে দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

গত বছর সন্ত্রাসবাদী হামলায় ১৫,৯৫২জন প্রাণ হারিয়েছে। ২০১৮ সালে আফগানিস্তানে ৭,৩৭৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। নাইজেরিয়া ২০,৪০ ও ইরাকে ১,০৫৪জন নিহত হয়েছে। সিরিয়া ও সোমালিয়ায় সবচেয়ে বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বাকি অন্যান্য দেশেও ৪,১৭১জনের বেশি প্রাণ হারিয়েছে। ২০০২ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত মধ্য প্রাচ্য, দক্ষিণ এশিয়া, আফ্রিকার সাহারা অঞ্চলের অন্তগর্ত এলাকায় সন্ত্রাসবাদের শিকার হয়েছে ৯৩ শতাংশ মানুষ।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন