কাশ্মীরে হিন্দুত্ববাদীদের বসতি গড়তে ‘ইসরাইল মডেল’ প্রস্তাব

0
248

কাশ্মীরে ‘ইসরাইল মডেল’ প্রয়োগ করার কথা বলেছে ভারতের সন্ত্রাসী কনসাল জেলারেল। তার এই মন্তব্য কাশ্মীরে ভারতের সাম্প্রতিক সন্ত্রাসী পদক্ষেপগুলোর প্রকৃত সত্য উন্মোচন করে দিচ্ছে।

ভারতের মিত্ররাষ্ট্র যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ভারতের কনসাল জেনারেল সম্প্রতি একটি অনুষ্ঠানে বলেছে যে, ইসরাইল যেভাবে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে বসতি স্থাপন করছে, ভারতের উচিত হবে সেভাবে কাশ্মীরে হিন্দু বসতি স্থাপন করানো।

গত সপ্তাহান্তে কাশ্মীরী হিন্দুস (পণ্ডিত নামেও পরিচিত) আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে কনসাল জেনারেল সন্দীপ চক্রবর্তী বলেছে, মধ্যপ্রাচ্যে এমনটা ঘটেছে। ইসরাইলি জনগণ যদি তা পারে, তবে আমাদেরও তা পারা উচিত।

গত আগস্টে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার পর থেকেই এই ভূখণ্ড নিয়ে অনেক খবর প্রকাশিত হচ্ছে। ভারত সরকার মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ রাজ্যটির বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে একে দুটি অংশ ভাগ করেছে এবং দুটি অংশকেই কেন্দ্র শাসিত এলাকা বলে ঘোষণা করেছে।

ভারত সেখানে মালাউন সন্ত্রাসী সদস্যদের উপস্থিতিও ব্যাপকভাবে বাড়িয়েছে। এছাড়া সেখানে কারফিউ জারি করা হয়েছে, যোগাযোগব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়েছে।

এদিকে কাশ্মীরভিত্তিক সাংবাদিক হিলাল মির টিআরটি ওয়ার্ল্ডকে বলেন, কনসান জেনারেলের মন্তব্য কেবল কাশ্মীরী মুসলিমদের ওই আশঙ্কাই সত্য বলে প্রতিপন্ন করছে যে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা বাতিলের আসল উদ্দেশ্য হলো জনসংখ্যার পরিবর্তন করা।

ভারতের কট্টরপন্থী হিন্দু জাতীয়তাবাদী বিজেপি সরকারের ইচ্ছা হলো মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ রাজ্যে দুই থেকে তিন লাখ কাশ্মীরী পণ্ডিতকে আবার বসতি স্থাপনের ব্যবস্থা করা। তারা কাশ্মীরী বিদ্রোহের কারণে কয়েক দশক আগে পালিয়ে গিয়েছিল।

চলতি বছরের প্রথম দিকে বিজেপির জাতীয় সাধারণ সম্পাদক (কাশ্মীরের দায়িত্বপ্রাপ্ত) রাম মাধব বলেছিল, ভারত সরকারের ইচ্ছা হলো বিরোধপূর্ণ অঞ্চলটিতে হিন্দু বসতি স্থাপনের ব্যবস্থা করা।

ম্যাসাচুসেটস কলেজ অব লিবারেল আটর্সের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ জুনায়েদের মতে, ভারতীয় কর্মকর্তাদের নতুন পাগলামিতে একটি উপনিবেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার এজেন্ডাই ফুটে ওঠেছে। তারা চাচ্ছে কাশ্মীরের জনসংখ্যায় পরিবর্তন আনতে।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন