ঝাঁজ কমেনি পেঁয়াজে শীতের সবজিও চড়া এখন

0
119

সংকট কাটাতে তড়িঘড়ি আমদানি করা হলেও বাজারে পেঁয়াজের ঝাঁজ কমেনি। মানভেদে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ খুচরায় বিক্রি হচ্ছে ২১৫-২২০ টাকায়।

কোনো কোনো দোকানে অবশ্য ২৩০ থেকে ২৪০ টাকায় বিক্রি হতেও দেখা গেছে। আর আমদানি করা পেঁয়াজ কেজি ২০০ টাকার নিচে বিক্রি হচ্ছে। বিক্রেতারা বলছেন, পেঁয়াজের দাম গত দুই দিন বাড়েনি। তবে দাম কমছেও না। দেশি পেঁয়াজের দাম বেশি হলেও সরবরাহ কিছুটা কম। আমদানি পেঁয়াজের সরবরাহ হলেও দাম কমছে না।

এদিকে পেঁয়াজের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাজারে সব ধরনের সবজির দামও চড়া। শীতের সবজি বাজারে এলেও দাম অনেক। গত এক সপ্তাহ আগে বাজারে সবজির যে দাম ছিল, এখনো ওই একই দামে কিনতে হচ্ছে ভোক্তাকে।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর পাঁচটি কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, শীতের সবজিতে ভরপুর থাকলেও দামে চড়া। খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দামও কমেনি। ২১৫ থেকে ২২০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে দেশি পেঁয়াজ।

পেঁপে ছাড়া সব ধরনের সবজি প্রতি কেজি ৫০ টাকার ওপরে। পেঁপে বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা কেজি।

টিসিবির বাজার পর্যালোচনা বলছে, গতকাল পেঁয়াজ, খোলা ময়দা, ডাল, আলু, এলাচ ও ব্রয়লার মুরগির দাম বেড়েছে। আর আদার দাম সামান্য কমে অন্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার স্থিতিশীল রয়েছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, শীতের ফুলকপি প্রতি পিস বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৬০ টাকায়। নতুন দেশি আলু বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা কেজি। মরিচের দাম কেজিতে ৫-৭ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। ভালো মানের কাঁচা মরিচ বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৮০-৯০ টাকা।

শীতের সবজি শিমের দামও কমেনি। গতকাল চ্যাপ্টা ও লম্বা শিম প্রতি কেজি বিক্রি হয়েছে ৫০ থেকে ৬০ টাকা। নতুন কাঁচা টমেটো বিক্রি হয়েছে ৮০ থেকে ৮৫ টাকা। সাদা ও কালচে রঙের বেগুন বিক্রি হয়েছে ৫০ টাকা কেজি। লালশাক প্রতি আঁটি ১৫ থেকে ২০ টাকা।

ব্রয়লার মুরগির দাম বাড়তি: বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্রয়লার মুরগির দাম কেজিতে ৫ থেকে ১০ টাকা বেড়েছে। গত সপ্তাহে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে ১১০ থেকে ১২০ টাকা কেজি। গতকাল বিক্রি হয়েছে ১১৫ থেকে ১২৫ টাকা কেজি।

সুত্রঃ কালের কন্ঠ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন