সিরিয়ায় শিয়াদের ভয়াবহ হত্যাযজ্ঞের শিকার হয়ে হতাহত ১২০ এরও অধিক মুসলিম

0
129

গত ১১ই জানুয়ারি শনিবার সিরিয়ার ইদলিব সিটিতে বিমান হামলার মাধ্যমে কুফ্ফার রাশিয়া ও আসাদ/শিয়া সন্ত্রাসী জোট বাহিনীগুলো ৩টি ভয়াবহ হত্যাযজ্ঞ চালিয়েছে মুসলিমদের উপর।

যার মধ্যে প্রথম হামলাটি চালানো হয় ইদলিব শহরের একটি কলেজ ও তার আশপাশের আবাসিক এলাকাগুলোতে। যার ফলে দু’জন মহিলা ও এক শিশু সহ ৮ জন বেসামরিক নাগরিক শহীদ হয়েছেন এবং আরো ৪০ জন আহত হয়েছেন।

কুফ্ফার ও মুরতাদ বাহিনী তাদের দ্বিতীয় গণহত্যাটি চালায় ইদলিব সিটির “আন-নাইরব” এলাকায়। যেখানে কুফ্ফার ও শিয়া মুরতাদ বাহিনী ৫ জন বেসামরিক নাগরিককে হত্যা করে, তাদের মধ্যে একটি শিশু ও দুই মহিলাও রয়েছে, এছাড়াও আরো ১২ জন বেসামরিক নাগরীককে আহত করে তারা, যাদের বেশিরভাগই ছিলেন শিশু ও মহিলা।

আসাদের বিমানগুলি ইদলিবের পূর্ব বেননাশ শহরের একটি জনপ্রিয় বাজারকে লক্ষ্য করে তাদের তৃতীয় গণহত্যাটি চালায়, এখানেও তারা 7 জন বেসামরিক নাগরিককে হত্যা করেছিল, যারা সকলেই শিশু ও মহিলা, যারা দক্ষিণাঞ্চল থেকে বাস্তুচ্যুত হয়ে এখানে আশ্রয় নিয়েছিল, এছাড়াও আরও ২৫ জন বেসামরিক নাগরীককে গুরুতর আহত করেছে, যাদের বেশিরভাগই শিশু এবং মহিলা।

অন্যদিকে মধ্য ও উত্তরাঞ্চলে বাস্তুচ্যুত হওয়ার ক্রমবর্ধমান বিক্ষোভের মধ্যে ইদলিবের অনেক পল্লী গ্রাম এবং শহরগুলিতেও তীব্র অভিযান চালায় মুরতাদ শিয়া সন্ত্রাসীরা।

এদিকে মুক্ত এলাকাগুলোতে মুরতাদ আসাদ ও শিয়া সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ৮০ টি ধর্মঘট পালন করেন সাধারণ সিরিয়ান নাগরিকরা। এসময় মুক্ত অঞ্চলগুলিকেও লক্ষ্যবস্তু করে অগণিত শেল ও রকেট হামলা চালায় মুরতাদ শিয়া সন্ত্রাসীরা। যার ফলে অনেক বেসামরিক নাগরিক হতাহত হন।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন