ফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ১৭ নভেম্বর, ২০২৩

- মুহাম্মাদ মহসিন

1
534

• গাজার আল-শিফা হাসপাতালে দখলদার ইসরায়েলি বাহিনীর অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ফলে রোগী, চিকিৎসাকর্মী ও হাসপাতালে আশ্রয় নেয়া বেসামরিক মানুষসহ অন্তত ৭,০০০ ফিলিস্তিনি আটকা পরেছে। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে যে, ইসরায়েলি অভিযানে আল-শিফা হাসপাতালে আরও ৪ জন অপরিণত শিশু মারা গেছে।

• গাজা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পরিচালক ডা. মুনির আল-বুরশ জানিয়েছেন, দখলদার ইসরায়েলি বাহিনী আল-শিফা হাসপাতাল থেকে থেকে ১৮ জন ফিলিস্তিনির লাশ দাফন না করেই অজানা স্থানে নিয়ে গেছে।

• গাজায় প্রতিদিন দুটি জ্বালানি ট্রাক প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে সন্ত্রাসী ইসরায়েল। তবে তা যথেষ্ট নয় বলে জানিয়েছে মানবিক কার্যক্রম পরিচালনাকারী সংস্থাগুলো।

• ফিলিস্তিনি টেলিকমিউনিকেশন ফার্ম ‘প্যাল্টেল’ জানিয়েছে, গাজায় অল্প জ্বালানি তেল সরবরাহের পর উপত্যকায় আংশিক সেবা চালু করতে পেরেছে।

• জাতিসংঘ ও মানবাধিকার বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছে যে, গাজায় সন্ত্রাসী ইসরায়েলের অবরোধ ভয়াবহ এক মানবিক সঙ্কটের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। যদিও বাস্তবে এখনই মানবিক সংকট সেখানে চলছে।

• দখলদার ইসরায়েলি বাহিনী জানিয়েছে তারা গাজার যেকোনো জায়গায় হামাসকে লক্ষ্যবস্তু করবে, এমনকি দক্ষিণ গাজা হলেও। এমতাবস্থায় সন্ত্রাসী ইসরায়েল পুরো গাজাকেই যে নিশ্চিহ্ন করতে চায় বাস্তবে তাই বুঝাতে চাচ্ছে।

• ইসরায়েলের সেনাবাহিনী আল-শিফা হাসপাতালে হামাসের “অবকাঠামো” খুঁজে পেয়েছে বলে দাবি করেছে। কিন্তু তারা উপযুক্ত কোন প্রমাণ এখনো উপস্থাপন করতে পারে নি, বরং শুধুই বারংবার মিথ্যা প্রোপাগান্ডামূলক ভিডিও ছড়িয়ে যাচ্ছে।

• লেবানন সীমান্তে হিজবুল্লাহ ও ইসরায়েলি বাহিনীর হামলা, পাল্টা হামলা চলমান রয়েছে।

• সন্ত্রাসী ইসরায়েলের হামলায় গাজায় এখন পর্যন্ত নিহতের সংখ্যা ১২ হাজার ছাড়িয়েছে। নিহতদের মধ্যে ৭০ শতাংশেরও বেশি শিশু ও নারী। ইসরায়েলি হামলায় আহত হয়েছেন অন্তত ৩০,০০০ ফিলিস্তিনি।

১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধ#Letter to America – কি ছিল সেই চিঠিতে!
পরবর্তী নিবন্ধফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ১৮ নভেম্বর, ২০২৩