বাবরি মসজিদ দখল করছে মালাউনরা, ভিন্ন জায়গায় মসজিদের জমি বাছাই

0
658

ভারতের অযোধ্যায় অবস্থিত হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসীদের হাতে শহিদ হওয়া বাবরি মসজিদের বিকল্প জমি হিসেবে তিন এলাকার পাঁচটি জায়গা নির্বাচন করেছে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী  হিন্দুত্ববাদী মালাউন সন্ত্রাসী যোগী আদিত্যনাথ সরকার। এলাকাগুলো হলো- মির্জাপুর, শামসুদ্দিনপুর ও চাঁদপুর। এ তিন এলাকায় প্রত্যেকটি জায়গায় ৫ একর করে জমি রয়েছে।

গত মঙ্গলবার উত্তর প্রদেশ সরকারের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে কলকাতার প্রভাবশালী গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা।

৮ নভেম্বর কয়েক দশকের প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে বাবরি মসজিদ-রাম জন্মভূমি নিয়ে করা ঐতিহাসিক অযোধ্যা মামলার রায় ঘোষণা করে ভারতের সুপ্রিমকোর্ট। বিতর্কিত ও প্রশ্নবিদ্ধ ওই রায়ে ২৭ বছর আগে ভাঙা বাবরি মসজিদ ও তার লাগোয়া ১৫ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের এলাকা সুপ্রিম কোর্ট হিন্দুদের দিতে বলে। আর নতুন একটি মসজিদ নির্মাণে মুসলমান সম্প্রদায়কে শহরেই নামে মাত্র আলাদা একখণ্ড পাঁচ একরের জমি বরাদ্দ দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। সে অনুযায়ী যোগী সরকার মসজিদের জন্য জমি নির্বাচন করে।

যোগী সরকারের বরাত দিয়ে বলা হয়, যে জায়গাগুলো নির্বাচন করা হয়েছে, সেগুলো সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে দেখানো হবে। ওই জায়গাগুলোর মধ্যেই একটিকে মসজিদ নির্মাণের জন্য বেছে নিতে বলা হয়েছে। তবে তারা আদৌ এ জমি নেবে কিনা তা এখনও নিশ্চিত নয়।

২০১৯ সালের ৮ নভেম্বর বাবরি মসজিদ সংক্রান্ত মামলার রায় ঘোষণা পর এ রায়কে সাম্প্রদায়িক আখ্যায়িত করে মামলার অন্যতম পক্ষ সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড স্পষ্ট জানিয়ে দেয়, তারা মসজিদের জন্য সরকারের দেওয়া জমি গ্রহণ করবেনা। কেননা, উগ্র হিন্দুরা বাবরি মসজিদ ভেঙ্গে ফেলার পরও ভারতের সুপ্রিম কোর্ট  মসজিদের জমিতে হিন্দুদের রাম মন্দির নির্মাণের আদেশ দিয়েছে।

এছাড়া অন্যান্য মুসলিম নেতারাও রায় ঘোষণার পরেই জানিয়ে দিয়েছেন, এই খয়রাতি জমিন মুসলিমদের প্রয়োজন নেই। মুসলিমদের বাবরি মসজিদের জমিই প্রয়োজন।

এর আগে চলতি মাসের শুরুতে অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ মামলার বিতর্কিত রায়ে অসন্তুষ্টির কথা জানিয়ে রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ পিটিশনের আবেদন করে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ। পরে ১২ ডিসেম্বর বাবরি মসজিদের রায়ের বিরুদ্ধে দায়ের করা ১৮টি রিভিউ পিটিশন খারিজ করে দেয় মালাউনদের সুপ্রিম কোর্ট।

 

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন