ইকুয়েডরের রাস্তায় পড়ে আছে করোনায় মৃতদের লাশ

1
361

ইকুয়েডরের পশ্চিমাঞ্চলীয় শহর গুয়ায়াকিলে করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা হু হু করে বেড়ে চলেছে। জনশূন্য রাস্তাঘাটে পড়ে রয়েছে মানুষের মরদেহ। কিছু মানুষ রাস্তা দিয়ে হেঁটে গেলেও কেউ এগিয়ে যাচ্ছে না মৃতদেহের দিকে।

দেশটির কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন স্থানে পড়ে থাকা এসব মরদেহ সংগ্রহ করছে। গতকাল মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা যায়। সিএনএনের তথ্য অনুযায়ী, জনবহুল শহর গুয়ায়াকিলের হাসপাতালগুলোতে অসুস্থ রোগীদের জন্য কোনো শয্যা খালি নেই। মর্গ কিংবা কবরস্থানেও জায়গা হচ্ছে না।

সেখানকার অনেক বাসিন্দা জানিয়েছেন, মরদেহ রাস্তায় ফেলে রাখা ছাড়া তাদের কোনো উপায় নেই। হাসপাতালে জায়গা না পাওয়ায় অনেকে বিনা চিকিৎসায় বাড়িতেই মারা যাচ্ছেন। শহরটিতে ঠিক কতজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন- তার কোনো সঠিক তথ্যও নেই।

৩০ মার্চ বার্তা সংস্থা রয়টার্সে প্রকাশিত একটি ভিডিওতে ফার্নান্দো এসপানা নামে এক ব্যক্তিকে বলতে দেখা গেছে, আমাদের পরিবারে একজন সদস্য অসুস্থ হওয়ায় আমরা পাঁচ দিন ধরে কর্তৃপক্ষের জন্য অপেক্ষা করছি। আমরা ৯১১-এ কল করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছি। তারা কেবল আমাদের অপেক্ষা করার জন্য বলছেন, কিন্তু কেউ আসছেন না।

দেশটির কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ২৩ থেকে ৩০ মার্চের মধ্যে শহরটির বিভিন্ন বাড়ি থেকে ৩০০টি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এদিকে ইকুয়েডরের ন্যাশনাল সার্ভিস অব রিস্ক অ্যান্ড ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট বিভাগ জানিয়েছে, শুক্রবার পর্যন্ত দেশটিতে ৩ হাজার ৩৬৮ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, মারা গেছেন ১৪৫ জন। এর মধ্যে ১০২ জনই গুয়ায়িকি প্রদেশের, যেখানে গুয়ায়াকিল শহরটির অবস্থান।

বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ মাসে শুধু গুয়ায়াকিল শহরেই ২ হাজার ৫০০ থেকে ৩ হাজার ৫০০ জনের মৃত্যু হতে পারে।

১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন