কাশ্মীর | শাহাদাতের অমীয় সুধা পান করলেন এজিএইচ এর ৭ মুজাহিদ

5
1066
কাশ্মীর | শাহাদাতের অমীয় সুধা পান করলেন এজিএইচ এর ৭ মুজাহিদ

ভারতের জবরদখলকৃত জম্মু-কাশ্মীরে মুশরিক সৈন্যদের সাথে এক লড়াইয়ে শাহাদাতের অমীয় সুধা পান করেছেন ‘আনসার গাজওয়াতুল হিন্দের ডিপুটিসহ ৭ জন।

কাশ্মীর ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যমগুলো জানায়, গত ৮ এপ্রিল বৃহস্পতিবার দক্ষিণ কাশ্মীরের শোপিয়ানে মুজাহিদদের অবস্থানের সংবাদ পেয়ে এলাকাটি অবরোধ করে মুশরিক সৈন্যরা। এসময় একটি মসজিদে হামলা চালায় ভারতের হিন্দুত্ববাদী সৈন্যরা। এই অভিযান চলতে থাকে পরেরদিন (৯ এপ্রিল) সকাল বেলা পর্যন্ত। দীর্ঘ ২৪ ঘন্টার এই লড়াই শেষে ভারতীয় মুশরিক বাহিনী দাবি করে যে, তারা ৫ জন মুজাহিদকে শহিদ করতে সক্ষম হয়েছে।

সূত্র আরো জানায় যে, ভারতীয় মুশরিক সৈন্যদের এই অভিযানে প্রধান টার্গেট ছিল, আল-কায়েদা কাশ্মীর শাখা হিসাবে পরিচিত আনসার গাজওয়াতুল হিন্দের ডিপুটি ইমতিয়ায শাহ। অভিযান চলাকালীন ইমতিয়ায শাহ এবং আরো ১ জন মুজাহিদ অবরোধ থেকে বের হতে সক্ষম হয়েছিলেন।

পরাবর্তিতে ভারতীয় মুশরিক বাহিনী দাবী করে যে, তারা ত্রাল এলাকায় আরো ২ জন মুজাহিদকে শহিদ করেছে। বলা হয় যে, অবরোধ থেকে পালিয়ে যাওয়া ইমতিয়ায শাহ ও তার সাথীকে তারা ত্রাল এলাকায় শহিদ করেছে।

জানা যায় যে, এই অভিযানে শাহাদাত বরণকারী কাশিফ মীর এবং ইমতিয়ায শাহ পারিবারিকভাবে জিহাদের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। যাদের আপন ভাইয়েরা হিযবুল মুজাহিদীনের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন, বিগত দশকগুলোতে তারাও শাহাদাতের নিয়ামত লাভ করে ধন্য হয়েছেন। তাদের ভাইয়েরা হিযবুল মুজাহিদীন এর দলে যোগ দিলেও ইমতিয়ায এবং কাশিফ বেছে নেন আনসার গাযওয়াতুল হিন্দকে।

সূত্র আরো জানায় যে, আনসার গাযওয়াতুল হিন্দের ডিপুটি শহিদ ইমতিয়ায শাহ ছিলেন বোরহান ওয়ানী রহিমাহুল্লাহ’র আপন ভাই।

সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী, ৮ এপ্রিল বিকাল বেলা থেকে শুরু করে ৯ এপ্রিল প্রায় দীর্ঘ ২৪ ঘন্টা যাবত সোপিয়ান এবং ত্রালের পৃথক দুটি স্থানে ভারতীয় মুশরিক বাহিনীর সাথে লড়াই হয় মুজাহিদদের। এসময় সোপিয়ানের জান মোহাল্লা এলাকায় ৫ জন এবং ত্রাল এলাকায় ডিপুটি ইমতিয়ায শাহ এবং আরো একজন মুজাহিদ শাহাদাত বরণ করেন। বিপরীতে মুজাহিদদের হামলায় ৪ ভারতীয় মুশরিক আর্মি অফিসার আহত হয়েছে বলা জানিয়েছে দেশটির জাতীয় সংবাদ মাধ্যমগুলো।

 

5 মন্তব্যসমূহ

  1. ইন্নালিল্লাহ!! আল্লাহ ভাইদের শাহাদাহকে কবুল করুন। আমী। কিন্তু একটা বিষয় হচ্ছে, কাশ্মীরে আমাদের মুসলিম ভাইরা অত্যাধিক হারে শহীদ হচ্ছে। কিন্তু নাপাক গো-পূজারীরা সেই পরিমাণ জাহান্নামের টিকেট ধরছেনা!!! আল্লাহ ভাইদের শক্তিশালী করে দিন। আমাদেরকে তাদের পথে চলার তাওফীক দান করুন আমীন।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন