সোমালি গাদ্দার সেনাবাহিনী এবং তাদের মিত্রদের মধ্যকার যুদ্ধে ১২০ সেনা নিহত, আহত ৬ শতাধিক

1
942
সোমালি গাদ্দার সেনাবাহিনী এবং তাদের মিত্রদের মধ্যকার যুদ্ধে ১২০ সেনা নিহত, আহত ৬ শাতাধিক

সোমালিয়ার জালমাদাক রাজ্যে পশ্চিমাদের গোলাম সরকারি মিলিশিয়া এবং তাদের সাবেক মিত্রদের মধ্যে প্রচণ্ড এক লড়াই হয়েছে। যাতে উভয় বাহিনীর ১২০ সদস্য নিহত এবং আরও ৬ শতাধিক সদস্য আহত হয়েছে। হাসপাতালের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এই তথ্য জানিয়েছে “রয়টার্স”।

আঞ্চলিক বিশ্লেষক ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, রাজ্যের দ্বিতীয় বৃহত্তম জেলা গরিয়ালে গত শনিবার ভোরে পশ্চিমাদের গোলাম দুটি মিলিশিয়ার মাঝে এই লড়াই শুরু হয়, যা রবিবার পর্যন্ত চলে। এএসডব্লিউজে” এর এক কর্মকর্তা হাসান ইয়ার সোমবার রয়টার্সকে হতাহতের সংখ্যা নিশ্চিত করে। এই কর্মকর্তা আরও যোগ করে যে, তাদের দল তাদের সর্বশেষ মানুষটি মারা যাওয়া পর্যন্ত লড়াই করার প্রতিজ্ঞা করেছে।

অপরদিকে সোমালি সরকারি বাহিনী দাবি করছে যে, সশস্ত্র গোষ্ঠী “ASWJ” কোণঠাসা হয়ে পড়েছে এবং সরকারী বাহিনী “আসন্ন সময়ের মধ্যে মিলিশিয়াদের শেষ করার আশা করছে”।

এমনিভাবে “এএসডব্লিউজে” অভিযোগ করে বলছে, পশ্চিমা সমর্থিত সরকার হারাকাতুশ শাবাবের প্রতিরোধ যুদ্ধের অবসান ঘটাতে ব্যর্থ হয়েছে, ফলে জালমাদাক রাজ্যে নিরাপত্তার অবনতি ঘটছে। এদিকে গোলাম সরকার ASWJ এর বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে যে, ASWJ সোমালি সরকারের সম্মতি ও পরামর্শ ছাড়া কাজ করছে।

দীর্ঘদিন ধরে সোমালি গাদ্দার সামরিক বাহিনী ও সোফি নামক কথিত আহলে সুন্নাহ্ ওয়াল জামা’আত (এএসডব্লিউজে) নামক এই দু’টি মিলিশিয়া গ্রুপ ঐক্যবদ্ধ হয়ে পশ্চিমাদের কুফরি রাষ্ট্রব্যবস্থাকে টিকিয়ে রাখতে কাজ করে আসছিল। দখলদার ও সোমালিয় মুরতাদ সামরিক বাহিনীর পর পূর্ব আফ্রিকায় ইসলামের উত্থান রুখতে হারাকাতুশ শাবাব বিরোধী লড়াইয়ে সামনের কাতারে অংসগ্রহণ করেছিল এই কথিত “আহলে সুন্নাহ্ ওয়াল জামা’আত” এর মিলিশিয়ারা।

যারা নিজেদের লক্ষ্য বানিয়ে নিয়েছিল যেকোন মূল্যে সোমালিয়াকে সম্ভাব্য ইসলামি শরিয়াহ্ ভিত্তিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা থেকে বিরত রাখা এবং এর জন্য লড়াইরত ইসলামিক প্রতিরোধ বাহিনী হারাকাতুশ শাবাব আল-মুজাহিদিনকে পরাজিত করা। এজন্য তাঁরা ইসলামিক প্রতিরোধ বাহিনীর বিরুদ্ধে ইসলামের চিরশত্রু ইহুদী নাসারাদের সহায়তায় সামরিক অভিযানের পাশাপাশি জনসাধারণের সামনে ইসলামের ভুল ব্যাখ্যা ও মুজাহিদদেরকে খারাপভাবে উপস্থাপন করত।

কিন্তু সশস্ত্র গোষ্ঠী এবং পশ্চিমা সমর্থিত গোলাম সোমালি সরকারের মধ্যে এখন উত্তেজনা বেড়েই চলছে। তারা এখন নিজেদের মধ্যেই ক্ষমতা আর প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে লড়াইয়ে অবতীর্ণ হয়েছে। সুফি গোষ্ঠীটি সরকারকে আশ-শাবাবের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য যথেষ্ট কাজ না করার অভিযোগ করছে, অন্যদিকে সরকার সুফি গ্রুপের উপর তার অনুমতি ছাড়া কাজ করার অভিযোগ তোলছে।

বিশ্লেষকরা মনে করেন, মিলিশিয়াদের মধ্যকার এই লড়াই থেকে বর্তমানে সবাচাইতে বেশি লাভবান হচ্ছেন ইসলামিক প্রতিরোধ বাহিনী হারাকাতুশ শাবাব। কেননা এখন হারাকাতুশ শাবাবের কোন যুদ্ধ করা ছাড়াই তাদের শত্রু বাহিনীর ২ মিত্র মিলিশিয়া নিজেদের মধ্যকার সংঘর্ষের মাধ্যমে নিজেদেরকে আরও দূর্বল থেকে দূর্বল করে তুলছে। যা হারাকাতুশ শাবাবের বিজয়ের পথকে প্রশস্ত করছে এবং শরিয়াহ্ ভিত্তিক ইসলামিক রাষ্ট্রব্যবস্থা সমগ্র পূর্ব আফ্রিকায় প্রভাব বিস্তারে সুযোগ করে দিচ্ছে।

তথ্যসূত্র: https://t.co/bNuxuq3mA

১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন