কাশ্মীর | দখলদার হিন্দু সেনা কর্তৃক নামাজরত মুসল্লীদের হেনস্থার প্রতিবাদ করায় গুলি

আলী হাসনাত

0
957
কাশ্মীর | দখলদার হিন্দু সেনা কর্তৃক নামাজরত মুসল্লীদের হেনস্থার প্রতিবাদ করায় গুলি

কাশ্মীরের কুপওয়ারা জেলার হানদওয়ারা এলাকায় মসজিদে ঢুকে সালাতরত মুসল্লীদের উত্যক্ত করে ভারতীয় দখলদার হিন্দু সেনারা। এতে মুসলমানরা প্রতিবাদ করলে মুসল্লীদের উপর গুলি চালায় দখলদার ভারতীয় সন্ত্রাসী সেনারা। এসময় দুইজন মুসল্লীকে আহত করে হিন্দুত্ববাদী সেনারা।

কাশ্মীরভিত্তিক সংবাদ এজেন্সি ‘দা কাশ্মীরিয়াত’ তাদের রিপোর্টে জানায়, জামিয়া জাদেদ মেইন চক হান্দওয়ারা মসজিদে হঠাৎ প্রবেশ করে হিন্দুত্ববাদী ভারতীয় দখলদার সেনারা। এসময় দখলদার সেনারা যোহরের সালাত আদায়রত মুসল্লীদের বিভিন্নভাবে উত্যক্ত করে এবং তাদের ভিডিও ধারণ করতে থাকে।

উপস্থিত মুসল্লীরা তখন হিন্দু সেনাদের এমন বিকৃত রুচির কাজের প্রতিবাদ করতে থাকেন। ফলে হিন্দুত্ববাদী সেনারা তাদের সাথে বাকবিতন্ডা সৃষ্টি করে, যা এক পর্যায়ে হাতাহাতিতে রূপ নেয়।
কিছু বুঝে উঠার আগেই সেনারা দুইজন যুবককে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। আহত দুজন মুসলিম যুবকরা হলেন মুজিবুর রহমান ও আব্দুল আহাদ মীর, তারা যথাক্রমে হানদওয়ারা ও রাজওয়ার এর বাসিন্দা।

গুলি চালানো ওই সেনারা ২১তম রাষ্ট্রীয় রাইফেলস (RR) ডিভিশনের। ভারতের হিন্দুত্ববাদী পুলিশ নির্লজ্জভাবে ইচ্ছাকৃত ঘটানো এই ঘটনাকে ‘দুর্ঘটনাবশত’ হিসেবে আখ্যায়িত করে।

কাশ্মীরের মুসলমাননের জানমালের নিরাপত্তা যেন মাসুম পশুপাখিদের ন্যায় হয়ে গেছে। যেকোনো সময় ভারতীয় দখলদার বাহিনীর সদস্যরা মুসলমানদের সাথে যাচ্ছেতাই আচরণ করছে, যাকে  খুশি গুলি করবে, গুম-খুন ধর্ষণ করবে। আর তাদের কোনো বিচারও হচ্ছে না।

তাই কাশ্মীরি যুবকরা যে তাদের উপর কৃত জুলুমের বিচার করতে দলে দলে প্রতিরোধ যুদ্ধে যোগ দিচ্ছেন, ইসলামি চিন্তাবীদগণ এটাকে সাধুবাদ জানিয়ে তাদেরকে প্রতিরোধ তীব্র করতে উৎসাহিত করেছেন।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন