ভারতীয় সেনাদপ্তরে কাশ্মীরি স্বাধীনতাকামীদের হামলা: হতাহত ২০ এর বেশি

ত্বহা আলী আদনান

5
1336

হিন্দুত্ববাদী ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের রাজৌরি অঞ্চলে দেশটির দখলদার সেনাবাহিনীর একটি সদরদপ্তরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। যাতে বহু সংখ্যক হিন্দুত্ববাদী দখলদার সেনা নিহত এবং আহত হয়েছে।

কাশ্মীর ভিত্তিক নিউজ পোর্টালসমূহের রিপোর্ট থেকে জানা যায়, আজ ১১ আগষ্ট বৃহস্পতিবার ভোররাতে, রাজ্যটির রাজৌরির পারগাল এলাকায় দখলদার ভারতীয় সেনা সদরদপ্তরে অনুপ্রবেশ করেন সশস্ত্র দুইজন স্বাধীনতাকামী।

সেনা সদরদপ্তরের নিরাপত্তা বেষ্টনি পার করার সময় বর্বর হিন্দুত্ববাদী সেনারা তাদের দেখে ফেলে এবং তাদের দিকে গুলি ছুড়তে শুরু করে। এসময় ভারতীয় দখলদার সেনাদের টার্গেট করেও পাল্টা আক্রমণ এবং গুলি বর্ষণ করেন স্বাধীনতাকামীরা। ফলে কিছু বুঝে উঠার আগেই মাটিতে লুটিয়ে পড়ে উগ্র হিন্দুত্ববাদী ভারতীয় ৩ সেনা।

এরপর আশেপাশে থেকে আরো সেনা আসতে থাকলে বীরবিক্রমে উক্ত দুই স্বাধীনতাকামী তাদের উপরও হামলা চালান, এক উচ্চপদস্থ অফিসার (মেজর জেনারেল) সহ আরও পাঁচ দখলদারকে আহত করেন। এক পর্যায়ে অত্যাধুনিক অস্ত্রে সজ্জিত হিন্দুত্ববাদী সেনা সদস্যদের চতুর্মুখী আক্রমণে শাহাদাতবরণ করেন দুই স্বাধীনতাকামী।

এদিকে দখলদার ভারতীয় এক সেনা কর্মকর্তা রয়টার্সকে দেওয়া এক বার্তায় দাবি করেছে যে, বৃহস্পতিবারের এই হামলায় ৩ ভারতীয় সেনা নিহত এবং আরও ২ সেনা আহত হয়েছে।

তবে কাশ্মীর ভিত্তিক কয়েকটি টুইটার সোর্স থেকে জানানো হয় যে, স্বাধীনতাকামীদের বীরত্বপূর্ণ এই অপারেশনে ভারতীয় সন্ত্রাসী বাহিনীর হতাহতের প্রকৃত সংখ্যা অনেক বেশি, যা দখলদার সেনারা গোপন করছে। তাদের মতে, এই হামলায় বহু সংখ্যক ভারতীয় দখলদার সৈন্য নিহত হওয়া ছাড়াও, অন্তত ১২ সেনা গুরুতর আহত হয়েছে।

কেবল দুইজন স্বাধীনতাকামীর এমন সাহসিকতাপূর্ণ হামলা সত্যিই প্রশংসার দাবিদার ও দৃষ্টান্ত স্থাপনকারী। তারা নিজেদের সংখ্যা, অস্ত্র কিংবা প্রশিক্ষণের উপর ভরসা না করে কেবল আল্লাহর উপর ভরসা করে হাতের কাছে যা আছে তা নিয়েই ঝাঁপিয়ে পড়েছেন দ্বীন ও মিল্লাতের দুশমনদের উপর। আর তাঁরা সফল এই অভিযানটি এমন এক সময় চালিয়েছেন, যখন উগ্র হিন্দুত্ববাদী ভারত তার স্বাধীনতা বার্ষিকী উপলক্ষে জম্মু-কাশ্মীর জুড়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়িয়েছে।

উল্লেখযোগ্য যে, ১৯৪৭ সাল থেকে জম্মু-কাশ্মীর দখল করে রেখেছে হিন্দুত্ববাদী ভারত। এরপর থেকে এ অঞ্চলে রাজনৈতিক ও সামরিক উত্তেজনা অব্যাহত রয়েছে। স্বাধীনতা ও শরীয়তেরর পক্ষের কাশ্মীরি দলগুলোও সময়ে সময়ে ভারতীয় দখলদার সেনাবাহিনীর উপর হামলা চালিয়ে আসছেন।

ইসলামি চিন্তাবীদগণ তাই মুসলিমদেরকে কাশ্মীরি স্বাধীনতাকামী ও প্রতিরোধ যোদ্ধাদের সাফল্যের জন্য দোয়া করতে বলেছেন, এবং সাম্ভাব্য সকল উপায়ে তাদের সাহায্য করতে পরামর্শ দিয়েছেন। কারণ, তাঁরা বলছেন, কাশ্মীরের মুক্তি মানেই হিন্দুত্ববাদের কবল থেকে গোটা উপমহাদেশের মুক্তি।



তথ্যসূত্র :
———
1. Suicide attack on Army Camp in Rajouri; 2 militants, 3 soldiers killed
https://tinyurl.com/5xbtxjvv
2. Three Army Men, Two Militants Killed In Pre-Dawn Attack
https://tinyurl.com/yjzsyvn6
3. J&K army camp attack: 3 soldiers, 2 militants killed
https://tinyurl.com/28kv2n7h
4. https://tinyurl.com/3s5ndkyc

5 মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন