‘সন্ত্রাসবাদের’ ভুয়া অভিযোগে মুসলিম ব্যক্তিকে ছয় বছর জেলে আটক

উসামা মাহমুদ

0
541

জনাব আরশি কুরেশি, যাকে ২০১৬ সাল থেকে কঠোর ইউপিএ (UAPA) আইনের অধীনে আটক করে কারাগারে রেখেছে হিন্দুত্ববাদী প্রশাসন। কোন তথ্য প্রমাণ ছাড়াই তার বিরুদ্ধে হিন্দুত্ববাদী প্রশাসন অভিযোগ এনেছিল যে, তিনি নেকি কথিত ‘সন্ত্রাসবাদ’এর সাথে যুক্ত।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর, শুক্রবার একটি বিশেষ এনআইএ আদালত তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ ভিত্তিহীন হওয়ায় দীর্ঘ ৬ বছর পর নিঃশর্ত খালাস দিতে বাধ্য হয়।

৫২ বছর বয়সী কুরেশিকে ২০১৬ সালে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তখন তিনি ইসলামিক স্কলার জাকির নায়েকের প্রতিষ্ঠিত ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশন (আইআরএফ) এ অতিথি সম্পর্ক ব্যবস্থাপক হিসাবে কাজ করছিলেন।

কুরেশিকে আরও দু’জনের সাথে গ্রেফতার করা হয়েছিল, কেরালার একজন প্রচারক মোহাম্মদ হানিফ এবং জনাব রিজওয়ান খান, যাদেরকে মৌলবাদী হওয়ার অভিযোগে অভিযুক্ত করা হয়েছিল।

কোরেশির আইনজীবী টি ডব্লিউ পাঠান, আই এ খান এবং ফয়জান কুরেশি বলেছিলেন, “কোন সময়ে কোন বেআইনি কার্যকলাপ প্রচারের জন্য বা কোনও নিষিদ্ধ সংস্থার কোনও কারণ বা উদ্দেশ্যকে সমর্থন করার জন্য কোনও বৈঠকের আয়োজন/উৎসাহিত করা/বক্তৃতা করার পরামর্শ দেওয়ার মতো কিছুই রেকর্ডে নেই।”

শুধু জনাব কোরেশি নয়, এমন হাজারো মুসলিমকে বিনা কারণে কোন তথ্য প্রমাণ ছাড়াই কারাগারে আটকে রেখেছে হিন্দুত্ববাদী প্রশাসন। দেখা যায়, তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারায় কিছু সামর্থবান মুসলিম হয়তো মুক্তি পায়; কিন্তু তাদের জীবন থেকে মূল্যবান দীর্ঘ সময় চলে যায়।

হিন্দুত্ববাদীদের প্রহসনের বিচারের কারণে অনেক মুসলিম পরিবার আজ ধ্বংসের দ্বারপান্তে উপনিত হয়েছে। চারিদিকে শুধু মুসলিমদের আহাজারি, আর্তনাদ আর চাপা কান্না শোনা যাচ্ছে, উপমহাদেশের সর্বত্র। এই অবস্থা থেকে উত্তরণে মুসলিমদের তাই নববী মানহাজ ও আদর্শে ফিরে আসার কোন বিকল্প নেই বলে মনে করছেন ইসলামি চিন্তাবীদগণ।



তথ্যসূত্র:
——–
1. Muslim Man accused of terrorism acquitted after six years in jail
https://tinyurl.com/msrrfeup

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন