বিশেষ প্রতিবেদন: বুরকিনা ফাসোতে ডিসেম্বর জুড়ে জেএনআইএমের পরিচালিত পৃথক কিছু অভিযান

- ত্বহা আলী আদনান

1
706
সুবিধামত ফন্ট ছোট বড় করুনঃ

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ বুরকিনা ফাসোতে সাম্প্রতিক বছর ও মাসগুলোতে দেশটির ইসলাম বিরোধী জান্তা সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান জোরদার করেছে আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট ইসলামি প্রতিরোধ যোদ্ধারা। এরই ধারাবাহিকতায় জেএনআইএম পরিচালিত ৭টি পৃথক অভিযানে দেশটির অন্তত ৩৪ সৈন্য নিহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রতিরোধ বাহিনী জামা’আত নুসরাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিনের (জেএনআইএম) মিডিয়া শাখা আয-যাল্লাকার সূত্রে জানা যায়, গত ৫ ডিসেম্বর মঙ্গলবার দেশটির বোবাগোলাসো রাজ্যের লাম্বা এলাকায় একটি অতর্কিত আক্রমণ চালিয়েছিলেন প্রতিরোধ যোদ্ধারা। পরে জান্তা বাহিনীর সাথে মুজাহিদদের সংক্ষিপ্ত একটি লড়াই হয় এই অঞ্চলে। এতে জান্তা সামরিক বাহিনীর অন্তত ২ সৈন্য নিহত হয় এবং আরও অনেক সৈন্য আহত হয়।

ঘটনাস্থল থেকে প্রতিরোধ যোদ্ধারা ২টি ক্লাশিনকোভ ও ৭টি মোটরসাইকেল সহ অন্যান্য বেশ কিছু অস্ত্র ও গোলাবারুদ জব্দ করেছেন।

এমনিভাবে গত ১১ ও ১২ ডিসেম্বর বুরকিনা ফাসোর কায়া রাজ্যে ২টি পৃথক অপারেশন পরিচালনা করেছেন মুজাহিদগণ। প্রথম অভিযানটি রাজ্যের বিসিলা এলাকায় সামরিক বাহিনীর একটি অবস্থান লক্ষ্য করে চালানো হয়। এতে ৩ সেনা সদস্য নিহত হয়। এসময় ঘটনাস্থল থেকে মুজাহিদরা ১টি ক্লাশিনকোভ ও ৪টি মোটরসাইকেল জব্দ করেন।

দ্বিতীয় অভিযানটি চালানো হয় একই রাজ্যের দারঘি এলাকায়। অঞ্চলটিতে বুরকিনান সেনাবাহিনীর সাথে তীব্র লড়াইয়ে অবতীর্ণ হন প্রতিরোধ যোদ্ধারা। এতে সেনাবাহিনীর অন্তত ৫ সদস্য নিহত হয় এবং অন্যরা আহত হয়ে পালিয়ে যায়। এসময় প্রতিরোধ যোদ্ধারা ঘটনাস্থল থেকে ২টি ক্লাশিনকোভ সহ অন্য আরও কিছু সামরিক সরঞ্জাম জব্দ করেন।

এরপর গত ১৭ ডিসেম্বর রবিবার দেশটির নেগাদানি অঞ্চলে শত্রু বাহিনীর বিরুদ্ধে একটি বড় ধরনের সামরিক অভিযান পরিচালনা করেন মুজাহিদগণ। এতে ইসলাম বিরোধী জান্তা সামরিক বাহিনীর অন্তত ৯ সদস্য নিহত হয় এবং বিপুল সংখ্যক সৈন্য আহত হয়ে ঘটনাস্থল ছেড়ে পালিয়ে যায়। এসময় মুজাহিদগণ ঘটনাস্থল থেকে ৮টি ক্লাশিনকোভ, ১টি বিকা ও ১৩টি মোটরসাইকেল সহ অসংখ্য অস্ত্র জব্দ করেন।

একইদিন বুরকিনান মিলিশিয়া বাহিনীর বিরুদ্ধে লালগিত এলাকায় আরো একটি অ্যাম্বুশ চালান মুজাহিদগণ। অভিযানটি চালানো হলে ৪ মিলিশিয়া নিহত হয় এবং ১ সদস্য আহত হয়। মুজাহিদগণ ঘটনাস্থল থেকে ৪টি ক্লাশিনকোভ ও ৪টি মোটরসাইকেল জব্দ করতে সক্ষম হন।

এরপর গত ১৯ ডিসেম্বর মঙ্গলবার, দেশটির জিবু রাজ্যের কঙ্গোসি এলাকায় একটি সফল অপারেশন পরিচালনা করেন মুজাহিদগণ। অভিযানটি এই অঞ্চলে অবরুদ্ধ সেনাবাহিনীর সহায়তায় পাঠানো একটি সামরিক কনভয় লক্ষ্য করে চালানো হয়েছিল। এতে শত্রু বাহিনীর ৬টি ট্রাক ধ্বংস হওয়ার পাশাপাশি তাদের জানমালের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সাধিত হয়। এছাড়াও পণ্য বোঝাই কয়েকটি ট্রাক ‘জেএনআইএম’ যোদ্ধারা জব্দ করে নিয়ে গেছেন বলেও জানা যায়।

এরপর গত ২২ ডিসেম্বর শুক্রবার, বুরকিনা ফাসোর কোগবেলি রাজ্যের সামাগার এলাকায় আরও একটি অতর্কিত আক্রমণ চালান মুজাহিদগণ। সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে পরিচালিত অতর্কিত এই অভিযানে ৪ সেনা সদস্য নিহত হয়, পরে অন্যরা পালিয়ে যায়। এসময় মুজাহিদগণ ঘটনাস্থল থেকে ১টি সামরিক যান, ৫টি মোটরসাইকেল, ৬টি ক্লাশিনকোভ এবং ২টি পিস্তল সহ অন্যান্য বেশ কিছু সামরিক সরঞ্জাম জব্দ করেন।

একই ধারাবাহিকতায়, গত ২৪ ডিসেম্বর রবিবার দেশটির গারসি অঞ্চলের বোসোতী এলাকায় বুরকিনান মিলিশিয়াদের লক্ষ্যবস্তু করেন মুজাহিদগণ। এতে শত্রু বাহিনীর ৬ সদস্যকে নির্মূল করতে সক্ষম হন মুজাহিদগণ। সেই সাথে তাঁরা ঘটনাস্থল থেকে ৬টি ক্লাশিনকোভ ও ১টি মোটরসাইকেল গণিমত হিসেবে জব্দ করেন।

একই দিন জেএনআইএম যোদ্ধারা দৌরি রাজ্যের গোরগাদিজ শহরেও একটি বড় ধরণের সামরিক অপারেশন চালান। অভিযানটি বুরকিনান সেনাবাহিনীর একটি ব্যারাক লক্ষ্য করে ভারী অস্ত্র শস্ত্র দ্বারা চালানো হয়েছে। এই অভিযানে শত্রু বাহিনী ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানা যায়, তবে এখন পর্যন্ত ক্ষয়ক্ষতির সুনির্দিষ্ট সংখ্যা জানা যায় নি।

১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ৩১শে ডিসেম্বর, ২০২৩
পরবর্তী নিবন্ধফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ১লা জানুয়ারি, ২০২৪