হিন্দু পাড়ায় চুড়ি বিক্রি করায় এক মুসলিম বিক্রেতাকে গণপিটুনি

0
879
হিন্দু পাড়ায় চুড়ি বিক্রি করায় এক মুসলিম বিক্রেতাকে গণপিটুনি

কখনও গরু চুরির অপবাদ তো কখনও গো মাংস ভক্ষণ, ২০১৪ সালে মোদী ক্ষমতায় আসার শুরু থেকেই সংখ্যালঘু মুসলিমদেরদের গণপিটুনির ঘটনা অনেকটাই বেড়েছে গোটা দেশে। সংখ্যালঘু অধিকার সবথেকে বেশি প্রশ্নের মুখে পড়েছে উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ সহ একাধিক বিজেপি শাসিত রাজ্যগুলিতে। এবার হিন্দু পাড়ায় চুড়ি বিক্রির অপরাধে এক মুসলিম চুড়ি বিক্রেতা বেধড়ক মার খেতে হল মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে। যা নিয়ে বর্তমানে উত্তাল সে রাজ্যের রাজ্য-রাজনীতি।

সূত্রের খবর, ঘটনাটি ঘটেছে ইন্দোরের গোবিন্দ নগরে। ওই চুড়ি বিক্রেতাকে মারধরের একটা ঘটনা ইতিমধ্যেই ভাইরালও হয়েছে টুইটার ফেসবুক সহ একাধিক সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে। যা দেখা যাচ্ছে উত্তেজিত হিন্দু জনতা কার্যত ঘিরে ধরে ওই যুবকের পরিচয় জানতে চাইছে। পরিচয় জানার পরেই শুরু হয় মারধর। চলে কিল, চড়, ঘুঁষি। এমনকী মাটিতে ফেলে লাথিও মারা হতে থাকে তাকে। পাশাপাশি এও হুমকি দেওয়া হয় আগামীতে আর কোনও হিন্দু এলাকায় যদি সে চুড়ি বিক্রির জন্য যায় তাহলে তার খেসারত আবার তাকে দিতে হবে।

ওই যুবককে মারতে মারতেই একজনকে বলতে শোনা যায়, “আমাদের মা-বোনেরা আফগানিস্তানে এত সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে মুসলমানরা এখানে চুড়ি বিক্রি করছে?” সেই সময়েই অন্য একজন বাকিদেরকেও ওই মুসলিম যুবককে মারতে এগিয়ে আসতে বলে। চলতে থাকে হুমকি। এদিকে উত্তেজিত জনতার মুখে পরে কার্যত হাতজোড় করে বারবার প্রাণ ভিক্ষা করতে দেখা যায় ওই চুড়ি বিক্রেতাকে। কিন্তু তারপরেও থামেনি মার। একইসঙ্গে তার ব্যাগে থাকা সমস্ত সামগ্রীর পাশাপাশি তার কাছে থাকা সমস্ত টাকাও হাতিয়ে নেয় মারমুখী জনতা।

এদিকে এই ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পরেই মধ্যপ্রদেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়েও নতুন করে উঠেছে প্রশ্ন।  কারণ “ইন্দোরে প্রকাশ্যেই গণপিটুনি চলছে। নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছে শিবরাজ প্রশাসন।”

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন