‘হিজাব পড়তে চাওয়া’ মুসলিমদের গণহত্যার আহ্বান হিন্দুত্ববাদী বজরং দলের

মাহমুদ উল্লাহ্‌

0
1087
‘হিজাব পড়তে চাওয়া’ মুসলিমদের গণহত্যার আহ্বান হিন্দুত্ববাদী বজরং দলের
সুবিধামত ফন্ট ছোট বড় করুনঃ

কিছুদিন আগেই ভারতের উত্তরাখণ্ডের হরিদ্বারে ‘ধর্ম সংসদ’-এ মুসলিম বিদ্বেষী ঘৃণাত্মক বক্তৃতা এবং মুসলিমদের বিরুদ্ধে গণহত্যার আহ্বান জানায় হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসীরা। এর পরেই ভারতের বিভিন্ন জায়গায শুরু গণহত্যা চালানোর প্রকাশ্য আহ্বান।

গণহত্যার সূচনা করতে উসকানীমূলক ভাষণ ও ইসলাম ধর্মীয় বিধি বিধান মানার ব্যাপারে হুশিয়ারী দিচ্ছে। গরুর গোস্ত বহন করা, খাওয়ার ব্যাপারেতো বহু আগেই পিটিয়ে মারার রেওয়াজ চালু করেছে উগ্র হিন্দুরা। এবার হিজাব যারা পড়তে চায় তাদেরকেও হত্যার আহ্বান জানিয়েছে হিন্দুত্ববাদী সন্ত্রাসী দল বজরং।

২৫ ফেব্রুয়ারি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত একটি ভিডিওতে, ১৯ বছর বয়সী পূজা, বজরং দলের অন্যতম মুখপাত্র, বিজয়পুরায় বজরং দলের এক ব্যক্তির মৃত্যুর প্রতিবাদে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে মুসলমানদের বিরুদ্ধে গণহত্যার জন্য খোলাখুলিভাবে আহ্বান জানায়।

এই অনুষ্ঠানে ৫০০ জনেরও বেশি উগ্র হিন্দু উপস্থিত ছিল। হর্ষ নামের এক ব্যক্তি ২০শে ফেব্রুয়ারি রবিবার রাতে শিবমোগায় একদল অজ্ঞাত লোকের দ্বারা ছুরিকাঘাতে নিহত হয়। কোন প্রমাণ ছাড়াই দোষ চাপানো হয় মুসলিমদের উপর। ফলে হিন্দু সন্ত্রাসীরা মুসলিম এলাকা ভাংচুর করেছে এবং তাদের গাড়িতে আগুন দিয়েছে। পরদিন জেলাজুড়ে পাথর ছোড়া ও অগ্নিসংযোগের ঘটনাও ঘটেছে। তার মৃত্যুর ঘটনায় এখনও পর্যন্ত দশজন মুসলিমকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে।

“আপনি জল চাইলে ভারতীয়রা আপনাকে জুস দেবে। আপনি যদি দুধ চান, আমরা আপনাকে বাটার মিল্ক দেব। কিন্তু, আপনি যদি সারা ভারতে হিজাব চান, আমরা শিবাজির তলোয়ার দিয়ে তোমাদের (মুসলিমদের) সবাইকে কেটে ফেলব” – এভাবেই পূজা বলেছিল আর শত শত উগ্র হিন্দু জনতা তার বক্তৃতায় উল্লাস ও করতালি দিচ্ছিল।

হিন্দুত্ববাদীরা মুসলিমদের এমন গণহত্যার প্রকাশ্য ঘোষণার পরও পুলিশ এই উগ্র হিন্দুদের বিরুদ্ধে মামলা নথিভুক্ত করেনি। অন্যদিকে অনেক মুসলিমকে উসকানীমূলক বক্তৃতার মিথ্যে মামলায় ফাসিয়ে দীর্ঘদীন ধরে কারাগারে বন্দি করে রেখেছে হিন্দুত্ববাদী প্রশাসন।

মুসলিমদের বেলায় কোনো প্রমাণ ছাড়াই পুলিশ রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা করছে, কিন্তু হিন্দুত্ববাদীদের অপরাধের প্রমাণ আছে,গণহত্যার আহ্বান জানানোর ভিডিও রয়েছে। তবুও তাদের কিছুই করছে না।

মুসলিম বিদ্বেষী সহিংসতার কারণে অবস্থা দিন দিন খারাপ হচ্ছে। হিন্দুত্ববাাদী বজরং দল মুসলিমদের হত্যা করতে হিন্দু যুবকদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে, ঘৃণাত্মক বক্তব্য ব্যবহার করে অন্যান্য হিন্দুদের উস্কে দিতে উৎসাহিত করছে৷ অন্যান্য হিন্দুরা তাদের বক্তৃতার প্রশংসা করার অর্থ হল- তাদের কথার প্রতি পূর্ণ সমর্থন রয়েছে।

এমন পরিস্থিতিতে তাই ভারতে পূর্ণ মাত্রায় মুসলিম গণহত্যা শুরু হওয়াটা সময়ের ব্যাপার বলে মনে করছেন ইসলামি চিন্তাবীদগণ। এমন পরিস্থিত মোকাবালায় মুসলিমদেরকে এখন থেকেই সচেতন হতে বলেছেন তাঁরা।

তথ্যসূত্র:
——
1. Teenage Bajrang Dal Worker in Karnataka Calls for Genocide of ‘Those Who Want Hijab’
https://tinyurl.com/2mzsjky7

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধকাশ্মীরে দখলদার সেনাদের সাথে তীব্র লড়াই, ৩ জন প্রতিরোধ যোদ্ধার শাহাদাত বরণ
পরবর্তী নিবন্ধসোমালিয়ার কৌশলগত শহর মাতবানে উড়ছে তাওহীদের পতাকা