ব্রেকিং নিউজ | রুশ ও মালিয়ান সেনাদের উপর আল-কায়েদার যুগান্তকারী হামলা : নিহত ১০০ এর অধিক

ত্বহা আলী আদনান

5
1316
ব্রেকিং নিউজ | রুশ ও মালিয়ান সেনাদের উপর আল-কায়েদার যুগান্তকারী হামলা: নিহত ১০০ এর বেশি

মালিতে দেশটির গাদ্দার সেনাবাহিনী এবং দখলদার রাশিয়ান বাহিনীর উপর যুগপত হামলা চালিয়েছেন ইসলামি প্রতিরোধ যোদ্ধারা। এতে ডজন ডজন সেনা নিহত এবং আহত হয়েছে। ধ্বংস হয়েছে ৩০টি সাঁজোয়া যান ও ১টি হেলিকপ্টার।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ২৭ এপ্রিল মধ্য মালির মোপ্তি রাজ্যের সেভারি এবং সেগোউ অঞ্চলে হামলা চালিয়েছে আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট ইসলামি প্রতিরোধ বাহিনী জেএনআইএম। এসময় তাঁরা মালির কেন্দ্রীয় এই রাজ্যটিতে গাদ্দার সেনাবাহিনী ও রুশ সৈন্যদের ১০টি ঘাঁটি লক্ষ্য করে একযোগে হামলা চালিয়েছেন।

সূত্রটি আরও যোগ করেছে যে, এই অভিযানে আল-কায়েদার প্রায় দুই শতাধিক প্রতিরোধ যোদ্ধা অংশগ্রহন করেছিলেন। যারা সবাই ভারি অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে একই সময়ে তিনটি ভিন্ন অঞ্চলে সামরিক ঘাঁটি লক্ষ্যবস্তু করে একযোগে হামলা চালিয়েছেন। মূল লড়াইয়ের পূর্বে প্রতিরোধ যোদ্ধারা ৩টি কেন্দ্রীয় ঘাঁটি লক্ষ্য করে প্রথমে বিস্ফোরক ভর্তি ৩টি গাড়ি নিয়ে ইস্তেশহাদী হামলা চালান। যার ফলে সেনারা দিকভ্রান্ত হয়ে পড়ে। আর এই সুযোগে অন্যান্য ইনগিমাসি প্রতিরোধ যোদ্ধারা ঘাঁটিতে ঢুকে পড়েন এবং তীব্র হামলা চালাতে শুরু করেন। যা দীর্ঘ ৫ ঘন্টা ধরে চলমান থাকে।

আল-কায়েদা পশ্চিম আফ্রিকান শাখা জামা’আত নুসরতুল-ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন (জেএনআইএম) দ্বারা সংগঠিত এই হামলায় ১০০ এর বেশি সৈন্য নিহত হয়েছে। একই সাথে আহত হয়েছে আরও অসংখ্য দখলদার ও গাদ্দার সৈন্য। যাদের মাঝে রাশিয়ান ভাড়াটে সামরিক কোম্পানি ওয়াগনারের অনেক সৈন্যও রয়েছে। বলা হয় যে, রাশিয়া মালিতে যুদ্ধে জড়ানোর পর তাদের উপর এটিই আল-কায়েদা কর্তৃক সবচাইতে বড় ধরণের হামলা।

সূত্র মতে, জেএনআইএম এর বীর যোদ্ধাদের বরকতময় এই হামলায় ঐ ১০টি সামরিক ঘাঁটি ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। একই সাথে ৩০ টিরও বেশি সামরিক যান ধ্বংস হয়েছে। এদিকে আল-কায়েদা যোদ্ধাদের প্রতিহত করতে বিমান হামলাও চালায় কুফ্ফার বাহিনী। কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা হয়নি তাদের। কেননা আল-কায়েদা যোদ্ধারা গুলি করে সামরিক বাহিনীর একটি হেলিকপ্টারও ক্ষতিগ্রস্ত করেন। জানা যায় যে, মুজাহিদদের হামলার শিকার হওয়া হেলিকপ্টারটি কিছুদিন আগে রাশিয়া সরকার মালিয়ান সামরিক বাহিনীকে দিয়েছিল।

এদিকে মালিয়ান সেনাবাহিনী হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করলেও, সবসময়ের মতো এবারও তারা হামলায় নিহত সৈন্যের সংখ্যা গোপন করার চেষ্টা করছে।

বিশ্লেষকরা প্রতিরোধ যোদ্ধাদের এমন ব্যাপকভিত্তিক হামলার পর আশা প্রকাশ করে বলেছেন যে, এই হামালটি হয়তো ফরাসি কাপুরুষ সেনাদের মতো নতুন মালির নতুন দখলদার রুশ সেনাদের পলায়নের পথ সুগম করবে, ইনশাআল্লাহ্‌।

5 মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন