ফিলিস্তিনের জিহাদ | আপডেট ‌‌- ২৭শে জানুয়ারি, ২০২৪

0
215
সুবিধামত ফন্ট ছোট বড় করুনঃ

• গাজার খান ইউনিসের নাসের হাসপাতালকে পাঁচ দিন ধরে অবরুদ্ধ করে রেখেছে দখলদার ইসরায়েলি বাহিনী। ‘ট্যাংক থেকে সবাইকে গুলি করা হচ্ছে’ বলে জানিয়েছেন আহমেদ আল-মুগরাবি নামে নাসের হাসপাতালের একজন প্লাস্টিক সার্জন।

• আন্তর্জাতিক আদালত ইসরায়েলকে গণহত্যা থামাতে নির্দেশনা দিয়েছে। কিন্তু রাফাহতে কর্মরত আল-জাজিরার প্রতিনিধি তারেক আবু আজজুম জানিয়েছেন যে, ইসরায়েলি সামরিক কৌশলে কোনো উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন দেখা যায়নি।

• ইউএনআরডব্লিউএ-এর স্টাফদের ব্যাপারে ৭ই অক্টোবরের হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগ এনেছে জায়োনিস্ট ইসরায়েল। আর এই অভিযোগের ভিত্তিতে সংস্থাটিকে অর্থ প্রদান করে বন্ধ করে দিয়েছে নয়টি দেশ। আয়ারল্যান্ড ও নরওয়ে সংস্থাটিকে সাহায্য প্রদান জারি রাখার কথা জানিয়েছে। ইউএনআরডব্লিউএ-এর প্রধান জানিয়েছে, তারা এই অভিযোগের ব্যাপারে তদন্ত করবে।

• গত ২৪ ঘণ্টায় গাজায় ১৭৪ জন ফিলিস্তিনি নিহত এবং ৩১০ জন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

• গাজার সরকারি মিডিয়া অফিস জানিয়েছে, যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত নিহত সাংবাদিকদের সংখ্যা ১২০ জনে পৌঁছেছে।

• দখলদার ইসরায়েলের হামলায় গাজায় এখন পর্যন্ত নিহত হয়েছেন অন্তত ২৬,২৫৭ জন ফিলিস্তিনি এবং আহত ৬৪,৭৯৭ জন।

• ২৭শে জানুয়ারি জায়োনিস্ট বাহিনীর উপর ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ যোদ্ধাদের চালানো হামলার বিবরণ:

আল-কাসসাম ব্রিগেড:

• খান ইউনিসের আল-আমাল এলাকায় ইয়াসিন ১০৫ দিয়ে একটি জায়োনিস্ট ডি৯ বুলডোজারে হামলা করেছেন।

• ইয়াসিন ১০৫ রকেট দিয়ে দখলদার বাহিনীর একটি মারকাভা ট্যাংকে হামলা করেছেন মুজাহিদগণ।

আল-কুদস ব্রিগেড:

• খান ইউনিসের পশ্চিম ও দক্ষিণে জায়োনিস্ট বাহিনীর বিরুদ্ধে মেশিনগান ও ট্যাংক-বিধ্বংসী মিসাইল দিয়ে লড়াই করেছেন।

• সেদেরত, নিরআম এবং গাজার অন্য কিছু দখলদার বসতিতে রকেট হামলা চালিয়েছেন।

• খান ইউনিসের পশ্চিমাঞ্চলে একটি মারকাভা ট্যাংক ও ২টি সামরিক যানে আরপিজি দিয়ে হামলা করেছেন।

• আবু সাফিয়াহ সামরিক অবস্থানের আশপাশে দখলদার বাহিনীর উপর মর্টার হামলা করেছেন যোদ্ধারা।

• মাগাঝি ক্যাম্পের পূর্বে জায়োনিস্টদের সাপ্লাই লাইন এবং সামরিক যানে মর্টার হামলা করেছেন।

• খান ইউনিসে জায়োনিস্ট বাহিনীর উপর মর্টার হামলা করেছেন।

মুজাহিদিন ব্রিগেড:

• বেইত লাহিয়াতে দখলদার বাহিনীর উপর ভারী মর্টার হামলা করেছেন।

উমার আল-কাসিম বাহিনী:

• খান ইউনিসে অনুপ্রবেশকারী দখলদার বাহিনীর উপর ১০৭মিমি রকেট ও মর্টার দিয়ে হামলা চালানো হয়েছে।

• বাতেন আল-সামিন ও আল-আমাল এলাকায় জায়োনিস্ট বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে জড়িয়েছেন। একটি সামরিক যানে আরপিজি দিয়ে হামলা করা হয়েছে।

আল-আকসা ব্রিগেড:

• দক্ষিণ গাজার খান ইউনিস এবং উত্তর গাজার বেইত লাহিয়ার উত্তরে আল-আতাত্রা এলাকায় দখলদার বাহিনীর সাথে সংঘর্ষে জড়িয়েছেন।

আল-আসিফাহ বাহিনী:

• খান ইউনিসের কাছে দখলদার বাহিনীর অবস্থানে স্বল্পদূরত্বের রকেট এবং মর্টার হামলা করেছে।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধযৌন হয়রানির শিকার উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী কর্মকর্তা
পরবর্তী নিবন্ধসোমালিয়ায় মার্কিন যুদ্ধবিমানের বোমাবর্ষণে নারী ও শিশুসহ ১৯ জন হতাহত