কাদিস বাঁধ নির্মাণ ও সুরখাব বাঁধ মেরামত কাজে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি

0
159

দেশজুড়ে বাঁধ নির্মাণ ও মেরামত ইমারতে ইসলামিয়া আফগানিস্তান সরকারের অন্যতম প্রাধান্যপ্রাপ্ত একটি খাত। শুষ্ক পাহাড়ি দেশ আফগানিস্তানে সবুজায়ন ও কৃষি বিপ্লব সংঘটিত করতে বাঁধ নির্মাণ ও সুষ্ঠু পানি ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করার কোন বিকল্প নেই। আর এই কাজটি সফলতার সাথেই আঞ্জাম দিয়ে যাচ্ছে ইসলামি সরকার।

ইমারতে ইসলামিয়া আফগানিস্তানের গ্রামীণ পুনর্বাসন ও উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী মোল্লা মুহাম্মদ ইউনুস আখুন্দজাদা হাফিযাহুল্লাহ সম্প্রতি কাদিস জলাধারে চলমান বাঁধ নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেছেন। এটি বাদগিস প্রদেশের কাদিস জেলায় অবস্থিত। প্রকল্পটি স্থাপনের মূল উদ্দেশ্য- কাদিস নদীর পানি প্রবাহকে কার্যকরভাবে পরিচালনা করা। ফলে এই পানি সেচ কাজে ব্যবহার করা সম্ভব হবে, পাশাপাশি বন্যা নিয়ন্ত্রণে বাঁধটি ভূমিকা পালন করবে।

ডিজাইন মোতাবেক বাঁধটির উচ্চতা হবে ৩২ মিটার। এটি ৩ মিলিয়ন ঘনমিটার পর্যন্ত পানি সংরক্ষণ করবে। এটি নির্মাণে ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে ১২.৫ মিলিয়ন ডলার, যা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন বাজেট থেকে বরাদ্দ দেয়া হচ্ছে।

বাঁধটি নির্মিত হলে প্রায় ১৪০০ হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা সরবরাহ করা সম্ভব হবে। ফলে কৃষি খাতে উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। পাশাপাশি স্থানীয় বাসিন্দাদের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে ইনশাআল্লাহ।

এছাড়া দেশে বিদ্যমান গুরুত্বপূর্ণ বাঁধসমূহে নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষণ এবং সেগুলোর তদারকি ও পরিচালনার কাজও নিয়মমাফিক করে যাচ্ছে ইমারতে ইসলামিয়া সরকার। জ্বালানি ও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সম্প্রতি প্রদত্ত তথ্যা অনুযায়ী, সুরখাব পানি সংরক্ষণ বাঁধের মেরামত ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজ ৭৯ শতাংশ পর্যন্ত সম্পন্ন হয়েছে। বাঁধটি লোগার প্রদেশের মুহাম্মদ আগা জেলায় অবস্থিত। এই সংস্কার কাজ সম্পন্ন করতে ১১ কোটি ২ লক্ষ ১২ হাজার আফগানি ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছিল।

উল্লেখ্য যে, ১৯৩০ সালে নির্মিত এই বাঁধটি লোগার প্রদেশের অন্যতম বৃহত্তম পানির উৎস, যা প্রদেশটিতে সারা বছরই পানির যোগান দেয়। এটির আওতায় প্রায় ৩০০০ হেক্টর জমিতে সেচ সুবিধা প্রদান করা হয়।


তথ্যসূত্র:
1. Minister MRRD visits Qadis Dam Project in Badghis
https://tinyurl.com/yc7bsdwv
2. Surkhab Dam Maintenance Project in Logar Province Nears Completion
https://tinyurl.com/j6pbuepf

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধগাজায় প্রাণহানি বেড়ে ৩৭ হাজার ২০২
পরবর্তী নিবন্ধফিলিস্তিনের জিহাদ || আপডেট – ১৫ জুন, ২০২৪