খোরাসান | লাগমানে তালেবান মুজাহিদদের হামলায় ৫৪ মুরতাদ সেনা হতাহত, ১৩টি সামরিকযান ধ্বংস

6
1481

ইমারতে ইসলামিয়া আফগানিস্তানের জানবাজ তালেবান মুজাহিদিন (১১ মে ২০২০ ঈসায়ী সনের ১৭ রমাদানুল মোবারক ১৪৪১ হিজরী) আফগানিস্তানের লাগমান প্রদেশে ক্রুসেডার আমেরিকার গোলাম আফগান মুরতাদ বাহিনীর বিরুদ্ধে এক অসাধারণ সফল অভিযান পরিচালনা করেছেন।

বিস্তারিত সংবাদ হতে জানা যায় যে, তালেবান মুজাহিদিন লাগমন প্রদেশের আলিশাং জেলায় মুরতাদ কাবুল প্রশাসনের একটি সামরিক কাফেলা লক্ষ্য করে তীব্র ও সফল হামলা চালিয়েছেন, যাতে কয়েক ডজন মুরতাদ সেনা নিহত ও আহত হয়েছে।

তালেবান মুখপাত্র মুহতারাম জবিহুল্লাহ মুজাহিদ জানান যে,
মার্কিন পুতুলখ্যাত কাবুল প্রশাসনের একটি বিশাল বাহিনী উক্ত এলাকায় নতুন চেকপয়েন্ট স্থাপন এবং কাবুল প্রশাসনের নিয়ন্ত্রিত অঞ্চল সম্প্রসারণের অভিপ্রায় নিয়ে লাগমন প্রদেশের আলিশাং জেলার কোঞ্জাকি এলাকায় পৌঁছেছিলো।

ঐদিন সকাল ৯ টার দিকে ইসলামী ইমারাতের বিশেষ ইউনিটের জানবাজ মুজাহিদিন শত্রুর অগ্রযাত্রা রোধ করতে কাবুল প্রশাসনের উক্ত কাফেলাটির উপর প্রতিরোধমূলক আক্রমণ শুরু করেন, যা দুপুর অবধি স্থায়ী হয়।

এই অভিযানে তালেবান মুজাহিদদের হামলায় কাবুল মার্কিন পুতুল প্রশাসনের কমান্ডারসহ ২৪ সৈন্য নিহত হয়, এর মধ্যে ঘটনাস্থলই ২০ সৈন্য নিহত হয়। মুজাহিদদের হামলায় আহত হয় আরো ৩০ এরও অধিক সেনা সদস্য। এছাড়াও কাবুল প্রশাসনের আরো ৩ সৈন্যকে জীবিত বন্দীও করেন মুজাহিদগণ।

এসময় কাবুল প্রশাসনের মুরতাদ ফোর্সের ১৩টি হাম্বি ও ট্যাঙ্ক পুরোপুরি ধ্বংস করা হয়, আর ৩০ টি বিভিন্ন ধরণের অস্ত্র ও প্রচুর গোলাবারুদ এবং সামরিক সরঞ্জাম মুজাহিদগন গনিমত লাভ করেন।

এই লড়াইয়ে একজন মুজাহিদ শহীদ ও দুজন মুজাহিদ আহত হয়েছেন।

সম্প্রতিক সময়ে প্রতিরক্ষার আড়ালে কাবুল প্রশাসনের সৈন্যেরা কনভয় নিয়ে ইসলামী ইমারাতের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা এবং নতুন চেকপয়েন্ট স্থাপনের অভিপ্রায় নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে বেরিয়ে আসছে, যার ফলে কাবুল প্রশাসনের সৈন্যরা মুজাহিদদের তীব্র হামলার মুখোমুখি হচ্ছে আর এতে কাবুল প্রশাসনকে হতাহতের লস্বা তালিকাও গুণতে হচ্ছে।

6 মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধফটো রিপোর্ট | কুখ্যাত নুসাইরী বাহিনী হতে মুজাহিদদের বরকতময় গনিমত প্রাপ্তি
পরবর্তী নিবন্ধপাকিস্তান | মুজাহিদদের হামলায় ৫ মুরতাদ সৈন্য হতাহত।