চাঁদাবাজি করে ধরা খেলো লাইসেন্সপ্রাপ্ত সন্ত্রাসী পুলিশ

1
415
চাঁদাবাজি করে ধরা খেলো লাইসেন্সপ্রাপ্ত সন্ত্রাসী পুলিশ

সাভারের আশুলিয়ায় চাঁদাবাজি করে এক পুলিশ কনেস্টবলসহ চারজন ধরা খেয়েছে। আজ সোমবার ভোরে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় তাদের ব্যবহৃত একটি মাইক্রোবাসও জব্দ করা হয়।

আটকৃতরা হলেন- মানিকগঞ্জের দৌলতপুর থানার শ্যামপুর গ্রামের মৃত তসলিম উদ্দিনের ছেলে মো. মমিনুর রহমান। তিনি বর্তমানে আশুলিয়া থানায় পুলিশ কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত।

অন্যরা হলেন-টাঙ্গাইলের নাগরপুর থানার ছোনকা গ্রামের মো. আবদুল লতিফের ছেলে আবদুল হামিদ (মাইক্রোবাস চালক), গাইবান্ধা জেলার সদর থানার চৌদ্দগাছা গ্রামের মৃত তফেজল মিয়ার ছেলে ওয়াহেদ ও অপরজন জামালপুর জেলার মালন্দ থানার চরগুহিন্দি গ্রামের মো. সরুজ শেখের ছেলে ওয়াজেদ শেখ।

ভুক্তোভোগী নুর উদ্দিন পাটোয়ারী জানান, গত বুধবার (২২ জুলাই) রাতে তার জামগড়ায় নুর মেডিকেল হল নামে ওষুধের দোকানে বিক্রয়-নিষিদ্ধ-ঔষধ রয়েছে দাবি করে ভয়-ভীতি দেখিয়ে কিছু টাকা আদায় করে ওই চাঁদাবাজরা। গতকাল রোববার গভীর রাতে সেখানে গিয়ে তারা পুনরায় চাঁদা দাবি করে।

আটককৃতদের মাঝে আশুলিয়ার থানার একজন পুলিশ সদস্য রয়েছে। এ সময় তল্লাশি করে বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র, জাল টাকা, ইয়াবা ও গাঁজাসহ বিভিন্ন মানুষের জাতীয় পরিচয়পত্র ও ব্যাংকের ১৬ এটিএম কার্ড পাওয়া যায়।’
আমাদের সময়

১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন