রাতের আঁধারে আ.লীগ সন্ত্রাসীর নেতৃত্বে মাদরাসায় হামলা

2
995
রাতের আঁধারে আ.লীগ নেতা নেতৃত্বে মাদরাসায় হামলা

কক্সবাজার সদর উপজেলার পিএমখালী এলাকার তোতকখালী সিকদারপাড়া হাফেজিয়া ইউনুছিয়া রহমানিয়া মাদরাসায় স্থানীয় ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগের নেতার নেতৃত্বে হামলার ঘটনা ঘটেছে।

এ হামলায় ভাঙচুর করা হয়েছে মাদরাসার আসবাবপত্র। ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে ধর্মীয় পবিত্র বই পুস্তক। মাদরাসার সুপার মুফতি আসাদ আবদুল্লাহকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ ও মারধর করেছেন তাজ উদ্দিন সিকদার তাজমহল। মারধরের ফলে মুফতি আসাদের গায়ের পাঞ্জাবি ছিঁড়ে গেছে। অবস্থা দেখে মাদরাসার আবাসিক শিক্ষার্থীরা আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে পড়ে। অনেকে মাদরাসার প্রাঙ্গনে পুকুরে ঝাঁপ দেয়।

সোমবার (৪ জানুয়ারি) দিনগত রাত ১০ টার দিকে হামলার ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় শিক্ষক, শিক্ষার্থীসহ স্থানীয়রা ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। অভিযুক্ত আওয়ামী লীগ নেতা তাজ উদ্দিন সিকদার তাজমহলের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা চান স্থানীয় বাসিন্দারা।

এদিকে, রাতের অন্ধকারে দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সশস্ত্র হামলা, ভাঙচুর ও শিক্ষক নাজেহালের প্রতিবাদে মঙ্গলবার মাদরাসা প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সমাবেশে এলাকাবাসী দাবী করেন, তাজমহল মেম্বার এলাকার একজন সন্ত্রাসী এবং মদ্দপ খুবই খারাপ প্রকৃতির লোক। সে এর আগেও এলাকায় নারী নির্যাতন থেকে শুরুকরে জমি দখল পাহাড় কাটা,মাটি বিক্রিসহ সমস্ত অপরাধের মুলহোতা।

মুহতামিম মাওলানা কাজি জাফর আলমের সভাপতিত্বে মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) বিকালে কক্সবাজার ওলামা পরিষদ ও সর্বস্তরের তৌহিদি জনতার ব্যানারে আয়োজিত সভায় বক্তব্য দেন- ধাওনখালী মাদরাসার মুহতামিম প্রবীন আলেম মাওলানা মুহাম্মদ মুসলিম, রামু রাজারকুল মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মুহাম্মদ মুহছেন শরীফসহ বিভিন্ন মাদরাসার উলামায়ে কেরাম।

বিক্ষুব্ধ জনতার সমাবেশে ঘটনার বিস্তারিত উপস্থাপন করেন মাদরাসার সুপার মুফতি আসাদ আবদুল্লাহ।

2 মন্তব্যসমূহ

  1. আসসালামু আলাইকুম ভাই এভাবে আর কত পুকুরে লাফ কিংবা মিসিল সমাবেশ রেলি করে পতিবাদ আমাদের নবী মুহাম্মাদ ( সঃ) কী আমাদের শিক্ষা দেয়নি কিভাবে জালিমের পতিরোধ করতে হয় এই শিক্ষা গুলো কেন আমাদের দায়িত্ব বান ওলামা গন আমাদের সন্তান দের দেননা দিলেতো আজকে তাদেরকে পুকুরে ঝাপ দিতে হত না

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন