ইমারাতে ইসলামিয়া’র বিজয়ে আল-কায়েদার বিভিন্ন শাখার মোবারকবাদ ও শুভেচ্ছা বার্তা

0
1327
ইমারাতে ইসলামিয়া’র বিজয়ে আল-কায়েদার বিভিন্ন শাখার মোবারকবাদ ও শুভেচ্ছা বার্তা

পশ্চিমা সমরকৌশলবিদ, বিশ্ব রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ আর পৃথিবীর ওয়্যার এনালিস্টদের বিস্মিত করে দিয়েই দীর্ঘ ২০ বছর পর আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল জয়ের মধ্য দিয়ে পুনরায় দেশটির শাসনভারের দায়িত্বগ্রহণ করেছেন ইমারতে ইসলামিয়ার জানবায তালেবান মুজাহিদিন।

গত ৫ আগস্ট থেকে শুরু করে ১৫ আগস্টের মধ্যে তালিবান মুজাহিদগণ এত দ্রুততার সাথে আফগানিস্তানের বৃহত্তম ও গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোর নিয়ন্ত্রণ নিয়েছেন, যা ক্রুসেডার আমেরিকাসহ পুরো বিশ্বের সমরকৌশলবিদদের অবাক করে দিয়েছে।

কেননা ইমারতে ইসলামিয়া আফগানিস্তানের জানবায তালিবান মুজাহিদগণ এমন এক বাহিনীর সাথে এই যুদ্ধে বিজয়ী হয়েছেন, যাদেরকে দীর্ঘ দুই দশক ধরে সবধরনের সহায়তা আর বিশ্বের সর্বাধুনিক সমরাস্ত্রের প্রশিক্ষণ দিয়েছে ক্রুসেডার আমেরিকা ও ন্যাটো জোট। যারা দীর্ঘ ২০ বছর ধরে একযোগে ইমারতে ইসলামিয়ার বিরুদ্ধে লড়াই করেছে। ক্রুসেডার আমেরিকা ও ন্যাটো জোটের কয়েক লক্ষাধিক সেনা ছাড়াও এই যুদ্ধে মুজাহিদদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে ৩ লাখেরও বেশি মার্কিনপন্থী আফগান মুরতাদ বাহিনী।

আল্লাহু আকবার, আল্লাহ্ তা’আলা ইমারতে ইসলামিয়ার জানবায তালিবান মুজাহিদদের হাতে কুফ্ফারদের বিশাল এই বাহিনীকে শোচনীয় পরাজয়ের মাধ্যমে ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি ঘটিয়েছেন। যার ফলে কুফরের ঘন-কালো আধার রাত পেরিয়ে ঝলমলে নতুন প্রভাত হয়ে উদিত হতে শুরু করেছে খিলাফার আলোকময় এক সূর্য। ইনশাআল্লাহ্, যার আলোক রশ্মি ছড়িয়ে পড়বে পৃথিবীর পূর্ব থেকে পশ্চিম আর উত্তর থেকে দক্ষিণে। যেই খিলাফাহ’র সুশীতল ছায়াতলে মানুষ ফিরে পাবে প্রকৃত সুঃখ-শান্তি, সে ছুটে চলবে আপন রবের নৈকট্য লাভের সন্ধানে।

ইমারাতে ইসলামিয়া আফগানিস্তানের ঐতিহাসিক এই মহান বিজয় মুসলিম বিশ্বকে নতুন করে আশার প্রদীপ দেখিয়েছে, শতাব্দীকাল পরে মু’মিনদের মুখে ফুটেছে বিজয়ের হাসি, যা খোরাসান থেকে শুরু করে আরব অনারবের প্রতিটি মুসলিমকেই আনন্দিত করেছে। যার আনন্দে মু’মিন বান্দাদের শির মহান রবের দরবারে সিজদাবনত হয়েছে। অপরদিকে আল্লাহ্ তা’আলা জালিম ও দখলদার বাহিনী এবং তাদের অনুসারীদের অন্তর ভয়-ভীতি ও পরাজয়ের গ্লানি দ্বারা পূর্ণ করে দিয়েছেন।

ইমারাতে ইসলামিয়া আফগানিস্তানের মুজাহিদদের বিজয়ের আনন্দঘন মুহূর্তে ইতিমধ্যে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন বার্তা জানিয়েছে তানযিমুল কায়েদার একাধিক শাখা।

এরই ধারাবাহিতায় জামাআত কায়িদাতুল জিহাদ উপমহাদেশ ইমারাতে ইসলামিয়া’র বিজয়ে তাদের প্রকাশিত নতুন বার্তায় লিখেন- আমরা এই বরকতময় বিজয়ে আমীরুল মু’মিনীন শাইখুল কুরআন ওয়াল হাদীস শাইখ হিবাতুল্লাহ আখুন্দযাদা মাদ্দাজিল্লুহু, তাঁর রাজনৈতিক নায়েব মুহতারাম মোল্লা আব্দুল গনী বেরাদার মাদ্দাজিল্লুহু, এবং অন্য দুই নায়েব মুহতারাম খলিফা সিরাজুদ্দীন হক্কানী মাদ্দাজিল্লুহু, মুহতারাম মৌলভি মুহাম্মাদ ইয়াকুব মাদ্দাজিল্লুহু, এবং ইমারতে ইসলামিয়া’র অন্যান্য নেতৃবৃন্দ এবং মুজাহিদীনকে আমাদের জামাআতের ও উপমহাদেশের ঈমানদারদের পক্ষ থেকে আন্তরিক মোবারকবাদ ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।

বার্তায় যোগ করা হয় যে, ইমারতে ইসলামিয়া’র বিজয় সমস্ত মুসলিমদের জন্য এই বার্তা দেয় যে, জবরদখল ও আগ্রাসী শক্তিকে প্রতিরোধ করার জন্য জিহাদ ব্যতিত বিকল্প কোন পথ নেই। তাই তাদের বিরুদ্ধে ক্বিতালের ময়দানে অবতীর্ণ হতে হবে। দুনিয়ার আগ্রাসী শক্তির বাছাই করা গণতন্ত্র দ্বারা তাদের মোকবেলা করা যায় না।

এ বিজয়ে মুসলিমদের জন্য পয়গাম হলো- বিশ্ব আগ্রাসী শক্তির মোকাবেলায় নিজেদের সবকিছু বিসর্জন দেয়ার মাঝে কোন ধরনের কৃপণতা না করা এবং আত্মত্যাগের মহিমায় অটল-অবিচল থাকা।

এই বিজয়ে সকল মুসলিমদের জন্য এই নসীহত রয়েছে যে, পরিস্থিতি যতই নাজুক হোক, নিজেদের আত্মরক্ষার জন্য এবং জাতীয় মূল্যবোধ রক্ষার তাগিদে কোন মুসলিমের জন্য যুদ্ধের ময়দান থেকে পিছপা হওয়া সাজে না।

এমনিভাবে আল-কায়েদা ইসলামিক মাগরিব ও জামা’আত নুসরাতুল ইসলাম ওয়াল মুসলিমিন এক যৌথ বিবৃতিতে ইমারতে ইসলামিয়ার বিজয়ে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন বার্তা জানিয়েছে।

হামদ্ ও সালাতের পর বার্তাটিতে বলা হয়, পুরো দুই দশক জিহাদ পরে, আফগান মুসলিম জনগণ আল্লাহ্ তা’আলার অনুগ্রহে ক্রুসেডার মার্কিন নেতৃত্বাধীর আন্তর্জাতিক কুফ্ফার জোটের উপর ঐতিহাসিক বিজয় লাভ করেছেন।

এরপর বার্তায় আমীরুল মু’মিনিন মোল্লা মোহাম্মদ ওমর রহিমাহুমুল্লাহ’র ঐতিহাসিক বক্তব্যটি উল্লেখ করা হয়, যেখানে, তিনি বলেছিলেন: “বুশ আমাদেরকে পরাজয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, আর আল্লাহ্ আমাদেরকে বিজয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, সুতরাং আমরা দেখব দুটি প্রতিশ্রুতির মধ্যে কোনটি সত্য।”

এমনিভাবে আল-কায়েদা জাজিরাতুল আরবও আল-মালাহিম মিডিয়ার মাধ্যমে ইমারতে ইসলামিয়ার বিজয়ে শুভেচ্ছা বার্তা জানিয়েছেন।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন