কেনিয়ার লামু জেলা এখন সম্পূর্ণ আল-কায়েদার নিয়ন্ত্রণে

ত্বহা আলী আদনান

4
177

দীর্ঘ এক মাস থেমে থেমে তীব্র লড়াইয়ের পর অবশেষে কেনিয়ার লামু জেলার সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে আশ-শাবাব।

বৈশ্বিক ইসলামি প্রতিরোধ বাহিনী জামা’আতুল কায়েদার পূর্ব আফ্রিকা ভিত্তিক জনপ্রিয় শাখা হারাকাতুশ শাবাব আল-মুজাহিদিন। দলটি সোমালিয়ার পাশাপাশি প্রতিবেশি কেনিয়াতেও নিজেদের শক্তি এবং ইসলামি রাজ্যের সীমান্ত প্রশারের দিকে মননিবেশ করেছে।

সেই ধারাবাহিকতা বজায় রেখেই প্রতিরোধ যোদ্ধারা এবার কেনিয়ার কৌশলগত ও গুরুত্বপূর্ণ লামু জেলার সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়েছেন। জেলাটিতে গত এক মাস ধরেই থেমে থেমে হামলা চালাচ্ছিল আশ-শাবাব মুজাহিদিন।

এর আগে গত ১৫ জুন এবং ১৭ জুন জেলাটির ‘বুজি গারাস এবং দাইদাই’ এলাকার নিয়ন্ত্রণ নেন মুজাহিদগণ। যার মধ্যমে মুজাহিদগণ মূলত জেলাটির কেন্দ্রীয় শহরকে চতুর্দিক থেকে অবরোধ করে ফেলেন। এরপর কেন্দ্রীয় জেলা শহরে সাহায্য পাঠানোর সমস্ত পথ বন্ধ করে দেন মুজাহিদগণ। অবরোধ যতই বাড়তে থাকে, শহরের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কেনিয়ান শত্রুসেনারা ততই কোনঠাসা হয়ে পড়তে থাকে। শহরের বাহির থেকে কোন রকম সাহায্য না আসায় কেনিয়ান সৈন্যরা বাধ্য হয়ে শহর ছেড়ে যে যার মত করে পালাতে শুরু করে।

সর্বশেষ গত ২০ জুন কেনিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলিয় মান্দিরা রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ লামু জেলাটি সম্পূর্ণরূপে ছেড়ে পালিয়ে যায় কেনিয়ান সৈন্যরা। ঐদিন সকালে শহরের কেন্দ্রস্থলের দিকে মুজাহিদদের অগ্রসর হওয়ার সংবাদ পেয়েই সেনাদের এই পলায়নের ঘটনা ঘটে। ফলশ্রুতিতে আশ-শাবাব মুজাহিদিন কোন লড়াই ছাড়াই শহরের কেন্দ্রস্থলে প্রবেশ করেন।

শহরে পৌঁছেই ইসলামি প্রতিরোধ যোদ্ধাগণ ইসলাম ও মুসলিমের শত্রু কেনিয়ান বাহিনীর সদর দপ্তর এবং সরকারি যোগাযোগ সংস্থা সাফারিকমের সদর দপ্তর ধ্বংস করেন। এভাবেই উম্মাহর এই বীর যোদ্ধারা উম্মাহর মুকুটে আরও একটি বিজয়ের ক্ষুদ্র পালক যুক্ত করে উম্মাহর সম্মান বৃদ্ধি করলেন, আলহামদুলিল্লাহ্‌।

4 মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন