কাবুলে অ্যামেরিকার হামলা ও দাবির ব্যাপারে আমাদের অবস্থান

আব্দুল্লাহ বিন নজর

35
5328

অ্যামেরিকা দাবি করেছে – তাদের হামলায় শহীদ হয়েছেন আল-কায়েদা প্রধান শায়েখ আয়মান আল-জাওয়াহিরি (হাফি.)।

একাধিক মার্কিন সংবাদমাধ্যমের বরাতে জানা যায় যে, গতকাল রবিবার কাবুলে মার্কিন ড্রোন হামলায় শাহাদাত বরণ করেছেন আল-কায়েদার প্রধান শায়েখ আয়মান আল-জাওাহিরি (হাফি.)। একটি ভবনের বারান্দায় অবস্থানকালে ড্রোন হামলা চালানো হয় শায়েখের উপর। তারা এও দাবি করে যে, ঐ হামলায় শায়েখ আয়মান ব্যাতিত ভবনের অন্য কেউ হতাহত হয়নি।

সন্ত্রাসী মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এই সংবাদ নিঃসন্দেহে মুসলিম উম্মাহর অন্তরকে ব্যথিত করেছে, ইসলাম প্রিয় শত-সহস্র চোখকে অশ্রুসিক্ত করেছে। আর শায়েখ (হাফি.)-এর শাহাদাতের এই সংবাদটি সত্য হয়ে থাকলে, তা নিঃসন্দেহে উম্মাহর জন্য এক বিশাল ও অপূরণীয় ক্ষতি। তবে তা উম্মাহর অগ্রযাত্রার পথে কোন বাধা নয়, থমকে যাবার কোন কারণ নয়। কেননা মুসলিমদের রব আল্লাহ তাআলা আল হাইয়ুল কাইয়ুম, তিনি অবিনশ্বর। আর অমুসলিমদের কোন মাওলা নেই, সাহায্যকারী নেই।

তবে আল-কায়েদা সংশ্লিষ্ট কোন নির্ভরযোগ্য সূত্র এই হামলা বা শায়েখ (হাফি.) এর শাহাদাতের বিষয়ে এখনো কিছু নিশ্চিত করেনি। আর আমরা মিথ্যাবাদী মার্কিনীদের ও তাদের দালাল মিডিয়াকে বিশ্বাস করিনা।

ইসলামি ইমারত আফগানিস্তানের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ (হাফি.) এক বিবৃতিতে কাবুলে মার্কিন হামলার খবর নিশ্চিত করেছে, এবং এই হামলার নিন্দা জ্ঞাপন করেছেন। এটাকে তিনি আন্তর্জাতিক আইনের এবং দোহা চুক্তির লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করেছেন। তবে তিনি শায়েখ আয়মান (হাফি.)-এর শাহাদাতের বিষয়ে কোন কিছু উল্লেখ করেননি।

সুতরাং, যাদের অন্তরে উম্মাহ, ইসলাম ও শায়েখের প্রতি ভালবাসা রয়েছে, তাদের উচিৎ সবর করা ও ভেঙ্গে না পড়া। এবং আল-কায়েদা সম্পৃক্ত নির্ভরযোগ্য কোন মিডিয়া থেকে সঠিক সংবাদের অপেক্ষা করা।

আর কোন কিছুইতো আল্লাহ রাব্বুল আ’লামিনের অগোচরে নয়। আমরা তাঁর কাছে তাঁর এক প্রিয় বান্দার ব্যাপারে ফয়সালা জানার এবং তাঁর ব্যাপারে উত্তম ধারণা রাখার দোয়া করি।

35 মন্তব্যসমূহ

  1. আমরা আমেরিকার দালাল মিডিয়াকে বিশ্বাস করি না। আর যদি শায়েখ সত্যি শাহাদাত বরণ করে থাকেন তাহলে তিনি শাহাদাতের অমৃত সুধা পান করেছেন। আমাদের বিশ্বাস রাখতে হবে কোন কিছুই আমাদের ইসলামের অগ্রযাত্রাকে ঠেকাতে পারবে না।আমাদের সকলের উচিত ধৈর্য ধারণ করা। ভেঙ্গে না পড়া। আল্লাহর কাছে শায়েখের জন্য দোয়া করা।

  2. কাফের সম্প্রদায়ের কাছ যদি কোন সংবাদ আসে তবে সেই সংবাদকে যাচাই-বাছাই করা উচিত। যতক্ষণ না আমরা প্রকৃত সত্য জানতে পারছি ততক্ষণ পর্যন্ত আমাদের সবর করা উচিত। কুফফার সম্প্রদায় মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে মুসলমানদের মনোবল দুর্বল করে দেওয়ার ষড়যন্ত্র করতে পারে। এতে ঘাবড়ে যাওয়ার কিছু নেই। বরং আল্লাহ্ তা’আলার উদ্দেশ্য সবর কর উচিত। সন্ত্রাসী আমেরিকা যদি সাময়িক ফায়দা হাসিলের জন্য মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে থাকে তবে তা তাদের জন্য অনুতাপের বিষয় হয়ে দাড়াবে ইনশা আল্লাহ।

  3. কাফের সম্প্রদায়ের কাছ থেকে যদি কোন সংবাদ আসে তবে সেই সংবাদকে যাচাই-বাছাই করা উচিত। যতক্ষণ না আমরা প্রকৃত সত্য জানতে পারছি ততক্ষণ পর্যন্ত আমাদের সবর করা উচিত। কুফফার সম্প্রদায় মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে মুসলমানদের মনোবল দুর্বল করে দেওয়ার ষড়যন্ত্র করতে পারে। এতে ঘাবড়ে যাওয়ার কিছু নেই। বরং আল্লাহ্ তা’আলার উদ্দেশ্য সবর কর উচিত। সন্ত্রাসী আমেরিকা যদি সাময়িক ফায়দা হাসিলের জন্য মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে থাকে তবে তা তাদের জন্য অনুতাপের বিষয় হয়ে দাড়াবে ইনশা আল্লাহ।

  4. আল্লাহ মুমিনদের অভিভাবক , তাই তিনি মুমিনদের সাহায্য করেন কাফেরদের ধ্বংস করেন । যদি তিনি শহীদ হয়েও থাকেন নো টেনশন এতো দিন যে প্রভুর ভালোবাসা ও জাহান্নামের ভয়ে পাহাড়ে ও জঙ্গলে দিনাতিপাত করেছেন সে মহান প্রভু উত্তম বাসস্থান দিবেন এবং সবুজ পাখির উদরে আত্মা প্রবিষ্ট করিয়ে যেথাসেথা উড়ে বেড়ানো ও রিজিক প্রদান করবেন ইনশাআল্লাহ

    • আল্লাহ মুমিনদের অভিভাবক , তাই তিনি মুমিনদের সাহায্য করেন কাফেরদের ধ্বংস করেন । যদি তিনি শহীদ হয়েও থাকেন নো টেনশন এতো দিন যে প্রভুর ভালোবাসা ও জাহান্নামের ভয়ে পাহাড়ে ও জঙ্গলে দিনাতিপাত করেছেন সে মহান প্রভু উত্তম বাসস্থান দিবেন এবং সবুজ পাখির উদরে আত্মা প্রবিষ্ট করিয়ে যেথাসেথা উড়ে বেড়ানো সুযোগ ও রিজিক প্রদান করবেন ইনশাআল্লাহ

  5. মুহতারাম এডমিন ভাইগণ! এই সংবাদের সত্যতা যাচাইয়ের জন্য বারবার ফোরামে ঢুকতেছি; আর অপেক্ষা করতেছি আপনাদের পক্ষ থেকে সঠিক সংবাদের। আশা করি ভাইরা আমাদেরকে দ্রুত শায়খের অবস্থা নিশ্চিত করবেন।

  6. উহুদ যুদ্ধে কাফেররা রাসূলুল্লাহ ﷺ এর মৃত্যুর মিথ্যা সংবাদ ছড়িয়ে দিয়ে উল্লাস করছিল৷ অতঃ কাফেররা মিথ্যাবাদি প্রমানিত হয়েছিল৷

    আমরাও আশা করি এবারও তারা মিথ্যুক প্রমানিত হবে৷
    .

    আর যদি সত্যই শাহাদাত হয়ে থাকে, তাহলে আমেরিকা ও তার দোসররা যেন মনে রাখে? রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইন্তেকালেও ইসলাম ও কাফেরদের যম মুজাহিদগণ শেষ হয়ে যায় নি৷

    সেই দিন শোকাবহ মূহুর্তে আবু বকর রাঃ এর খুৎবা ছিল-
    “যারা মুহাম্মাদ ﷺ এর ইবাতদ করে তারা যেন মনে রাখে তিৱি ইন্তেকাল করেছেন৷ আর যারা এক আল্লাহর ইবাদত করে তারা জেনে রাখুক তিনি চিরঞ্জীব কখনো মৃত্যুবরণ করেন না৷

    আমরা এক আল্লাহর ইবাদত করি৷তার জন্যই আমাদের জীবন আমাদের মরন৷

    অতঃ আমেরিকা ও কুফফার বাহিনী যেন আল্লাহর কঠিন প্রতিশোধের অপেক্ষা করে৷হয়তো তিনি নিজে শাস্তি দিবেন৷ অথবা আমাদের হাতে দিবেন৷

  7. আমরা আল-কায়েদার গোলাম না আমরা শাইখের গোলাম ও না আমরা আমাদের রবের গোলাম।
    আল্লাহ যদি তাকে শাহাদত নসিব করেন এইটা শাইখের জন্য উত্তম। আর যদি তিনি বেচে থাকেন আল্লাহ তাকে দ্বীনের একজন খাদেম হিসাবে কবুল করেন।
    আমরা ভেঙে যাওয়ার পাত্র নই।
    আমরা আবু বকর (রাঃ) এর উত্তরসূরি।
    রসূল (সাঃ) এর ইন্তেকালের পর আবু বকর (রাঃ) সবাইকে যে কথা বলেছিলো আমরাও সবাইকে সেই কথাই বলবো।
    যারা মুহাম্মদ (সাঃ) এর ইবাদত করতো তারা জানুক সে মারা গেছে।
    আর যারা আল্লাহর ইবাদত করতো তারা জানুক তাদের আল্লাহ এখনো আছেন ছিলো থাকবে।

    আল্লাহ আমাদের সকল রকম গোড়ামি থেকে হেফাযত করুন আমিন।

  8. আমরা আল-কায়েদার গোলাম না আমরা শাইখের গোলাম ও না আমরা আমাদের রবের গোলাম।
    আল্লাহ যদি তাকে শাহাদত নসিব করেন এইটা শাইখের জন্য উত্তম। আর যদি তিনি বেচে থাকেন আল্লাহ তাকে দ্বীনের একজন খাদেম হিসাবে কবুল করেন।
    আমরা ভেঙে যাওয়ার পাত্র নই।
    আমরা আবু বকর (রাঃ) এর উত্তরসূরি।
    রসূল (সাঃ) এর ইন্তেকালের পর আবু বকর (রাঃ) সবাইকে যে কথা বলেছিলো আমরাও সবাইকে সেই কথাই বলবো।
    যারা মুহাম্মদ (সাঃ) এর ইবাদত করতো তারা জানুক সে মারা গেছে।
    আর যারা আল্লাহর ইবাদত করতো তারা জানুক তাদের আল্লাহ এখনো আছেন ছিলো থাকবে।

    আল্লাহ আমাদের সকল রকম গোড়ামি থেকে হেফাযত করুন আমিন।

  9. রাসুল সা, এর ইন্তেকালের সেই দিন শোকাবহ মূহুর্তে আবু বকর রাঃ এর খুৎবা ছিল-
    “যারা মুহাম্মাদ ﷺ এর ইবাতদ করে তারা যেন মনে রাখে তিৱি ইন্তেকাল করেছেন৷ আর যারা এক আল্লাহর ইবাদত করে তারা জেনে রাখুক তিনি চিরঞ্জীব কখনো মৃত্যুবরণ করেন না

    আমরা শায়খের গোলাম না আমরা আল্লাহর গোলাম । আল্লাহ যদি শায়খকে বাঁচিয়ে রাখার মাঝে কল্যাণ রাখেন তাহলে রাখবেন না হয় নিয়ে যাবেন । আর সবাইকে ই তো মরতে হবে আমাকে ও আপনাকে ? আল্লাহ আমাদের সবাইকে শাহীদী মরণ দিন , আমিন

  10. আমরা আল-কায়েদার গোলাম না আমরা শাইখের গোলাম ও না আমরা আমাদের রবের গোলাম।
    আল্লাহ যদি তাকে শাহাদত নসিব করেন এইটা শাইখের জন্য উত্তম। আর যদি তিনি বেচে থাকেন আল্লাহ তাকে দ্বীনের একজন খাদেম হিসাবে কবুল করেন।
    আমরা ভেঙে যাওয়ার পাত্র নই।
    আমরা আবু বকর (রাঃ) এর উত্তরসূরি।
    রসূল (সাঃ) এর ইন্তেকালের পর আবু বকর (রাঃ) সবাইকে যে কথা বলেছিলো আমরাও সবাইকে সেই কথাই বলবো।
    যারা মুহাম্মদ (সাঃ) এর ইবাদত করতো তারা জানুক সে মারা গেছে।
    আর যারা আল্লাহর ইবাদত করতো তারা জানুক তাদের আল্লাহ এখনো আছেন ছিলো থাকবে।

    আল্লাহ আমাদের সকল রকম গোড়ামি থেকে হেফাযত করুন আমিন।

  11. الَّذِينَ قَالَ لَهُمُ النَّاسُ إِنَّ النَّاسَ قَدْ جَمَعُواْ لَكُمْ فَاخْشَوْهُمْ فَزَادَهُمْ إِيمَاناً وَقَالُواْ حَسْبُنَا اللّهُ وَنِعْمَ الْوَكِيلُ
    যাদেরকে লোকেরা বলেছে যে, তোমাদের সাথে মোকাবেলা করার জন্য লোকেরা সমাবেশ করেছে বহু সাজ-সরঞ্জাম ; তাদের ভয় কর। তখন তাদের বিশ্বাস আরও দৃঢ়তর হয়ে যায় এবং তারা বলে, আমাদের জন্য আল্লাহই যথেষ্ট; কতই না চমৎকার কামিয়াবীদানকারী। [সুরা ইমরান – ৩:১৭৩]

    আমরা ও কুফফারদেরকে ভয় করিনা বরং আমরা কুফফারদের প্রতিপালক আল্লাহকে ভয় এবং আল্লাহর দিকে ই ফিরে যাবো এবং আমাদেকে ভালো মেহমানদারী করবেন ইনশাআল্লাহ

    আল্লাহ আমাদেরকে জিহাদের পথে মরণ পর্যন্ত অবিচল রাখুন, আমিন সুম্মা আমিন ।

  12. الَّذِينَ قَالَ لَهُمُ النَّاسُ إِنَّ النَّاسَ قَدْ جَمَعُواْ لَكُمْ فَاخْشَوْهُمْ فَزَادَهُمْ إِيمَاناً وَقَالُواْ حَسْبُنَا اللّهُ وَنِعْمَ الْوَكِيلُ
    যাদেরকে লোকেরা বলেছে যে, তোমাদের সাথে মোকাবেলা করার জন্য লোকেরা সমাবেশ করেছে বহু সাজ-সরঞ্জাম ; তাদের ভয় কর। তখন তাদের বিশ্বাস আরও দৃঢ়তর হয়ে যায় এবং তারা বলে, আমাদের জন্য আল্লাহই যথেষ্ট; কতই না চমৎকার কামিয়াবীদানকারী। [সুরা ইমরান – ৩:১৭৩]

    আমরা ও কুফফারদেরকে ভয় করিনা বরং আমরা কুফফারদের প্রতিপালক আল্লাহকে ভয় করি আর আমরা আল্লাহর দিকে ই ফিরে যাবো এবং তিনি আমাদেকে উত্তম মেহমানদারী করবেন ইনশাআল্লাহ

    আল্লাহ আমাদেরকে জিহাদের পথে মরণ পর্যন্ত অবিচল রাখুন, আমিন সুম্মা আমিন ।

  13. হে উম্মাহর মহীরুহ! আপনি আপনার জাতির বিজয় দেখে গিয়েছেন। আপনার কষ্টের ফল আপনি জীবদ্দশাতেই পেয়ে গিয়েছেন।

    হে উম্মাহর রাহবার! আমরা তো আপনার প্রতিদান দেওয়ার সামর্থ রাখি না। আপনাকে আল্লাহ তার শান অনুযায়ী পুরষ্কৃত করবেন।

    আপনি বেঁচে থাকলে আল্লাহ আপনার ছায়া আমাদের উপর দীর্ঘ করুক। আর আপনার শা*হা*দা*ত হয়ে গেলে আল্লাহ আপনার পূর্বেকার ভাইদের সাথে আপনাকে মিলিয়ে দিক। আমিন ইয়া রাব্বাল আলামিন।

    উহারা চাহুক দাসের জীবন, আমরা শহীদি দরজা চাই;
    নিত্য মৃত্যু-ভীত ওরা, মোরা মৃত্যু কোথায় খুঁজে বেড়াই!

  14. আমরা কাফের সম্রদায়ের সংবাদ বিশ্বাস করি, রাব্বে কারিম এই সংবাদ মিথ্যা বানিয়ে দিন এটাই আমাদের মনের কামনা।
    আর যদি শায়েখ আইমান আল জাওয়াহিরি হাঃ শহিদ হন। তাহলে তো সর্ব উত্তম মৃত্যু তাওফিক হয়েছে।

    আর আমরা আমাদের প্রথম খলিফার সেই প্রথম খুতবা স্বরণ করছি তিনি জনস্মুখে ঘোষণা করেছিলেন من كان يعبد محمدا فان محمدا قد مات و من كان يعبد الله فان الله حي لا يموت

    যে মুহাম্মদ সাঃ এর ইবাদত করে সে জেনে রাখুন মুহাম্মদ সাঃইন্তেকাল করেছেন আর যে আল্লাহ তায়ালার ইবাদত করে সে জেনে রাখুক আল্লাহ তায়ালা চিরঞ্জিব তার মৃত্যু নেই

  15. আমরা কাফের সম্রদায়ের সংবাদ কখনো বিশ্বাস করি না , রাব্বে কারিম এই সংবাদ মিথ্যা বানিয়ে দিন এটাই আমাদের মনের কামনা।
    আর যদি শায়েখ আইমান আল জাওয়াহিরি হাঃ শহিদ হন। তাহলে তো সর্ব উত্তম মৃত্যু তাওফিক হয়েছে।

    আর আমরা আমাদের প্রথম খলিফার সেই প্রথম খুতবা স্বরণ করছি যা তিনি জনস্মুখে ঘোষণা করেছিলেন
    من كان يعبد محمدا فان محمدا قد مات و من كان يعبد الله فان الله حي لا يموت

    যে মুহাম্মদ সাঃ এর ইবাদত করে সে জেনে রাখুন মুহাম্মদ সাঃইন্তেকাল করেছেন আর যে আল্লাহ তায়ালার ইবাদত করে সে জেনে রাখুক আল্লাহ তায়ালা চিরঞ্জিব তার মৃত্যু নেই

    সুতরাং হে তাগুত ও তাগুতের পদলোহোন কারিরা জেনে রাখ,

    আমরা আল কায়দার গোলাম না। আমরা একমাত্র রাব্বে কারিমের গোলাম।

    আমরা ৪ মাসায়ালা আগে যেমন মানতাম এখনো তেমন মানব ইনশাআল্লাহ

    ১/বর্তমান কাফেরদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন কারীরা আমাদের শাসক না এরা শরিয়া পরিবর্তন ও বিকৃত করার কারণে মুরতাদ হয়ে গিয়েছে

    ২/
    মুসলিম ও কাফের কখনও এক হতে পারে না
    যারা ইমান আনবে তারা আমাদের ভাই, তারা জমিনের সর্ব মাঝে উকৃষ্ট অপর দিকে যারা কাফের ও মুশরেক তারা আমাদের শত্রু আমাদের রবের শত্রু জমিনের মাঝে সর্ব নিকৃষ্ট।
    চতুস্পদ যন্তুর চেয়েও নিকৃষ্টতর

    ৩/
    মুরতাদ শাসক কে অপসারণ করা উম্মার উপর ফরজ দায়িত্ব

    ৪/
    ইমান আনার পর সর্ব প্রথম দায়িত্ব হল মুসলিম ভূমির প্রতিরক্ষা

  16. হে উম্মাহ’র মহীরূহ…!
    আপনি আপনার জাতির বিজয় দেখে গেছেন। আপনার কষ্টের ফল কিছুটা জীবদ্দশাতেই পেয়ে গেছেন, আলহামদুলিল্লাহ।

    হে উম্মাহ’র রাহবার…!
    আমরা তো আপনার প্রতিদান দেওয়ার সামর্থ রাখি না। আপনাকে আল্লাহ তাআলা তাঁর শান অনুযায়ী পুরষ্কৃত করবেন, ইনশাআল্লাহ।

    আপনি বেঁচে থাকলে আল্লাহ তাআলা আপনার ছায়া আমাদের ওপর দীর্ঘ করুন। আর, আপনি শাহাদাত বরণ করলে আল্লাহ তাআলা আপনার পূর্বেকার ভাইদের সাথে আপনাকে উত্তম অবস্থায় জান্নাতে মিলিত করুন। আমীন ইয়া রাব্বাল আলামীন।

    কবির ভাষায় —

    উহারা চাহুক দাসের জীবন, আমরা শহীদি দরজা চাই;
    নিত্য মৃত্যু-ভীত ওরা, মোরা মৃত্যু কোথায় তা খুঁজে বেড়াই!

  17. আমাদের দেশের দালাল মিডিয়াগুলোও এই সংবাদ প্রচার করে যাচ্ছে,,,,, আমরা দালাল মিডিয়ার সংবাদ দেখে ভেঙ্গে পড়বো না ইনশাআল্লাহ আমরা আল্লাহর কাছে দোয়া করব আল্লাহ যেন মুসলিম উম্মাকে হেফাজত করে এবং নির্ভরযোগ্য আফগানিস্তানের মিডিয়ার সংবাদ এর অপেক্ষা করব

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন