হরিয়ানায় দাঙ্গায় এক দিনেই ছয় জন নিহত, চলছে গ্রেফতার

- আবু আব্দুল্লাহ

0
579

গত ৩১ জুলাই হরিয়ানার নুহ জেলায় হিন্দুত্ববাদীদের মহাপঞ্চায়েত থেকে মুসলিমদের সাথে সংঘর্ষ শুরু হয়, এর জেরে ৬ জন নিহত হয়েছে। হিন্দুত্ববাদী নেতারা উস্কানিমূলক ভাষণ-বিবৃতি দিতে থাকলে একপর্যায়ে উত্তেজিত হিন্দু জনতা মুসলিমদের বাড়িঘর ও স্থাপনায় হামলে পরে। মুসলিমরা প্রতিরোধের চেষ্টা করলে সংঘর্ষ ব্যাপক আকার ধারণ করে, ফলে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

দা হিন্দু পত্রিকার রিপোর্ট অনুযায়ী, এই পর্যন্ত ১৬০ টি এফআইআর দাখিল আর ৩৯৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, যাদের অধিকাংশই মুসলিম।

আর জনহস্তক্ষেপ নামের একটি এনজিওর গঠিত ফ্যাক্ট চেকিং কমিটি তাদের তদন্তপূর্বক রিপোর্টে মুসলিমদের উপর সাম্প্রদায়িক হামলার জন্য বজরং দল ও বিশ্ব হিন্দু পরিষদকে (ভিএইচপি) দায়ী করেছে। তাদের তদন্ত প্রতিবেদনে তারা বলেছে, “হিন্দুত্ববাদী দলগুলোর ঐ কথিত ধার্মিক যাত্রার লোকেরা আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার ও সহিংসতা চালিয়েছে; কিন্তু পুলিশের এফাইআরে এর কোন উল্লেখ নেই। স্পষ্টতই এফআইআর-এ শুধুমাত্র একটি পক্ষকেই অপরাধী সাজানো হয়েছে, আর বজরং দল এবং ভিএইচপির সমর্থকদেরকে ‘ভিকটিম’ হিসেবে দেখানো হয়েছে।”

ফ্যাক্ট চেকিং কমিটি জানিয়েছে যে, বিজেপি ও আরএসএস বাহিনীর বিরুদ্ধে হামলা চালিয়েছে মূলত স্থানীয় জাঠ সম্প্রদায়।
রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে যে, বজরং দলের ডাকেই নুহ জেলার মেওলিতে এই মহাপঞ্চায়েত বা মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছিল, আর দুই মুসলিম হত্যার দায়ে অভিযুক্ত কথিত গোরক্ষক মনু মনেসর সাম্প্রদায়িক উস্কানি দিয়ে দাঙ্গা বাধিয়ে দেয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পরা এক ভিডিওতে দেখা যায় যে, ভারত মাতা বাহিনী নামক দলের এক নেতা দিনেশ ভারতী উস্কানিমুলক বক্তব্য প্রদান করে সংঘাত উস্কে দিচ্ছে।

বিপরীতে ১ আগস্ট ভোরের আলো ফোটার আগেই মুসলিমদের বাড়িঘরে প্রবেশ করে গণগ্রেফতার শুরু করে পুলিশ। বাঁধা দিতে আসলে মুসলিম মহিলাদেরকেও হেনস্তা করে পুলিশ। দাঙ্গার সময় এলাকায় অনুপস্থিত ব্যক্তিদেরকেও গ্রেফতারের অভিযোগ উঠেছে।

গ্রামের বাসিন্দা ৭৭ বছর বয়স্ক একজন প্রবীণ মুসলিম জানিয়েছেন যে, এই পর্যন্ত গ্রেফতার আতংকে অন্তত ২ হাজার মুসলিম যুবক পালিয়ে গেছে। তিনি এও জানিয়েছেন যে, পুলিশ ১৫ বছর বয়স্ক কয়েকজন কিশোরকেও গ্রেফতার করেছে।

সার্বিক পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। মুসলিমরা ন্যায়বিচার পাওয়া নিয়ে চরম সংশয়ে আছেন, যার আলামত ইতিমধ্যে দেখা গিয়েছে। ইতিপূর্বেও এমন ঘটনায় এককভাবে ,মুসলিমদের বিরুদ্ধেই একশনে যেতে দেখা গেছে হিন্দুত্ববাদী ভারতীয় পুলিশকে। অনেক বিশ্লেষক এটিকে হিন্দুত্ববাদীদের ‘মুসলিম নির্মূল’ মিশনের অংশ হিসেবেই দেখছেন।

তথ্যসূত্র:
———
1. Nuh violence: police raids force Muslims to flee from Meoli village, several camps in forest
https://tinyurl.com/4yrp8acf
2. NGO points finger at Bajrang Dal, Vishwa Hindu Parishad for communal violence in Haryana
https://tinyurl.com/ms3bs3d9

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধনাইজারে আটক ১৬ মুজাহিদকে মুক্ত করলো আল-কায়েদা: হতাহত ৯ সেনা
পরবর্তী নিবন্ধইন্তেকাল করেছেন কুরআনের পাখি মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদী