মোদীর ভারতে মুসলিমরা নিজভূমে পরবাসী

0
186

মনে নানা উদ্বেগ নিয়ে সালাম এখন শুধু অফিস ও বাসায় যাওয়া-আসা করেন। ভারতে বসবাসকারী একজন মুসলিম হিসেবে জনাব সালাম ও তার স্ত্রী উজমা তাদের মেয়েদের নিয়ে উদ্বিগ্ন। কেননা হিন্দুত্ববাদের উগ্র অভ্যুত্থানের কবলে ভারতে মুসলিমরা নানা সমস্যার মধ্যে রয়েছে। আবাসন ও বাসা বদলানোর ক্ষেত্রে আবাসন এজেন্টরা আগে জানতে চান ওই পরিবার মুসলিম কিনা; মুসলিম হলে ভাড়া দিতে অনাগ্রহ দেখায়।

শনিবার দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে আসে। স্ত্রী উজমা আউসাফ আর চার কন্যাকে নিয়ে দিল্লির উপকণ্ঠে থাকা সাংবাদিক জিয়া উস সালাম বলেন, ‘এটা এখন নির্জীব এক জীবন। সালাম বহুত্ববাদী ভারতে সবার সহাবস্থানের বিষয়টি স্মরণ করেন। তিনি দেশটির অভ্যন্তরে বিভেদ আর বাড়াতে দেখতে চান না। ‘ভারতে এমন বিভেদের খেলা ক্ষণস্থায়ী’– এমনটা মনে করেই সালাম নিজেকে সান্ত্বনা দেন।

তবে ভারতের হিন্দুত্ববাদী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং তার দল বিজেপি ও অন্যান্য হিন্দুত্ববাদী শক্তিগুলো হিন্দু-মুসলিম ইস্যু নিয়ে লম্বা খেলায় ব্যস্ত। দীর্ঘ সময় ধরে চলা প্রান্তিক পর্যায়ের হিন্দু জাতীয়তাবাদী আন্দোলনকে মূলধারায় এনে তার সাথে উন্নয়নের দোহাই যুক্ত করে দিয়ে ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসে মোদী। তখন থেকে সে ভারতের হিন্দুত্ববাদী চেহারা ও কথিত গণতন্ত্রের দুর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে ধীরে ধীরে মুসলিমবিদ্বেষ উগড়ে দিতে থাকে, সমাজে মুসলিমদের কোণঠাসা ও দুর্বল করতে থাকে। এতকাল কথিত ধর্মনিরপেক্ষতা ও বৃহৎ গণতান্ত্রিক দেশের তকমা পেয়ে আসা দেশটির সাম্প্রদায়িক রূপ ও জাতিগত বিদ্বেষের প্রকৃত রূপ সামনে নিয়ে আসে সে।

মোদী ক্ষমতায় আসার পর তাকে সামনে রেখে ডানপন্থি সংগঠনগুলো ভারতের সমাজকে পাল্টাতে শক্তি প্রদর্শন শুরু করে। তারা সাম্প্রদায়িক সংঘাতে উস্কানি দিতে থাকে, যা সরকার দেখেও না দেখার ভান করেছে। এসব ঘটনায় মুসলিমদের বাড়িঘর ভেঙে দেয় কর্মকর্তারা; আবার ধরে নিয়ে যায় মুসলিমদেরকেই। গরুর মাংস পাচারের অভিযোগ তুলে মুসলিমদের ওপর নির্যাতন-নিপীড়ন শুরু করে সহিংস গ্রুপগুলো। মোদির দলের শীর্ষ নেতারাও সমাদৃত হিন্দু, যারা মুসলিমদের বিরুদ্ধে নিয়মিত অপরাধ সংঘটন করে যাচ্ছে।

ভারতের প্রচারমাধ্যমে, বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ধর্মান্ধতা যাচাই করা হয় না। হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ষড়যন্ত্র তথ্য সম্প্রচার করা হয়। এতে বলা হয়, মুসলিম যুবকরা হিন্দু মেয়েদের ধর্মান্তরিত হতে প্রলুব্ধ করছেন। মোদী ও তার দল অবশ্য এসব বৈষম্যকরণের অভিযোগ অস্বীকার করে বলছে যে, তারা উন্নয়ন কর্মকাণ্ড করছে, যা প্রত্যেক ভারতীয়কে সমান চোখে দেখে। তবে নির্বাচনের প্রচারণায় গিয়ে খোদ মোদীই বারবার মুসলিমবিরোধী নানা বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছে, লাগাতার। সে ভারতের ২০ কোটির অধিক মুসলিমকে অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে সরাসরি আক্রমণ করছে এখন; তাদের ‘অনুপ্রবেশকারী’ বলে মন্তব্য করেছে সে।


তথ্যসূত্র:
1. Strangers in Their Own Land: Being Muslim in a Hindu-First India
https://tinyurl.com/4t23jrth

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন

পূর্ববর্তী নিবন্ধআরও ১৩৭ জন আফগান যুবকের সামরিক প্রশিক্ষণ সম্পন্ন
পরবর্তী নিবন্ধকাবুল সেমিনারে আমিরুল মুমিনীনের গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি উপদেশ