ঠাকুরগাঁওয়ে আ.লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে মারামারি, আহত ২০

0
355

ঠাকুরগাঁওয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বাষিক সম্মেলনকে কেন্দ্র করে এমপি’র উপস্থিতিতে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে বেশকিছু চেয়ার ভাঙচুরসহ কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (৩ মার্চ) বিকেলে সদর উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, বিকেলে মোহাম্মদপুর ইউনিয়ন চত্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বাষিক সম্মেলন শুরু হয়। এতে ঠাকুরগাঁও-১ আসনের এমপি রমেশ চন্দ্র সেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাদেক কুরাইশী, সাধারন সম্পাদক দীপক কুমারসহ জেলা অন্যান্য নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

তাদের উপস্থিতিতে প্রথম বর্ধিত সভা শেষ হয়। ২য় বর্ধিত সভায় সভাপতি পদে নামের তালিকা চায় নেতারা। সভাপতি পদে ৫ জনের নাম আসে সম্মেলনে উপস্থিতিদের কাছ থেকে। পরে সাধারণ সম্পাদকের নাম চায় নেতারা। শুরুতেই মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সোহাগের নাম আসে উপস্থিতিদের কাছ থেকে। পরে অন্যান্য প্রস্তাব কারিরা সাধারণ সম্পাদকের নাম দিতে চাইলে হন্ডোগোল শুরু হয়।

এক পর্যায়ে সোহাগ গ্রুপ ও সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী সিরাজুল ইসলামের গ্রুপের সাথে সংঘর্ষ বাধে। এতে সিরাজুল ইসলামকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়। এবং তার পক্ষের লোকদেরও মারপিট করে সোহাগের লোকজন। এতে কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়।

ওই ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে আজকে এ ঘটনা ঘটেছে। সোহাগ চেয়ারম্যানের লোকজন আমাকে ও আমার পক্ষের লোকদের মারধর করেছে। আমি প্রার্থী ছিলাম বলেই তারা আমাকে মারধর করেছে।

 

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন