বায়ুদূষণে এবারও শীর্ষে বাংলাদেশ

0
614
বায়ুদূষণে এবারও শীর্ষে বাংলাদেশ

বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত বায়ুর তালিকায় গতবারের মতো এবারও শীর্ষ স্থান ধরে রেখেছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে রাজধানী ঢাকাও দূষিত বায়ুর শহরগুলোর মধ্যে গতবারের মতোই দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। খবরঃ যুগান্তরের

গত ২৫ ফেব্রুয়ারি, মঙ্গলবার বিশ্বের বায়ুর মান প্রতিবেদন-২০১৯ শীর্ষক প্রতিবেদনে এসব তথ্য উঠে এসেছে।

২০১৯ সালে বিশ্বের ৯৮টি দেশের সার্বক্ষণিক বায়ুর মান পর্যবেক্ষণ করে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে ও সুইজারল্যান্ডভিত্তিক আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ‘আইকিউ এয়ার’ থেকে এ প্রতিবেদনটি প্রকাশ করা হয়েছে। প্রতিবেদনটি দেশের বায়ুতে ক্ষতিকর সূক্ষ্ম বস্তুকণার পরিমাণ বিবেচনায় তৈরি করা হয়। এমন মারাত্মক বায়ুদূষণের চিত্র কোনো দেশের জন্য সুখকর হতে পারে না।

বাতাসে প্রতি ঘনমিটারে মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর সূক্ষ্ম বস্তুকণা পিএম-২.৫ এর পরিমাণ বিবেচনায় ওই তালিকার মান নির্ধারণ করা হয়। বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) ও যুক্তরাষ্ট্র সরকারের বায়ুর মানমাত্রা অনুসরণ করে বৈশ্বিক ওই সূচকটি তৈরি করা হয়েছে।

এশিয়ার অন্যান্য দেশের তুলনায় আমাদের দেশে বায়ুদূষণের এমন চিত্র বেশ হতাশাজনক। বিশ্বের অনেক অনুন্নত ও উন্নয়নশীল দেশ যেখানে বায়ুদূষণ প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা পালন করছে, সেখানে আমরা ২০১৮ সালের মতো এবারও কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছি।

পরিবেশগত দিক বিবেচনায় আমরা আজও অনুন্নত পর্যায়েই রয়ে গেছি। পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পরিবেশগত অবস্থা এমন হওয়ায় চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়তে হতে পারে বাংলাদেশকে। এমন বায়ুদূষণের ক্ষতিকর প্রভাব বিস্তারের ফলে নানা ভাইরাস সংক্রমণের তীব্র ঝুঁকি থেকেই যায়।

এভাবে চলতে থাকলে গাছের সংখ্যা কমে যাবে; সেইসঙ্গে বন্যপ্রাণী বিলুপ্ত হতে পারে। এর ফলে বায়ুতে অতি ক্ষতিকর সূক্ষ্ম বস্তুকণা পিএম-২.৫ এর পরিমাণ বেড়ে যাবে, যা জনস্বাস্থ্যের জন্য ভয়াবহ ক্ষতি ডেকে আনবে।

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন