কমিউনিস্ট চীন সরকার সারা বিশ্বের কাছে আসল তথ্য গোপন করছে- জেনিফার জং

2
639

চীনের মানবাধিকার কর্মী, অ্যাক্টিভিস্ট ‘জেনিফার জং’ তার ট্যুইটারে করোনা ভাইরাস এর ব্যাপারে এমন কিছু তথ্য ও সন্দেহ উপস্থাপন করেছেন যা করোনা ভাইরাস নিয়ে কমিউনিস্ট চীন সরকারের ভূমিকা নিয়ে নানাধরণের প্রশ্নের জন্ম দিচ্ছে। তিনি ট্যুইটারে বলেছেন চীনের মোবাইল ব্যবহারকারীর বর্তমান পরিসংখ্যান অনুযায়ী ৮.১১৬ অর্থাৎ প্রায় ৮১ লক্ষ মানুষ নিখোঁজ হয়ে গেছেন। মোবাইল ব্যবহারকারীদের এই রেকর্ড সংখ্যা জানুয়ারী এবং ফেব্রুয়ারী মাসের মধ্যে কমেছে। এই সময়ে চীনে করোনা ভাইরাস সবচেয়ে দ্রুতগতিতে ছড়িয়েছিল। জেনিফার জং মোবাইল ব্যবহারকারীর সংখ্যা এত দ্রুতগতিতে হ্রাসের উপরে ভিত্তি করে প্রশ্ন করেছেন এতো মানুষ হঠাৎ কোথায় নিখোঁজ হয়ে গেলেন! এই সমস্ত ব্যবহারকারীরা কি অন্য সিম কার্ড নিয়ে নিয়েছেন! না এই সব ব্যবহারকারীরা অন্য জগতে তাদের মোবাইল নিয়ে যেতে পারেননি। নিজের ট্যুইটে জেনিফার জং চীনের সেই রিপোর্ট প্রমাণ হিসেবে দিয়েছেন। জেনিফার জং সন্দেহ করেছেন যে করোনা ভাইরাসের আক্রমণে এই ৮১ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। চীনে ইউহান শহরে বহুসংখ্যক মৃতদেহ আগুণে পুড়ানো হয়েছিল, কিন্তু কতলোককে সেখানে তারা আগুণে পুড়িয়েছিল তার হিসাব কারো কাছেই নেই। জেনিফার জং এর এই রিপোর্ট প্রকাশ্যে আসার পরেই ওয়াশিংটন জার্নাল, নিউইয়র্ক টাইমস, ওয়াশিংটন পোস্টের সাংবাদিকদের দেশ থেকে বিতাড়িত করে দেওয়া হয়েছিল। কারণ তার এই রিপোর্ট প্রকাশের পর সংবাদিকরা নতুন করে এনিয়ে তথ্য সংগ্রহের কাজ শুরু করছিল। আর চীন এটা কখনোই চায়না যে নিহতের সঠিক কোন পরিসংখ্যান দুনিয়ার মানুষ জানতে পারুক। এই সমস্ত সংস্থার সাংবাদিকেরা তাদের সংবাদে বলেছিলেন, করোনা ভাইরাসের আক্রমণে ঠিক কতো মানুষের মৃত্যু হয়েছে তার সঠিক পরিসংখ্যান চীন সরকার প্রকাশ করছে না এবং সারা বিশ্বের কাছ থেকে তারা সত্যতা লুকোচ্ছে। চীনে ২০১৯ সালের নভেম্বর-ডিসেম্বর মাসে এই ভাইরাস প্রথম আক্রমণ করেছিল। চীন এই বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে ভাবনাচিন্তা করে সারা বিশ্ব থেকে লুকিয়েছে এবং বিশ্বকে সচেতন করেনি। মানবাধিকার কর্মী, অ্যাক্টিভিস্ট জেনিফার জং তার ট্যুইটারে গত ২৩ মার্চ, ২০২০ তারিখ একটি ভিডিও পোস্ট করে তিনি লিখেছিলেন, চীনের হাসপাতালে এখন করোনা আক্রান্ত মানুষদের ভর্তি নেওয়া হচ্ছে না। কারণ কমিউনিস্ট চীন সরকার সারা বিশ্বের কাছে এই সংবাদ দিতে চায় যে চীন থেকে করোনা ভাইরাস নিঃশেষ হয়ে গেছে, চীনে করোনা আক্রান্ত কোনো ব্যক্তি নেই।

2 মন্তব্যসমূহ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন