হিন্দুত্ববাদী ভারতের সাথে উচ্চাকাঙ্ক্ষী সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র

0
293
হিন্দুত্ববাদী ভারতের সাথে উচ্চাকাঙ্ক্ষী সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা করছে যুক্তরাষ্ট্র

ভারতের সাথে ‘উচ্চাকাঙ্ক্ষী নতুন যুগের’ সম্পর্ক গড়ে তোলার আকাঙ্ক্ষা ব্যক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্র। ভারতকে তারা ইন্দো-প্রশান্ত অঞ্চল ও বৈশ্বিক পর্যায়ে উদীয়মান প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা অংশীদার হিসেবে বিবেচনা করে। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও গেলো বুধবার এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা একে অন্যকে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র, বৈশ্বিক শক্তি এবং সত্যিকারের ভালো বন্ধু হিসেবে দেখি’। তিনি ইঙ্গিত দেন, চীনের বিরুদ্ধে ভারসাম্য তৈরির জন্য ট্রাম্প প্রশাসন এই সম্পর্কটাকে আরও এগিয়ে নিতে চায়।

যুক্তরাষ্ট্র-ভারত বিজনেস কাউন্সিলের ইন্ডিয়া আইডিয়াস সম্মেলনে দেয়া এক ভিডিও বার্তায় পম্পেও বলেন, ‘মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পররাষ্ট্র নীতিতে ভারত একটি গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ।’

এমন সময় যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এই মন্তব্য করা হলো যখন দুই দেশ ভারত মহাসাগরে যৌথ নৌ মহড়ায় অংশ নিয়েছে। ফিলিপাইন সাগরে যুক্তরাষ্ট্র, জাপান আর অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে ত্রিপাক্ষিক মহড়ার পাশাপাশি ওই মহড়াটি অনুষ্ঠিত হয়।

এই দুইটি মহড়া যদিও সমন্বিতভাবে করা হয়নি, কিন্তু চারটি দেশ ইন্দো-প্রশান্ত অঞ্চলে একই সময়ে সামরিক মহড়ায় অংশ নেয়ায় বিষয়টিকে ঠিক কাকতালীয় হিসেবে দেখছেন না বিশ্লেষকরা।

কোয়াডের নিরাপত্তা বন্ধনকে আরও মজবুত করার জন্য ভারতও চলতি বছরের শেষের দিকে অনুষ্ঠিতব্য তাদের বার্ষিক মালাবার নৌ মহড়ায় অস্ট্রেলিয়াকে আমন্ত্রণ জানানোর পরিকল্পনা করছে বলে জানা গেছে। এই মহড়ায় আরও রয়েছে জাপান আর যুক্তরাষ্ট্র।

এর আগে ২০১৮ সালে মহড়ায় অস্ট্রেলিয়ার অংশগ্রহণের বিষয়টিকে নাকচ করে দিয়েছিল ভারত। এ বছর সেই সিদ্ধান্ত থেকে ফিরে এসে অস্ট্রেলিয়াকে আমন্ত্রণ জানানোর অর্থ হলো ভারত নিজের সামরিক স্ট্র‍্যাটেজিতে বড় ধরনের পরিবর্তন এনেছে।

সূত্র: নিক্কি এশিয়ান রিভিউ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন