যুবলীগ নেতার তাণ্ডবে ক্ষতবিক্ষত গ্রাম, প্রতিবাদ হলেই মামলা

0
442
যুবলীগ নেতার তাণ্ডবে ক্ষতবিক্ষত গ্রাম, প্রতিবাদ হলেই মামলা

হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার সাটিয়াজুরী ইউনিয়নের দ্বারাগাঁও গ্রাম ক্ষতবিক্ষত বালু উত্তোলনে। বসতভিটা হারাচ্ছেন গ্রামের দরিদ্র মানুষ। ভেঙে পড়েছে রাস্তাঘাট, বিদ্যুৎলাইন, কবরস্থান ও শ্মশানঘাট। প্রতিদিন ৭০-৭৫টি ড্রেজার মেশিন দিয়ে ফসলিজমি থেকে বালু উত্তোলনের ফলে হুমকির মুখে পড়েছে পুরো গ্রাম।

ইতিমধ্যে অনেকেই বালুখেকোদের তাণ্ডবে বাড়িঘর অন্যত্র সরিয়ে নিয়েছেন। গ্রামের যুবকরা অবৈধভাবে এসব বালু উত্তোলনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় তাদের মামলা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে প্রভাবশালী বালুখেকোরা। মাত্র ৪০ থেকে ৪৫ জন বালুখেকোর কারণে বিলুপ্ত হতে চলেছে ঐতিহ্যবাহী দ্বারাগাঁও গ্রাম।

এদিকে গত রবিবার বিকেলে চুনারুঘাটের সহকারী কমিশানর (ভূমি) মিলটন চন্দ্র পালের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত দারাগাঁও গ্রামে অভিযান চালিয়ে ২৬টি ড্রেজার মেশিন এবং প্রায় পাঁচ হাজার ফুট পাইপ ভেঙে নষ্ট করে দিয়েছে। অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে আব্দুল করিমকে এক বছর ও কদ্দুছ মিয়াকে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

স্থানীয়রা জানান, চুনারুঘাট উপজেলার দ্বারাগাঁও গ্রামের যুবলীগ নেতা মশ্বব আলী কাউসারের নেতৃত্বে ৩০ থেকে ৩৫ জনের একটি দল গ্রামে বালু সিন্ডিকেট গড়ে তুলেছেন। তাদের মদদ দিচ্ছে পার্শ্ববর্তী বাহুবলের জয়পুর গ্রামের ফারুক মিয়াসহ আরো ৮-১০ জনের একটি চক্র। এ চক্রটি গ্রামের ৩০-৩৫ জনের কাছ থেকে জমি ভাড়া নিয়ে বড় বড় ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলন করে। বালু ট্রাক্টর দিয়ে পরিবহন করে কামাইছড়া এলাকার ডিপোতে নিয়ে আসে। ডিপো থেকে বালু দেশের বিভিন্ন স্থানে পাচার হয়ে যাচ্ছে। বালু বিক্রি করে তারা কোটিপতি হলেও গ্রামের মানুষ হচ্ছে নিঃস্ব।

বালু উত্তোলনের ফলে বড় বড় গর্ত তৈরি হচ্ছে এবং এসব গর্ত থেকে আবারও বালু উত্তোলনের কারণে ভাঙছে ফসলিজমি ও বসতঘর। এসব বালু আবার ফসলিজমিতে ডিপো করে পরিবহন ও লোড-আনলোড করার কারণে ফসলিজমিও নষ্ট হচ্ছে। কামাইছড়া থেকে দ্বারাগাঁও পর্যন্ত পাঁচটি ব্রিজ রয়েছে চরম হুমকিতে। যেকোনো সময় এসব ব্রিজ ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হতে পারে। বিচ্ছিন্ন হতে পারে ফিনলে টি কম্পানির চা পরিবহন ও যাতায়াত। একইভাবে বালু পরিবহন ও উত্তোলনের কারণে হুমকির মধ্যে রয়েছে দ্বারাগাঁও চা বাগান।

এ বিষয়ে সাটিয়াজুরী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ বলেন, দ্বারাগাঁও গ্রামে বালুখেকোরা হরিলুট চালাচ্ছে, সব দলের লোকজন মিলেই গ্রামে বালু উত্তোলন করছে, গ্রামের বাড়িঘরের প্রতি তাদের কোনো দরদ নেই। তিনি এ বিষয়ে উপজেলা আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক সভায় বারবার অবগত করছেন বলেও জানান। তিনি বলেন, গ্রামবাসী এ বিষয়ে সচেতন না হলে ভয়াবহ পরিণতি হবে। কালের কন্ঠ

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন