যদি কেউ লড়তে চায়, তবে এমন লড়াই হবে যা আগে কেউ দেখেনি- সিরাজুদ্দিন হক্কানী

2
1273
যদি কেউ লড়াই করতে চায়, তাহলে এমন লড়াই হবে যা আগে কেউ দেখেনি- সিরাজুদ্দিন হক্কানী

সম্প্রতি ইমারতে ইসলামিয়ার উপপ্রধান শাইখ সিরাজুদ্দিন হক্কানী হাফিজাহুল্লাহ্ আগ্রাসী বাহিনীকে লক্ষ্য করে কঠিন হুমকি দিয়েছেন।

তালেবানদের রাজনৈতিক দলের সদস্য আনাস হক্কানী (হাঃ) সম্প্রতি তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্টে তাঁর বড় ভাই ও ইমারতে ইসলামিয়ার উপপ্রধান শাইখ সিরাজুদ্দিন হক্কানী হাফিজাহুল্লাহ্’র নতুন একটি বার্তা প্রকাশ করেছেন। যেখানে শাইখ সিরাজুদ্দিন হক্কানী হাফিজাহুল্লাহ্ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে হুমকি দিয়েছেন।

আনাস হক্কানী তাঁর টুইট বার্তায় লিখেছেন, মহান আল্লাহ্ তা’আলার অনুগ্রহে এখন আমরা পূর্বের তুলনায় সুসংগঠিত ও শক্তিশালী, আমাদের কাছে এখন অত্যাধুনিক ড্রোন প্রযুক্তি, বিমান বিধ্বংসী ও নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি উন্নতমানের দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র, মিসাইল এবং অন্যান্য উন্নত সামরিক সরঞ্জাম ইতোমধ্যে আমরা উৎপাদন করতে সক্ষম হয়েছি। সুতরাং এখন যদি কেউ লড়াই করতে চায় তবে এটি এমন লড়াই হবে যা আগে কেউ দেখেনি এবং আমাদের থেকে কল্পনাও করেনি।

ইতিহাস প্রমাণ করেছে যে, আমরা মুসলিমরা কখনোই কোনও চুক্তি ভঙ্গ করি নি। বরং এজাতীয় অপরাধ বিরুধী পক্ষহতেই সবসময় করা হয়েছে।

অপরদিকে তালেবানদের দাওয়াহ্ বিভাগের প্রধান মোল্লা আমির খান মোত্তাকী হাফিজাহুল্লাহ্ গত ২৮শে ফেব্রুয়ারি এক সেমিনারে বলেন- আমেরিকা নিজেই স্বীকার করেছে যে, গত বছর আমাদের হামলায় কোন মার্কিন সৈন্য নিহত হয়নি। তিনি বলেন এটা এখন সবার কাছেই স্পস্ট যে, আমরা আমাদের প্রতিশ্রুতি রেখেছি এবং আমরা ঐক্যবদ্ধ একটি মুসলিম বাহিনী হিসাবে আছি।

সুতরাং আমরা যেমন নিজেদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করেছি, তেমনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্রদেরও উচিত্র প্রতিশ্রুতি রক্ষা করা, যদিও তাদের কার্যক্রম বারবার চুক্তিটি লঙ্ঘনের দিকে ইঙ্গিত করছে। কেননা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা এখনো যুদ্ধের ময়দানে রয়েছে এবং তারা নিরন্তরভাবে শান্তি প্রক্রিয়াটিকে নাশকতার রূপ দিচ্ছে।

তিনি আরো বলেন যে, চুক্তি স্বাক্ষর হওয়ার পর থেকে গত একবছরে ১৩,৬৫১ জন কাবুল সারকারি সেনা ও পুলিশ সদস্য তাদের সামরিক পদ থেকে পদত্যাগ করে তালেবান মুজাহিদদের সাথে যোগ দিয়েছে। তবে কাবুল বাহিনী ছেড়ে পালিয়ে যাওয়া সেনা সদস্যের সংখ্যা আরো কয়েকগুণ বেশী। এছাড়াও আমরা এই চুক্তির মাধ্যমে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ ৫ হাজার বন্দী মুজাহিদকে মুক্ত করতে পেরেছি, যদিও এই তালিকায় এখনো আরো অনেকে বাকি রয়েছেন।

অপরদিকে আমরা এই চুক্তির মাধ্যমে আন্তর্জাতিক সমর্থন পেয়েছি। সুতরাং যদি এখন এই চুক্তি ভঙ্গ করা হয়ে তবে ইমারতে ইসলামিয়ার বড় কোন ক্ষতি হবেনা, বরং চুক্তি ভঙ্গকারীদেরকে এর কঠিন মূল্য দিতে হবে।

Pics-Art-03-02-01-46-56

2 মন্তব্যসমূহ

  1. واعدوا لهم ما استطعتم من قوه ومن رباط الخيل ترهبون به عدو الله وعدوكم واخرين من دونهم لا تعلمونهم الله يعلمهم وما تنفقوا من شيء في سبيل الله وفق اليكم وانتم لا تظلمون
    বারুদভর্তি গাড়ি নিয়ে আমেরিকার লাল কুকুরদের সারির মাঝে এমন বীরত্বের সঙ্গে ঢুকে পড়বে যে, জান্নাতের হুরগণ পর্যন্ত সন্দেহে পড়ে যাবে! তারা মৃত্যুকে তাড়িয়ে ফিরবে, ঠিক যেভাবে আমেরিকার লাল কুকুরেরা প্রবৃত্তির পার্থিব জীবনের পেছনে ছুটে চলছে! তাদের সন্ত্রস্ত হয়ে পড়বে, ঠিক যেমনিভাবে আমেরিকার লাল কুকুর ও তার অনুসারীরা মৃত্যুকে ভয় করে থাকে!

  2. বারুদভর্তি গাড়ি নিয়ে আমাদের তালেবান ভাইয়েরা আমেরিকার লাল কুকুরদের সারির মাঝে এমন বীরত্বের সঙ্গে ঢুকে পড়বে যে, জান্নাতের হুরগণ পর্যন্ত সন্দেহে পড়ে যাবে! তারা মৃত্যুকে তাড়িয়ে ফিরবে, ঠিক যেভাবে আমেরিকার লাল কুকুরেরা প্রবৃত্তির পার্থিব জীবনের পেছনে ছুটে চলছে! তাদের সন্ত্রস্ত হয়ে পড়বে, ঠিক যেমনিভাবে আমেরিকার লাল কুকুর ও তার অনুসারীরা মৃত্যুকে ভয় করে থাকে!
    আল্লাহ তায়ালা আপনাদের কাজে বারাকাত দান করুন। আমীন ইয়া রাব্বাল আলামীন!

মন্তব্য করুন

দয়া করে আপনার মন্তব্য করুন!
দয়া করে এখানে আপনার নাম লিখুন